ঢাকা ০১:৫৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
গজারিয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান দুই প্রতিষ্ঠান কে অর্থদন্ড টেকপাড়া ও ইয়াকুব নগরের অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্হদের মাঝে নগর অর্থ ও বস্ত্র বিতরণ বাস ও ফুটওভার ব্রিজ মুখোমুখি সংঘর্ষ “২৬শে এপ্রিল থেকে শুরু হচ্ছে শার্ক ট্যাংক বাংলাদেশ” –মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগর এলাকা হতে ৫৩ কেজি গাঁজাসহ ০৩ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১০; মাদক বহনে ব্যবহৃত পিকআপ জব্দ। “মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন” ইন্দুরকানীতে দিনব্যাপী পারিবারিক পুষ্টি বাগান ও বস্তায় আদা চাষ বিষয়ক প্রশিক্ষণ চট্টগ্রামে সড়ক অবরোধ করে চুয়েট শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ, ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন … লালমনিরহাটে বৃষ্টির জন‍্য বিশেষ নামাজ আদায় মিছিল ও শোডাউন করায় মতলব উত্তর উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীকে মানিক দর্জিকে শোকজ

গলাচিপায় আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলন

সমীর দেবনাথ, গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি :-
গতকাল গলাচিপা আ’লীগ অফিস কার্যালয়ে ১৫ ই আগষ্ট জাতীয় শোক দিবসে আওয়ামী সমর্থিত দু গ্র“পের সংঘর্ষের ঘটনায় উপজেলা আওয়ামী লীগ মঙ্গলবার রাত ৯ টায় গলাচিপা প্রেসক্লাবের সংবাদ কর্মীদের নিয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা আ’লীগ এর সভাপতি অধ্যাপক সন্তোষ কুমার দে এবং সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা টিটোর স্বাক্ষরিত লিখিত বক্তব্য উপস্থাপনা করেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সর্দার মো: শাহআলম। লিখিত বক্তব্যে তারা জানায়, ১৫ ই আগষ্ট জাতীয় শোক দিবসে এস এম শাহজাদা গ্র“পের সমর্থিত কতিপয় নেতৃবৃন্দ স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ সমন্ধে কটুক্তি, অশালীন বক্তব্য দিয়ে শোক র‌্যালি বের করে এবং কতিপয় স্বার্থান্বেষী ও বহিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে আ’লীগ কার্যালয়ে হামলা করার পরিকল্পনা করলে উপস্থিত আ’লীগের অঙ্গ সংগঠনের কর্মীরা বাধা প্রদান করলে সেখানে অনাকাঙ্খিত উদ্বুদ্ধ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। তাতে ছাত্রলীগের নেতা ইয়াসিন হাসান রুবেল, রাকিব খন্দকার, রাকিবুল হাসান ও একজন নিরীহ স্কুল ছাত্র শাওন এস এম শাহজাদা সমর্থিত কর্মীদের দ্বারা রক্তাক্ত জখম হয়। বর্তমানে তারা গলাচিপা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এছাড়া সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় আ’লীগকে ক্ষতিগ্রস্থ করার মিশন নিয়ে কতিপয় ব্যক্তিবর্গ পরিকল্পিতভাবে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করেছে। যার তীব্র নিন্দা জানাই। এছাড়া আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি হারুন অর রশিদ মিয়া, কালাম মো: ইছা, মানিক মিয়া, শাহিন শাহ, মেহেদী মাসুদ জুয়েল আওয়ামী লীগের কমিটির সাথে জড়িত থাকলেও সাংগঠনিক কোন কার্যক্রমে তারা সহযোগিতা না করে দলকে ক্ষতিগ্রস্থ করা এবং বিতর্কিত উচ্চ বিলাসী অনভিজ্ঞ ব্যক্তিদেরকে এমপি হওয়ার স্বপ্ন দেখায়ে দলকে দ্বিধা বিভক্ত করে তুলছে। এছাড়া এস এম শাহজাদা জীবনে কখনও আওয়ামী লীগ রাজনীতির কোন শাখায় রাজনীতি করে নাই এবং এস এম শাহজাদা প্রধান নিবাচন কমিশনার (সিইসি) ভাগ্নে বলে মনোনয়ন প্রত্যাশা করে। এস এম শাহজাদার সাথে, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সকল অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীদের সাথে কোন রকম সাংগঠনিক সম্পর্ক নেই। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে আ’লীগের প্রবীণ নেতা হাজী মু. শাহজাহান সহ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Tag :

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

গজারিয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান দুই প্রতিষ্ঠান কে অর্থদন্ড

গলাচিপায় আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলন

আপডেট টাইম ০৮:৩৯:২৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ অগাস্ট ২০১৮

সমীর দেবনাথ, গলাচিপা (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি :-
গতকাল গলাচিপা আ’লীগ অফিস কার্যালয়ে ১৫ ই আগষ্ট জাতীয় শোক দিবসে আওয়ামী সমর্থিত দু গ্র“পের সংঘর্ষের ঘটনায় উপজেলা আওয়ামী লীগ মঙ্গলবার রাত ৯ টায় গলাচিপা প্রেসক্লাবের সংবাদ কর্মীদের নিয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপজেলা আ’লীগ এর সভাপতি অধ্যাপক সন্তোষ কুমার দে এবং সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা টিটোর স্বাক্ষরিত লিখিত বক্তব্য উপস্থাপনা করেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সর্দার মো: শাহআলম। লিখিত বক্তব্যে তারা জানায়, ১৫ ই আগষ্ট জাতীয় শোক দিবসে এস এম শাহজাদা গ্র“পের সমর্থিত কতিপয় নেতৃবৃন্দ স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ সমন্ধে কটুক্তি, অশালীন বক্তব্য দিয়ে শোক র‌্যালি বের করে এবং কতিপয় স্বার্থান্বেষী ও বহিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে আ’লীগ কার্যালয়ে হামলা করার পরিকল্পনা করলে উপস্থিত আ’লীগের অঙ্গ সংগঠনের কর্মীরা বাধা প্রদান করলে সেখানে অনাকাঙ্খিত উদ্বুদ্ধ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। তাতে ছাত্রলীগের নেতা ইয়াসিন হাসান রুবেল, রাকিব খন্দকার, রাকিবুল হাসান ও একজন নিরীহ স্কুল ছাত্র শাওন এস এম শাহজাদা সমর্থিত কর্মীদের দ্বারা রক্তাক্ত জখম হয়। বর্তমানে তারা গলাচিপা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এছাড়া সংবাদ সম্মেলনে স্থানীয় আ’লীগকে ক্ষতিগ্রস্থ করার মিশন নিয়ে কতিপয় ব্যক্তিবর্গ পরিকল্পিতভাবে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করেছে। যার তীব্র নিন্দা জানাই। এছাড়া আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি হারুন অর রশিদ মিয়া, কালাম মো: ইছা, মানিক মিয়া, শাহিন শাহ, মেহেদী মাসুদ জুয়েল আওয়ামী লীগের কমিটির সাথে জড়িত থাকলেও সাংগঠনিক কোন কার্যক্রমে তারা সহযোগিতা না করে দলকে ক্ষতিগ্রস্থ করা এবং বিতর্কিত উচ্চ বিলাসী অনভিজ্ঞ ব্যক্তিদেরকে এমপি হওয়ার স্বপ্ন দেখায়ে দলকে দ্বিধা বিভক্ত করে তুলছে। এছাড়া এস এম শাহজাদা জীবনে কখনও আওয়ামী লীগ রাজনীতির কোন শাখায় রাজনীতি করে নাই এবং এস এম শাহজাদা প্রধান নিবাচন কমিশনার (সিইসি) ভাগ্নে বলে মনোনয়ন প্রত্যাশা করে। এস এম শাহজাদার সাথে, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সকল অঙ্গ সংগঠনের নেতা কর্মীদের সাথে কোন রকম সাংগঠনিক সম্পর্ক নেই। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে আ’লীগের প্রবীণ নেতা হাজী মু. শাহজাহান সহ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।