ঢাকা ০৮:১১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
গজারিয়ায় বাউশিয়া ইউনিয়নে মাসিক উন্নয়ন সভা অনুষ্ঠিত টাঙ্গাইল বন বিভাগের বিকল্প জীবিকা উন্নয়ন সম্পর্কিত প্রশিক্ষণ উদ্বোধন সিন্দুকছড়ি জোনের মাসিক মত বিনিময় সভা “বসুন্ধরা সিমেন্টের বার্ষিক বিক্রয় সম্মেলন-২০২৪ অনুষ্ঠিত “ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সাইনবোর্ডে আগুন জ্বালিয়ে অটোরিকশা চালকদের বিক্ষোভ “দেশীয় সফটওয়্যারে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের প্রত্যয়ে শপথ নিল বেসিসের নতুন কার্যনির্বাহী পরিষদ” রাজশাহী গোদাগাড়ী অঞ্চলে পুকুর সংস্কারের নামে প্রশাসনকে যেভাবে বোকা বানাচ্ছে অবৈধ পুকুর ব্যবসায়ীরা চট্টগ্রামে দ্বিতীয় ধাপে হাটহাজারী ও রাঙ্গুনিয়ায়-ফটিকছড়ি উপজেলায় ভোট আজ “অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্স ও কনকর্ড রিয়েল এস্টেটের সাথে চুক্তি সই” গজারিয়ায় সাংবাদিকের উপর হামলা, থানার সামনে সাংবাদিকদের অবস্থান কর্মসূচি

খুলনাকে হারিয়ে জয় পেল রাজশাহী

স্পোর্টস ডেস্ক :  বিপিএলের অষ্টম ম্যাচে খুলনা টাইটানসকে ৩ উইকেটে হারিয়েছে মিরাজের রাজশাহী। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১১৭ রান তুলে রাজশাহী কিংস। জবাবে ৭ বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় রাজশাহী কিংস।টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে পল স্টারলিং ও জুনায়েদ সিদ্দিকের ওপেনিং জুটিতে দারুণ শুরু হয়েছিল খুলনা টাইটানসের। কিন্তু তাদের বিদায়ের পরেই শুরু হয়েছে আসা-যাওয়ার খেলা। ৬৪ রানেই ৩ উইকেট হারিয়েছে খুলনা। ১৬ রান তুলে বিদায় নেন স্টারলিং। পরের ওভারে জুনায়েদ ২৩ রানে ইসুরু উদানার কাছে উইকেট হারান।

পাওয়ার প্লের ৬ ওভার খুলনা শেষ করে ২ উইকেটে ৪০ রানে। জহুরুল ইসলাম রানের ঝুলি ভারী করতে পারেননি। এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানকে ১ রানে বিদায় করেন আরাফাত সানি।

এরপর রানের চাকা ঘোরান ডেভিড মালান। তিনি ১৮ বলে একটি চার আর একটি ছক্কায় করেন ২২ রান। আরিফুল হক ১৬ বলে ১২ রান করে সাজঘরে ফেরেন। ডেভিড উইসি ১৪ বলে করেন ১৪ রান। তাইজুল ইসলাম ৮ রানে অপরাজিত থাকেন।

রাজশাহীর হয়ে ২৪ রান খরচায় ১ উইকেট তুলে নেন কায়েস আহমেদ। ১৮ রানের বিনিময়ে দুটি উইকেট নেন মোস্তাফিজ। ১৯ রান খরচায় একটি উইকেট পান আরাফাত সানি। ১৫ রান খরচায় তিনটি উইকেট তুলে নেন ইসুরু উদানা। ১ ওভারে ৬ রান দিয়ে একটি উইকেট নেন সৌম্য সরকার। মেহেদি হাসান মিরাজ ৩ ওভারে ১৯ রান খরচায় কোন উইকেট পাননি। মোহাম্মদ হাফিজ ১ ওভার বল করে ১৩ রান খরচায় কোন উইকেট পাননি।

১১৮ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় ওভারেই হাফিজকে হারায় রাজশাহী। ব্যক্তিগত ৬ রানে তাইজুলের বলে আরিফুলের ক্যাচ হয়ে ফেরেন হাফিজ। এরপর দলের রানের চাকা ঘুরাতে থাকেন মুমিনুল-মিরাজ। দলীয় ১০০ রানে মুমিনুলের বিদায়ে ভাঙ্গে এই জুটি। বিদায়ের আগে নিজের ঝুলিতে ৪৪ রান তুলেছেন মুমিনুল।

এরপর ১৮তম ওভারে দলীয় ১০৯ রানে জহির খানের ডেলিভারিতে ফিরলেন দলীয় অধিনায়ক মিরাজ। সাজঘরে ফেরার আগে ৬টি চার ও এক ছক্কায় ৫১ রান তুলেছেন তিনি।

এরপর নতুন দুই ব্যাটসম্যান সৌম্য ও ইভান্সের ব্যাটে ৭ বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় রাজশাহী কিংস।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

খুলনা টাইটানস: ২০ ওভারে ১১৭/৯ (জুনায়েদ ২৩, মালান ২২, স্টারলিং ১৬; উদানা ৩/১৫, মোস্তাফিজ ২/১৮)।

রাজশাহী কিংস: ১৮.৫ ওভারে ১১৮/৩ (মিরাজ ৫১, মুমিনুল ৪৪, সৌম্য ১১*, হাফিজ ৬)।

Tag :

জনপ্রিয় সংবাদ

গজারিয়ায় বাউশিয়া ইউনিয়নে মাসিক উন্নয়ন সভা অনুষ্ঠিত

খুলনাকে হারিয়ে জয় পেল রাজশাহী

আপডেট টাইম ০৩:১০:৪৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১০ জানুয়ারী ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক :  বিপিএলের অষ্টম ম্যাচে খুলনা টাইটানসকে ৩ উইকেটে হারিয়েছে মিরাজের রাজশাহী। টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১১৭ রান তুলে রাজশাহী কিংস। জবাবে ৭ বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় রাজশাহী কিংস।টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে পল স্টারলিং ও জুনায়েদ সিদ্দিকের ওপেনিং জুটিতে দারুণ শুরু হয়েছিল খুলনা টাইটানসের। কিন্তু তাদের বিদায়ের পরেই শুরু হয়েছে আসা-যাওয়ার খেলা। ৬৪ রানেই ৩ উইকেট হারিয়েছে খুলনা। ১৬ রান তুলে বিদায় নেন স্টারলিং। পরের ওভারে জুনায়েদ ২৩ রানে ইসুরু উদানার কাছে উইকেট হারান।

পাওয়ার প্লের ৬ ওভার খুলনা শেষ করে ২ উইকেটে ৪০ রানে। জহুরুল ইসলাম রানের ঝুলি ভারী করতে পারেননি। এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যানকে ১ রানে বিদায় করেন আরাফাত সানি।

এরপর রানের চাকা ঘোরান ডেভিড মালান। তিনি ১৮ বলে একটি চার আর একটি ছক্কায় করেন ২২ রান। আরিফুল হক ১৬ বলে ১২ রান করে সাজঘরে ফেরেন। ডেভিড উইসি ১৪ বলে করেন ১৪ রান। তাইজুল ইসলাম ৮ রানে অপরাজিত থাকেন।

রাজশাহীর হয়ে ২৪ রান খরচায় ১ উইকেট তুলে নেন কায়েস আহমেদ। ১৮ রানের বিনিময়ে দুটি উইকেট নেন মোস্তাফিজ। ১৯ রান খরচায় একটি উইকেট পান আরাফাত সানি। ১৫ রান খরচায় তিনটি উইকেট তুলে নেন ইসুরু উদানা। ১ ওভারে ৬ রান দিয়ে একটি উইকেট নেন সৌম্য সরকার। মেহেদি হাসান মিরাজ ৩ ওভারে ১৯ রান খরচায় কোন উইকেট পাননি। মোহাম্মদ হাফিজ ১ ওভার বল করে ১৩ রান খরচায় কোন উইকেট পাননি।

১১৮ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় ওভারেই হাফিজকে হারায় রাজশাহী। ব্যক্তিগত ৬ রানে তাইজুলের বলে আরিফুলের ক্যাচ হয়ে ফেরেন হাফিজ। এরপর দলের রানের চাকা ঘুরাতে থাকেন মুমিনুল-মিরাজ। দলীয় ১০০ রানে মুমিনুলের বিদায়ে ভাঙ্গে এই জুটি। বিদায়ের আগে নিজের ঝুলিতে ৪৪ রান তুলেছেন মুমিনুল।

এরপর ১৮তম ওভারে দলীয় ১০৯ রানে জহির খানের ডেলিভারিতে ফিরলেন দলীয় অধিনায়ক মিরাজ। সাজঘরে ফেরার আগে ৬টি চার ও এক ছক্কায় ৫১ রান তুলেছেন তিনি।

এরপর নতুন দুই ব্যাটসম্যান সৌম্য ও ইভান্সের ব্যাটে ৭ বল বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় রাজশাহী কিংস।

সংক্ষিপ্ত স্কোরঃ

খুলনা টাইটানস: ২০ ওভারে ১১৭/৯ (জুনায়েদ ২৩, মালান ২২, স্টারলিং ১৬; উদানা ৩/১৫, মোস্তাফিজ ২/১৮)।

রাজশাহী কিংস: ১৮.৫ ওভারে ১১৮/৩ (মিরাজ ৫১, মুমিনুল ৪৪, সৌম্য ১১*, হাফিজ ৬)।