ঢাকা ০৮:২২ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
গজারিয়ায় বাউশিয়া ইউনিয়নে মাসিক উন্নয়ন সভা অনুষ্ঠিত টাঙ্গাইল বন বিভাগের বিকল্প জীবিকা উন্নয়ন সম্পর্কিত প্রশিক্ষণ উদ্বোধন সিন্দুকছড়ি জোনের মাসিক মত বিনিময় সভা “বসুন্ধরা সিমেন্টের বার্ষিক বিক্রয় সম্মেলন-২০২৪ অনুষ্ঠিত “ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে সাইনবোর্ডে আগুন জ্বালিয়ে অটোরিকশা চালকদের বিক্ষোভ “দেশীয় সফটওয়্যারে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের প্রত্যয়ে শপথ নিল বেসিসের নতুন কার্যনির্বাহী পরিষদ” রাজশাহী গোদাগাড়ী অঞ্চলে পুকুর সংস্কারের নামে প্রশাসনকে যেভাবে বোকা বানাচ্ছে অবৈধ পুকুর ব্যবসায়ীরা চট্টগ্রামে দ্বিতীয় ধাপে হাটহাজারী ও রাঙ্গুনিয়ায়-ফটিকছড়ি উপজেলায় ভোট আজ “অ্যালায়েন্স ফাইন্যান্স ও কনকর্ড রিয়েল এস্টেটের সাথে চুক্তি সই” গজারিয়ায় সাংবাদিকের উপর হামলা, থানার সামনে সাংবাদিকদের অবস্থান কর্মসূচি

লিভারপুলকে হারিয়ে ম্যান সিটির দুর্দান্ত জয়

স্পোর্টস ডেস্ক :   লিভারপুলকে হারিয়ে ম্যান সিটির দুর্দান্ত জয় পেয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার ঘরের মাঠে উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে ইয়ুর্গেন ক্লপের লিভারপুলকে প্রিমিয়ার লিগে এবার মৌসুমে প্রথম হার উপহার দেয় সিটিজেনরা। আগুয়েরো ও সানের লক্ষ্যভেদে ২-১ ব্যবধানে লিভারপুলকে হারায় তারা।

ম্যাচের শুরু থেকে ইতিহাদ স্টেডিয়ামে আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে জমে ওঠে দুই শিরোপা প্রত্যাশী দলের লড়াই। মাঝমাঠ দখলে নিয়ে লিভারপুলের রক্ষনভাগে হানা দিলেও সুযোগ তৈরি করতে পারছিল না সিটি। তাদের এই ব্যর্থতায় ম্যাচের ১৭ মিনিটে ম্যাচের সবচেয়ে সহজ সুযোগটি পায় লিভারপুল।

প্রথমার্ধ যখন গোলশূন্যের দিকে এগুচ্ছে তখনই জ্বলে ওঠেন আগুয়েরো। ৪০ মিনিটে ডানপাশ থেকে বার্নার্দো সিলভার বাড়ানো ক্রসে বল পেয়ে বা পায়ের বুলেট গতির শটে প্রায় জিরো এঙ্গেল থেকে দুর্দান্ত এক গোল করে সিটিকে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে দেন সার্জিও আগুয়েরো। লিভারপুলের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ৭ ম্যাচের ৭টিতেই গোল করার অনন্য নজির স্থাপন করেন এই আর্জেন্টাইন।

১-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় গার্দিওলাবাহিনী। বিরতি থেকে ফিরে গোলের জন্য মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে লিভারপুল। কিন্তু ফ্রন্ট থ্রির মধ্যে বোঝাপড়ার অভাবে গোলের সুযোগ তৈরি করতে পারছিল না তারা।

৫৮ মিনিটে ২৫ গজ দূর থেকে দানিলোর বা পায়ের নেয়া দূরপাল্লার একটুর জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এর ঠিক ৬ মিনিট পরই সমতায় ফেরে লিভারপুল। রাইটব্যাক আলেক্সান্ডার আর্নল্ড এবং লেফটব্যাক রবার্টসনের দৃঢ়তায় অলরেডদের সমতায় ফেরান ফিরমিনো।

আর্নল্ড ডানপাশ উঁচু করে পাস দেন বাঁ পাশে থাকা রবার্টসনের কাছ। রবার্টসন সেটিক ডি বক্সে ক্রস করলে ফাঁকা গোলমুখে গোল করেন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার ফিরমিনো। শেষ দুই ম্যাচে এটি তার চতুর্থ গোল।

তবে নিজের দ্বিতীয় গোল পেতে বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি ম্যান সিটিকে। ৭২ মিনিটে মাঝমাঠ থেকে স্টার্লিংয়ের বাড়ানো ক্রসে বা পাশ থেকে জার্মান মিডফিল্ডার লেরয়ে সানের বা পায়ের শট বারে লেগে গোলমুখে প্রবেশ করলে উল্লাসে মেতে ওঠে পুরো ইতিহাদ। ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসের পর প্রথমবারের মতো প্রিমিয়ার লিগ ম্যাচে ২ গোল হজম করলো ইয়ুর্গেন ক্লপের দল।

৮২ মিনিটে গোলের সহজ সুযোগ পেয়েছিলেন আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার সার্জিও আগুয়েরো। এলিসনকে ডিবক্সের ভেতর একা পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ হন তিনি। এর ঠিক দু মিনিট পর মোহামেদ সালাহর বা পায়ের শট হাতের টোকায় কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন এডারসন।

Tag :

জনপ্রিয় সংবাদ

গজারিয়ায় বাউশিয়া ইউনিয়নে মাসিক উন্নয়ন সভা অনুষ্ঠিত

লিভারপুলকে হারিয়ে ম্যান সিটির দুর্দান্ত জয়

আপডেট টাইম ০১:১৫:৫৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৪ জানুয়ারী ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক :   লিভারপুলকে হারিয়ে ম্যান সিটির দুর্দান্ত জয় পেয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার ঘরের মাঠে উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচে ইয়ুর্গেন ক্লপের লিভারপুলকে প্রিমিয়ার লিগে এবার মৌসুমে প্রথম হার উপহার দেয় সিটিজেনরা। আগুয়েরো ও সানের লক্ষ্যভেদে ২-১ ব্যবধানে লিভারপুলকে হারায় তারা।

ম্যাচের শুরু থেকে ইতিহাদ স্টেডিয়ামে আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে জমে ওঠে দুই শিরোপা প্রত্যাশী দলের লড়াই। মাঝমাঠ দখলে নিয়ে লিভারপুলের রক্ষনভাগে হানা দিলেও সুযোগ তৈরি করতে পারছিল না সিটি। তাদের এই ব্যর্থতায় ম্যাচের ১৭ মিনিটে ম্যাচের সবচেয়ে সহজ সুযোগটি পায় লিভারপুল।

প্রথমার্ধ যখন গোলশূন্যের দিকে এগুচ্ছে তখনই জ্বলে ওঠেন আগুয়েরো। ৪০ মিনিটে ডানপাশ থেকে বার্নার্দো সিলভার বাড়ানো ক্রসে বল পেয়ে বা পায়ের বুলেট গতির শটে প্রায় জিরো এঙ্গেল থেকে দুর্দান্ত এক গোল করে সিটিকে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে দেন সার্জিও আগুয়েরো। লিভারপুলের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ৭ ম্যাচের ৭টিতেই গোল করার অনন্য নজির স্থাপন করেন এই আর্জেন্টাইন।

১-০ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় গার্দিওলাবাহিনী। বিরতি থেকে ফিরে গোলের জন্য মরিয়া হয়ে খেলতে থাকে লিভারপুল। কিন্তু ফ্রন্ট থ্রির মধ্যে বোঝাপড়ার অভাবে গোলের সুযোগ তৈরি করতে পারছিল না তারা।

৫৮ মিনিটে ২৫ গজ দূর থেকে দানিলোর বা পায়ের নেয়া দূরপাল্লার একটুর জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। এর ঠিক ৬ মিনিট পরই সমতায় ফেরে লিভারপুল। রাইটব্যাক আলেক্সান্ডার আর্নল্ড এবং লেফটব্যাক রবার্টসনের দৃঢ়তায় অলরেডদের সমতায় ফেরান ফিরমিনো।

আর্নল্ড ডানপাশ উঁচু করে পাস দেন বাঁ পাশে থাকা রবার্টসনের কাছ। রবার্টসন সেটিক ডি বক্সে ক্রস করলে ফাঁকা গোলমুখে গোল করেন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার ফিরমিনো। শেষ দুই ম্যাচে এটি তার চতুর্থ গোল।

তবে নিজের দ্বিতীয় গোল পেতে বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি ম্যান সিটিকে। ৭২ মিনিটে মাঝমাঠ থেকে স্টার্লিংয়ের বাড়ানো ক্রসে বা পাশ থেকে জার্মান মিডফিল্ডার লেরয়ে সানের বা পায়ের শট বারে লেগে গোলমুখে প্রবেশ করলে উল্লাসে মেতে ওঠে পুরো ইতিহাদ। ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসের পর প্রথমবারের মতো প্রিমিয়ার লিগ ম্যাচে ২ গোল হজম করলো ইয়ুর্গেন ক্লপের দল।

৮২ মিনিটে গোলের সহজ সুযোগ পেয়েছিলেন আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার সার্জিও আগুয়েরো। এলিসনকে ডিবক্সের ভেতর একা পেয়েও গোল করতে ব্যর্থ হন তিনি। এর ঠিক দু মিনিট পর মোহামেদ সালাহর বা পায়ের শট হাতের টোকায় কর্নারের বিনিময়ে রক্ষা করেন এডারসন।