ঢাকা ১০:৩৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
বাসারা উচ্চ বিদ্যালয় এর গোপনে ম্যানেজিং কমিটি গঠনের অভিযোগ। প্রশান্তি আবাসিকে রাস্তার উদ্বোধন করলেন মেয়র বাকেরগঞ্জের প্রথম শহীদ মিনারটি অযত্নে অবহেলায় ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে। সিলেট নগরীতে হঠাৎ করে বেড়েছে মশার উপদ্রব মেডিকেলে পড়ার স্বপ্ন পূরণে হাত বাড়ালেন বগুড়ার জেলা প্রশাসক মনপুরায় ইউপি সদস্যের আত্মীয়ের কাছ থেকে ভিজিএফের চাল জব্দ সুশৃঙ্খল সুরক্ষিত হাইওয়ে মহাসড়ক’ হাইওয়ে পুলিশের সেবা সপ্তাহ—২০২৪ হাইওয়ে পুলিশের সেবা সপ্তাহ—২০২৪ ’সুশৃঙ্খল সুরক্ষিত মহাসড়ক’ শিরোনামে টাঙ্গাইলে গৃহায়ন তহবিলের তালিকাভুক্ত এনজিও প্রতিনিধি ও সুবিধাভোগীদের নিয়ে মতবিনিময় অপ্রাপ্ত বয়সেই ৩ বিয়ে, সংবাদ করায় ৪ সাংবাদিকের নামে মামলা

কন্ঠশিল্পী জিএম রহমান রনি একজন স্বার্থপর বিদায়ী জেলা কালচারাল অফিসার

স্টাফ রিপোর্টার: নারায়ণগঞ্জ আর্টিস্ট ফাউন্ডেশনের আহবায়ক কন্ঠশিল্পী জিএম রহমান রনি একজন স্বার্থপর। নিজের স্বার্থ ছাড়া সে কিছুই ভাবতে পারেননা। কথাগুলো অত্যন্ত অক্ষেপের সঙ্গে বলেছেন নারায়ণগঞ্জের সদ্য বিদায়ী জেলা কালচারাল অফিসার সৈয়দা শাহিদা বেগম। শুক্রবার বেলা ১২টায় শহরের আমলাপাড়া গার্লস স্কুলের হলরুমে নারায়ণগঞ্জ জেলা শিল্পকলা একাডেমি’র প্রশিক্ষকদের উদ্যোগে আয়োজিত বিদায়ী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। সৈয়দা শাহিদা বেগম আরো বলেন,নারায়ণগঞ্জের মানুষ খুবই ভাল। তার অনেক আন্তরিক। আমার সঙ্গে শুধুমাত্র একজন শিল্পী ব্যাতিত সবার সঙ্গেই সুসম্পর্ক ছিল আর সেই একজনই হলে জিএম রহমান রনি। এই রনি একজন শিল্পী দাবি করলেও তার কাছ থেকে শিল্পীসূলভ কোন আচরনই আমি পাইনি। তিনি যখন শিল্পকলা একাডেমি’র গানের শিক্ষক হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন তখন তার কথামতো কাজ করতে হতো নইলে কোন না কোন সমস্যা করে রাখতো। একবার একটি জাতীয় প্রোগ্রামে তার সাউন্ড ভাড়া না নেয়ায় সে আমাদের সঙ্গে শত্রুর মতো আচরণ করেন। কি-বোর্ড লক করে রেখেছিলেন। ১ঘন্টা সময় পার হওয়ার পরও প্রোগ্রাম শুরু করতে পারিনি। উপায়ন্তর না পেয়ে আমজাদ ভাইকে কল দিয়ে তাকে এনে কি-বোর্ডের লক ছুটিয়ে তারপর গান শুরু হয়। আর সব সময় তার লোকজনদেরকেই গান গাওয়াতো অন্য শিল্পীদের কোন সুযোগই সে দিতে চাইতোনা। আর রনি থাকাকালে প্রতিদিনই আমাদের শিল্পকলায় ঝগড়া হতো। বিষয়টি এক পর্যায়ে ডিসি স্যার এবং ডিজি স্যারের নলেজে গেলে তারা মুহুর্তের মধ্যে রনির চুক্তি বাতিল করে দেন। তাকে বাদ দেয়ার পর কই এখনতো একদিনও ঝগড়া কিংবা মনোমালিন্যতা হয়না। বিদায় বেলা এসব কথা বলা ঠিকনা তারপরও সবাই আমাকে এতোদিন হয়তো ভুল বুঝতে পারেন তাই প্রকৃত বিষয়টা তুলে ধরলাম। যদিও এ সময় এ বিষয়গুলো তোলার কথা না তারপরও আক্ষেপটা চেপে রাখতে পারলামনা। তাছাড়া আমিতো এখন আর নারায়ণগঞ্জ জেলা শিল্পকলার অধীনে নেই,ঢাকা শিল্পকলায় আছি সুতরাং অতো হিসেব করে লাভ নেই। যা সত্যি তা বলতেই হবে। রনি একজন খুবই স্বার্থপর। বিদায়ী সংবর্ধণা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সদ্য যোগদানকারী জেলা কালচারাল অফিসার রুনা লায়লা,৭১’র ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি বাবু চন্দন শীল,বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের ঢাকা বিভাগীয় সাধারণ সম্পাদক উত্তম কুমার সাহা,নারায়ণগঞ্জ জেলা নাট্যকর্মী জোটের আহবায়ক বাহাউদ্দিন বুলু,সাধারণ সম্পাদক মীর আনোয়ার হোসেন,বন্দর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি’র সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ সেন্টু,নাট্য ব্যাক্তিত্ব এম আর হায়দার রানা,কন্ঠশিল্পী নাজমা সুলতানা,আমজাদ হোসেন,সানজিদা নাহার বেলাসহ অন্যান্য শিল্পী,কলাকূশলী ও বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ।

Tag :

জনপ্রিয় সংবাদ

বাসারা উচ্চ বিদ্যালয় এর গোপনে ম্যানেজিং কমিটি গঠনের অভিযোগ।

কন্ঠশিল্পী জিএম রহমান রনি একজন স্বার্থপর বিদায়ী জেলা কালচারাল অফিসার

আপডেট টাইম ০৫:৪৮:৪০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৭ জুলাই ২০১৯

স্টাফ রিপোর্টার: নারায়ণগঞ্জ আর্টিস্ট ফাউন্ডেশনের আহবায়ক কন্ঠশিল্পী জিএম রহমান রনি একজন স্বার্থপর। নিজের স্বার্থ ছাড়া সে কিছুই ভাবতে পারেননা। কথাগুলো অত্যন্ত অক্ষেপের সঙ্গে বলেছেন নারায়ণগঞ্জের সদ্য বিদায়ী জেলা কালচারাল অফিসার সৈয়দা শাহিদা বেগম। শুক্রবার বেলা ১২টায় শহরের আমলাপাড়া গার্লস স্কুলের হলরুমে নারায়ণগঞ্জ জেলা শিল্পকলা একাডেমি’র প্রশিক্ষকদের উদ্যোগে আয়োজিত বিদায়ী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। সৈয়দা শাহিদা বেগম আরো বলেন,নারায়ণগঞ্জের মানুষ খুবই ভাল। তার অনেক আন্তরিক। আমার সঙ্গে শুধুমাত্র একজন শিল্পী ব্যাতিত সবার সঙ্গেই সুসম্পর্ক ছিল আর সেই একজনই হলে জিএম রহমান রনি। এই রনি একজন শিল্পী দাবি করলেও তার কাছ থেকে শিল্পীসূলভ কোন আচরনই আমি পাইনি। তিনি যখন শিল্পকলা একাডেমি’র গানের শিক্ষক হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন তখন তার কথামতো কাজ করতে হতো নইলে কোন না কোন সমস্যা করে রাখতো। একবার একটি জাতীয় প্রোগ্রামে তার সাউন্ড ভাড়া না নেয়ায় সে আমাদের সঙ্গে শত্রুর মতো আচরণ করেন। কি-বোর্ড লক করে রেখেছিলেন। ১ঘন্টা সময় পার হওয়ার পরও প্রোগ্রাম শুরু করতে পারিনি। উপায়ন্তর না পেয়ে আমজাদ ভাইকে কল দিয়ে তাকে এনে কি-বোর্ডের লক ছুটিয়ে তারপর গান শুরু হয়। আর সব সময় তার লোকজনদেরকেই গান গাওয়াতো অন্য শিল্পীদের কোন সুযোগই সে দিতে চাইতোনা। আর রনি থাকাকালে প্রতিদিনই আমাদের শিল্পকলায় ঝগড়া হতো। বিষয়টি এক পর্যায়ে ডিসি স্যার এবং ডিজি স্যারের নলেজে গেলে তারা মুহুর্তের মধ্যে রনির চুক্তি বাতিল করে দেন। তাকে বাদ দেয়ার পর কই এখনতো একদিনও ঝগড়া কিংবা মনোমালিন্যতা হয়না। বিদায় বেলা এসব কথা বলা ঠিকনা তারপরও সবাই আমাকে এতোদিন হয়তো ভুল বুঝতে পারেন তাই প্রকৃত বিষয়টা তুলে ধরলাম। যদিও এ সময় এ বিষয়গুলো তোলার কথা না তারপরও আক্ষেপটা চেপে রাখতে পারলামনা। তাছাড়া আমিতো এখন আর নারায়ণগঞ্জ জেলা শিল্পকলার অধীনে নেই,ঢাকা শিল্পকলায় আছি সুতরাং অতো হিসেব করে লাভ নেই। যা সত্যি তা বলতেই হবে। রনি একজন খুবই স্বার্থপর। বিদায়ী সংবর্ধণা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সদ্য যোগদানকারী জেলা কালচারাল অফিসার রুনা লায়লা,৭১’র ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি নারায়ণগঞ্জ জেলা শাখার সভাপতি বাবু চন্দন শীল,বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের ঢাকা বিভাগীয় সাধারণ সম্পাদক উত্তম কুমার সাহা,নারায়ণগঞ্জ জেলা নাট্যকর্মী জোটের আহবায়ক বাহাউদ্দিন বুলু,সাধারণ সম্পাদক মীর আনোয়ার হোসেন,বন্দর উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি’র সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ সেন্টু,নাট্য ব্যাক্তিত্ব এম আর হায়দার রানা,কন্ঠশিল্পী নাজমা সুলতানা,আমজাদ হোসেন,সানজিদা নাহার বেলাসহ অন্যান্য শিল্পী,কলাকূশলী ও বিশিষ্ট ব্যাক্তিবর্গ।