ঢাকা ১০:১৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
দুমকিতে আন্তঃ উপজেলা ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। মুন্সীগঞ্জ পৌর নির্বাচনে আমিরুল ইসলাম এর নির্দেশে জগ মার্কার গনসংযোগ রাজধানীর বেইলি রোডে আগুন লাগার ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করেন। “গুলশানে বিশ্বমানের জুয়েলারী শোরুম চালু করছে ডায়মন্ড ওয়ার্ল্ড” ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চিটাগাং রোড সিমরাইল ট্রাক ও ইজিবাইকের সংঘর্ষে এক বৃদ্ধার মৃত্যু ও আহত ২ “সীমানা ছাড়িয়েআকিজ পাইপস অ্যান্ড ফিটিংস এখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে” ” অরক্ষিত ও অনিয়ন্ত্রিত ভবনের কারণে অনেক তাজা স্বপ্ন পুড়ে নিঃস্ব হলো অনেক পরিবার চসিক মেয়রের উদ্যোগে খেলার মাঠ পেল হালিশহরের শিশুরা বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডের নিহত সাংবাদিক বৃ‌ষ্টি খাত‌ুন যেভা‌বে হ‌লো অ‌ভিশ্রু‌তি শাস্ত্রী চিঠি লিখে পরিবারের কাছে দোয়া ও প্রমিকার’কে চির বিদায় জানিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

মেসি আবারও নিজের হ্যাটট্রিক বিসর্জন দিলেন

১৬ সংখ্যাটিকে উল্টো করলে ৬১। তৃতীয় মিনিটে পুরো ন্যু ক্যাম্পকে স্তব্ধ করে দেওয়ার প্রতিশোধ নেন মেসি ১৬তম মিনিটেই। ৬১তম মিনিটে ফের উয়েস্কার বুকে ছুরি চালান আর্জেন্টাইন এই তারকা। মেসি শুধু গোলই করেননি, সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন দুই গোল। সব মিলিয়ে ৯ বার গোলের সুযোগ তৈরি করেছেন মেসি। শুধু তা-ই নয়, যোগ হওয়া সময়ে লা লিগায় এই মৌসুমে প্রথম হ্যাটট্রিক করার সুযোগ পান মেসি। কিন্তু তিনি যে মেসি। ফুটবলের রাজপুত্র, বার্সেলোনার স্বপ্নসারথি। নিজে পেনাল্টি না নিয়ে বল তুলে দিয়েছেন সুয়ারেজের হাতে। এ নিয়ে কতবার যে নিজের হ্যাটট্রিক বিসর্জন দিলেন মেসি, তার কোনো ইয়ত্তা নেই। অথচ পেনাল্টিতে এই গোলের মাধ্যমে হ্যাটট্রিক হলেই লা লিগায় মেসি পেয়ে যেতেন তাঁর ৩১তম হ্যাটট্রিকটি।
৯২তম মিনিটে একাই বল নিয়ে উয়েস্কার ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন সুয়ারেজ। তাঁকে আটকাতে উয়েস্কার গোলরক্ষক ফাউল করে বসেন। রেফারিও পেনাল্টির বাঁশি বাজাতে দেরি করেননি। পেনাল্টি থেকে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন সুয়ারেজ। এর আগে আলবার পাস থেকে করেন প্রথম গোলটি।

কিন্তু এই ম্যাচের গল্পটা হতে পারত ভিন্ন। তৃতীয় মিনিটে হার্নান্দেসের গোলে সে ইঙ্গিতই দিচ্ছিল উয়েস্কা। কিন্তু বার্সেলোনার একজন মেসি আছেন। যিনি গোল করতে জানেন, করাতেও জানেন। অন্তত কালকের ম্যাচের রং দেখে এই কথায় দ্বিমত করবেন না কেউ নিশ্চয়। ম্যাচের ১৬তম মিনিটেই দলকে সমতায় ফেরান মেসি। রাকিটিচের সঙ্গে ওয়ান-টু পাসে উয়েস্কার জালে বল জড়ান পাঁচবারের ব্যালন ডি অর জেতা এই তারকা।
মেসি-সুয়ারেজদের সামলাতে গিয়ে গড়বড় করে ফেলে উয়েস্কা। ২৪তম মিনিটে নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে দেন হোর্হে পুলিদো। ৩৯ মিনিটে সুয়ারেজের গোলে স্কোরলাইন ৩-১-এ গিয়ে দাঁড়ায়। খানিক পরেই গোল ব্যবধান কমায় উয়েস্কা। ডি বক্সের বাইরে থেকে শট নিয়ে বার্সার জালে বল জড়ান অ্যালেক্স গায়ার (৩-২)।

দ্বিতীয়ার্ধে এসে ভালভার্দের শিষ্যদের সঙ্গে কোনোমতেই পেরে ওঠেনি উয়েস্কা। ৪৮ মিনিটে সুয়ারেজের পাস থেকে ডেম্বেলে গোল করেন। এরপর বার্সেলোনা আর থামেনি। উয়েস্কাকে নিয়ে ছেলেখেলা খেলেছেন মেসি-সুয়ারেজ-কুতিনহোরা। ৮-২ গোলের ব্যবধানে জয় নিয়ে লা লিগার পয়েন্ট তালিকায় রিয়াল মাদ্রিদকে পেছনে ফেলে শীর্ষে উঠে এল বার্সেলোনা।

Tag :

আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

দুমকিতে আন্তঃ উপজেলা ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান।

মেসি আবারও নিজের হ্যাটট্রিক বিসর্জন দিলেন

আপডেট টাইম ০৯:৪৩:২৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

১৬ সংখ্যাটিকে উল্টো করলে ৬১। তৃতীয় মিনিটে পুরো ন্যু ক্যাম্পকে স্তব্ধ করে দেওয়ার প্রতিশোধ নেন মেসি ১৬তম মিনিটেই। ৬১তম মিনিটে ফের উয়েস্কার বুকে ছুরি চালান আর্জেন্টাইন এই তারকা। মেসি শুধু গোলই করেননি, সতীর্থদের দিয়ে করিয়েছেন দুই গোল। সব মিলিয়ে ৯ বার গোলের সুযোগ তৈরি করেছেন মেসি। শুধু তা-ই নয়, যোগ হওয়া সময়ে লা লিগায় এই মৌসুমে প্রথম হ্যাটট্রিক করার সুযোগ পান মেসি। কিন্তু তিনি যে মেসি। ফুটবলের রাজপুত্র, বার্সেলোনার স্বপ্নসারথি। নিজে পেনাল্টি না নিয়ে বল তুলে দিয়েছেন সুয়ারেজের হাতে। এ নিয়ে কতবার যে নিজের হ্যাটট্রিক বিসর্জন দিলেন মেসি, তার কোনো ইয়ত্তা নেই। অথচ পেনাল্টিতে এই গোলের মাধ্যমে হ্যাটট্রিক হলেই লা লিগায় মেসি পেয়ে যেতেন তাঁর ৩১তম হ্যাটট্রিকটি।
৯২তম মিনিটে একাই বল নিয়ে উয়েস্কার ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন সুয়ারেজ। তাঁকে আটকাতে উয়েস্কার গোলরক্ষক ফাউল করে বসেন। রেফারিও পেনাল্টির বাঁশি বাজাতে দেরি করেননি। পেনাল্টি থেকে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন সুয়ারেজ। এর আগে আলবার পাস থেকে করেন প্রথম গোলটি।

কিন্তু এই ম্যাচের গল্পটা হতে পারত ভিন্ন। তৃতীয় মিনিটে হার্নান্দেসের গোলে সে ইঙ্গিতই দিচ্ছিল উয়েস্কা। কিন্তু বার্সেলোনার একজন মেসি আছেন। যিনি গোল করতে জানেন, করাতেও জানেন। অন্তত কালকের ম্যাচের রং দেখে এই কথায় দ্বিমত করবেন না কেউ নিশ্চয়। ম্যাচের ১৬তম মিনিটেই দলকে সমতায় ফেরান মেসি। রাকিটিচের সঙ্গে ওয়ান-টু পাসে উয়েস্কার জালে বল জড়ান পাঁচবারের ব্যালন ডি অর জেতা এই তারকা।
মেসি-সুয়ারেজদের সামলাতে গিয়ে গড়বড় করে ফেলে উয়েস্কা। ২৪তম মিনিটে নিজেদের জালেই বল জড়িয়ে দেন হোর্হে পুলিদো। ৩৯ মিনিটে সুয়ারেজের গোলে স্কোরলাইন ৩-১-এ গিয়ে দাঁড়ায়। খানিক পরেই গোল ব্যবধান কমায় উয়েস্কা। ডি বক্সের বাইরে থেকে শট নিয়ে বার্সার জালে বল জড়ান অ্যালেক্স গায়ার (৩-২)।

দ্বিতীয়ার্ধে এসে ভালভার্দের শিষ্যদের সঙ্গে কোনোমতেই পেরে ওঠেনি উয়েস্কা। ৪৮ মিনিটে সুয়ারেজের পাস থেকে ডেম্বেলে গোল করেন। এরপর বার্সেলোনা আর থামেনি। উয়েস্কাকে নিয়ে ছেলেখেলা খেলেছেন মেসি-সুয়ারেজ-কুতিনহোরা। ৮-২ গোলের ব্যবধানে জয় নিয়ে লা লিগার পয়েন্ট তালিকায় রিয়াল মাদ্রিদকে পেছনে ফেলে শীর্ষে উঠে এল বার্সেলোনা।