রবিবার, ০৯ মে ২০২১, ০১:৪৫ পূর্বাহ্ন

হরিনারায়নপুর ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদকের হাতে অারেক ব্যবসায়ী লাঞ্চিত

মোহাম্মদ রফিক কুষ্টিয়া : —————কুষ্টিয়া ইবি থানার হরিনারায়নপুর ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম চন্দনের হাতে “ভাই ভাই কসমেটিক্স” এর মালিক আক্কাস আলী কে মারধরের ঘটনায় থানায় অভিযোগ। জানা যায়, হরিনারায়নপুর বাজারের “ভাই ভাই কসমেটিক্স” দোকান গত মে মাসে ৩০ লাখ টাকার বিনিময়ে ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম চন্দনের মাধ্যমে ইবি থানার পূর্ব আব্দালপুর এলাকার মৃত ইলাহি শেখের ছেলে ফজর আলীর কাছে। এসময় ফজর আলী ৫০ হাজার টাকা সিকিউরিটি ৫ হাজার টাকা ভাড়া ৪ বছরের জন্য “ভাই ভাই কসমেটিক্স” এর মালিক আক্কাস আলী সাথে চুক্তি করে। কিন্তু কৌশলে ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম চন্দন ভাড়ার চুক্তিনামা হাতিয়ে নেয়। সেই চুক্তিনামা ফেরত চাইলে ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক চন্দন বিভিন্ন ভাবে ঘোরাতে থাকে। এদিকে গত ২৩শে আগস্ট রাতে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম চন্দন আক্কাস আলীর কে মারধর করে। ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক চন্দন এসময় আক্কাস আলীকে হুমকি দিয়ে দোকান ছাড়তে বলে। দোকান না ছাড়লে হত্যার হুমকি প্রদান করে বলে আক্কাস আলী জানান। আক্কাস আলী আরো জানান, আমি কিছু মানুষের কাছ থেকে চেক দিয়ে টাকা হাওলাদা নি। দোকান বিক্রয়ের পর ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক চন্দনের মাধ্যমে টাকা ফেরত দিয়ে দিলেও সেই চেক চন্দন আটকে রেখেছে। ব্যবসায়ী সমিতির নির্বাহী সদস্য সাইফুল ইসলাম বলেন, চুক্তিনামা ও চেক ব্যবসায়ী নেতাদের সাথে বৈঠক করে গত রবিবার ফেরত দেওয়ার কথা ছিল সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম চন্দনের। কিন্তু বৈঠক করে নি। চেক ও চুক্তিনামা ফেরত দেয়নি বলে জেনেছি। দোকান চুক্তিপত্রের সাক্ষী ব্যবসায়ী আতিয়ার ফকির বলেন, আমি চুক্তিপত্র পড়ে সাক্ষী হিসেবে স্বাক্ষর করি। এর আগে দোকান মালিক ফজর আলী ও ভাটিয়া আক্কাস আলী স্বাক্ষর করেন। এরপর ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম চন্দন স্বাক্ষর করার কথা বলে চুক্তিপত্র নিয়ে যায়। এদিকে হরিনারায়নপুর ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম চন্দনের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি মারধর করিনি। অবৈধ পন্থায় দোকান চুক্তিপত্র করে তাই আমি ওই চুক্তিপত্র দিনি। আক্কাস যেখানে ইচ্ছা সেখানে যাক আমি শেষ দেখে ছাড়বো। মারধর এর বিষয়ে ইবি থানার অফিসার ইনচার্জ (ভারপ্রাপ্ত) জহুরুল ইসলাম এর মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, অভিযোগ সত্যতা পেয়েছি। চন্দনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। এদিকে আক্কাস আলী বিচারের দাবিতে বিভিন্ন দ্বারে ঘুরছে।

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar