ঢাকা ০১:২৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
হানিমুনে এসে স্বামীকে পিটিয়ে উধাও নববধূঃ প্রেমিকসহ গ্রেফতার এক ইলিশের দাম ৫ হাজার কলাপাড়ায় গাঁজাসহ ৪ জন গ্রেফতার প্রবাসে কাজের সন্ধানে গিয়ে প্রবাসীর মৃত্যু , তিন মাসপর নিজ বাড়িতে দাফন পটুয়াখালী জেলা শাখার সোনালী অতীত ক্লাবের পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত দুর্গাপূজায় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রতি নির্দেশ আইজিপির অবৈধ দখল বাজদের দখলে বাকেরগঞ্জের পৌর শহরের বুক চিরে বয়ে যাওয়া শ্রীমন্ত নদীর দু পাশ প্রধানমন্ত্রীর ৭৬ তম জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছন সোনারগাঁয়ে কাঁচপুরে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্মী সভা ও সদস্য সংগ্রহ বাকেরগঞ্জে সোশাল ইসলামি ব্যাংকের ১৪৩ তম শাখা উদ্ভোধন

হত্যা মামলার বাদীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার চতুল ইউনিয়নের পোয়াইল গ্রামের আওয়ামী লীগ কর্মী কৃষক আকমল হত্যা মামলার বাদী ও নিহতের ছেলে মো. ইব্রাহিম শেখকে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হত্যাচেষ্টাসহ তাকে মারপিট ও সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয়ার অভিযোগে সোমবার (০৮.১১.২১) দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করেছে বাদী মো. ইব্রাহিম শেখ। এ বিষয়ে সে বোয়ালমারী থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ইব্রাহিম শেখ অভিযোগ করেন, সোমবার রাতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে সহযোগিতার জন্য চতুল ইউনিয়নের বাইখীর চৌরাস্তা পাশে গেলে আকমল হত্যা মামলার ১নং আসামি চতুল ইউপি চেয়ারম্যান শরীফ সেলিমুজ্জামান লিটুর ভাই বাবলু শরীফ, ওই মামলার আসামি পোয়াইল গ্রামের জামাল মাতুব্বর, ইখলাছ মোল্যা, জাবের মোল্যা, ইলিয়াস মোল্যা, রাজিব খান, তাজমুল শেখসহ অজ্ঞাত আরো ১০-১২ জনের একটি গ্রুপ তাকে (ইব্রাহিম) জোর করে কলার ধরে আটকে রাখে। বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন চালিয়ে স্বীকারোক্তিমূলক ভিডিও রেকর্ডিং বক্তব্য নেয় এবং সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয়ার চেষ্টা করে। তাকে দিয়ে উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম, পোয়াইল গ্রামের গাজী শুভ ও নাজিম উদ্দিন মেম্বারের নাম বলায়। বাবলু শরীফ তার গলা চেপে ধরে শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করে। প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আকমল হত্যা মামলা তুলে নিতে বলে। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৭টার দিকে বোয়ালমারী থানার এসআই আব্দুর রহমান ঘটনাস্থলে গিয়ে ইব্রাহিমকে উদ্ধার করে। ইব্রাহিম আরও অভিযোগ করেন, আগামী ইউপি নির্বাচনে আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যে এবং তাদের নীলনকশা বাস্তবায়নে আরও নৃশংস কোনো ঘটনা ঘটাতে পারে। ইব্রাহিমের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গাজী ফকরুজ্জামান শুভ। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন চতুল ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য নাজিম উদ্দিন, জাকির শেখ, সামচু শেখ প্রমুখ।
উল্লেখ্য, গত ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন পালন উপলক্ষে আলোচনা সভা নৈশ ভোজ শেষে কৃষক আকমল শেখকে দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে হত্যা করে। নিহত আকমল শেখের ছেলে ইব্রাহিম শেখ বাদী হয়ে চতুল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শরীফ সেলিমুজ্জামান লিটুকে ১নং আসামি করে মামলা দায়ের করেন।
এ ব্যাপারে বাবলু শরীফ বলেন, ইব্রাহিম বাইখীর চৌরাস্তা এলাকায় এসে আকমল হত্যা মামলার আসামিদের ব্যাপারে খোঁজখবর নেয়। এ সময় চেয়ারম্যান শরীফ সেলিমুজ্জামান লিটুর কর্মী-সমর্থকরা তার উপর চড়াও হয়ে তাকে আটক করে। আমি সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে থানাপুলিশের নিকট হস্তান্তর করি।
এসআই আব্দুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ইব্রাহিমকে উদ্ধার করে আনি।

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

হানিমুনে এসে স্বামীকে পিটিয়ে উধাও নববধূঃ প্রেমিকসহ গ্রেফতার

হত্যা মামলার বাদীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

আপডেট টাইম ০৯:১০:৪৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ নভেম্বর ২০২১

ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার চতুল ইউনিয়নের পোয়াইল গ্রামের আওয়ামী লীগ কর্মী কৃষক আকমল হত্যা মামলার বাদী ও নিহতের ছেলে মো. ইব্রাহিম শেখকে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হত্যাচেষ্টাসহ তাকে মারপিট ও সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয়ার অভিযোগে সোমবার (০৮.১১.২১) দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করেছে বাদী মো. ইব্রাহিম শেখ। এ বিষয়ে সে বোয়ালমারী থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ইব্রাহিম শেখ অভিযোগ করেন, সোমবার রাতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে সহযোগিতার জন্য চতুল ইউনিয়নের বাইখীর চৌরাস্তা পাশে গেলে আকমল হত্যা মামলার ১নং আসামি চতুল ইউপি চেয়ারম্যান শরীফ সেলিমুজ্জামান লিটুর ভাই বাবলু শরীফ, ওই মামলার আসামি পোয়াইল গ্রামের জামাল মাতুব্বর, ইখলাছ মোল্যা, জাবের মোল্যা, ইলিয়াস মোল্যা, রাজিব খান, তাজমুল শেখসহ অজ্ঞাত আরো ১০-১২ জনের একটি গ্রুপ তাকে (ইব্রাহিম) জোর করে কলার ধরে আটকে রাখে। বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন চালিয়ে স্বীকারোক্তিমূলক ভিডিও রেকর্ডিং বক্তব্য নেয় এবং সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয়ার চেষ্টা করে। তাকে দিয়ে উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক রফিকুল ইসলাম, পোয়াইল গ্রামের গাজী শুভ ও নাজিম উদ্দিন মেম্বারের নাম বলায়। বাবলু শরীফ তার গলা চেপে ধরে শ্বাসরোধে হত্যার চেষ্টা করে। প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আকমল হত্যা মামলা তুলে নিতে বলে। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৭টার দিকে বোয়ালমারী থানার এসআই আব্দুর রহমান ঘটনাস্থলে গিয়ে ইব্রাহিমকে উদ্ধার করে। ইব্রাহিম আরও অভিযোগ করেন, আগামী ইউপি নির্বাচনে আধিপত্য বিস্তারের লক্ষ্যে এবং তাদের নীলনকশা বাস্তবায়নে আরও নৃশংস কোনো ঘটনা ঘটাতে পারে। ইব্রাহিমের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন গাজী ফকরুজ্জামান শুভ। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন চতুল ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য নাজিম উদ্দিন, জাকির শেখ, সামচু শেখ প্রমুখ।
উল্লেখ্য, গত ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন পালন উপলক্ষে আলোচনা সভা নৈশ ভোজ শেষে কৃষক আকমল শেখকে দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে হত্যা করে। নিহত আকমল শেখের ছেলে ইব্রাহিম শেখ বাদী হয়ে চতুল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শরীফ সেলিমুজ্জামান লিটুকে ১নং আসামি করে মামলা দায়ের করেন।
এ ব্যাপারে বাবলু শরীফ বলেন, ইব্রাহিম বাইখীর চৌরাস্তা এলাকায় এসে আকমল হত্যা মামলার আসামিদের ব্যাপারে খোঁজখবর নেয়। এ সময় চেয়ারম্যান শরীফ সেলিমুজ্জামান লিটুর কর্মী-সমর্থকরা তার উপর চড়াও হয়ে তাকে আটক করে। আমি সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে থানাপুলিশের নিকট হস্তান্তর করি।
এসআই আব্দুর রহমান বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ইব্রাহিমকে উদ্ধার করে আনি।