বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:৪০ পূর্বাহ্ন

স্বজনপ্রীতি ভালো না, স্বীকার করলেন আলিয়া

তারকার সন্তান হলে বলিউডে নাম লেখানো খুব সহজ। স্বজনপ্রীতির কারণে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করা সহজ হয়ে যায় তাঁদের জন্য। এ বিষয় অনেক লম্বা সময় ধরে চলছে বিতর্ক। বলিউড এ বিষয় নিয়ে দুই ভাগে বিভক্ত। একদল বলে, বলিউডে স্বজনপ্রীতির কোনো অস্তিত্ব নেই। আরেক দলের ভাষ্য, বলিউডের এক নোংরা চর্চার নাম স্বজনপ্রীতি। অবশেষে বিষয়টি নিয়ে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করলেন নির্মাতা মহেশ ভাটের মেয়ে আলিয়া ভাট। বললেন, ‘স্বজনপ্রীতি (নেপোটিজম) বলিউডে আছে। বলিউডে যদি আমার কোনো স্বজন/আত্মীয় না থাকত, হয়তো আমিও এখানে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার ঝক্কিটা হাড়ে হাড়ে উপলব্ধি করতে পারতাম।’

আলিয়ার মতে, স্বজনপ্রীতির কারণে মেধাবীরা যদি সুযোগ না পান, তখন এটা সত্যিই দুঃখজনক। স্বজনপ্রীতি নিয়ে বলিউডে বিতর্কের শেষ নেই। এই বিতর্কে তারকার সন্তানেরা চলে গেছেন স্বজনপ্রীতির পক্ষে, তো অন্যরা গেছেন বিপরীত পক্ষে। কিন্তু আলিয়া একটু আলাদা। চিত্র পরিচালক মহেশ ভাট ও অভিনেত্রী সোনি রাজদানের মেয়ে হওয়া সত্ত্বেও আলিয়া বলেন, ‘এখন আমি বুঝি যে স্বজনপ্রীতির বিপক্ষে বলার কোনো প্রয়োজন নেই। কারণ, বলিউডে স্বজনপ্রীতি খুব চলে। এটা আসলেই আবেগি বিতর্ক। আমরা যাঁরা স্বজনপ্রীতির কারণে সিনেমায় কাজ করার সুযোগ পাচ্ছি, তাঁদের জন্য বিষয়টা তেমন কিছু নয়। কিন্তু যাঁরা এর কারণে অভিনয়ের সুযোগ পাচ্ছেন না, তাঁদের জন্য এটি মেনে নেওয়া বেশ কঠিন। আমি তারকার সন্তান না হয়ে বলিউডে বহিরাগত হলে আমার জন্যই নিজের মেধা প্রদর্শন করা অনেক কঠিন হতো।’

আলিয়া ভাট এই মুহূর্তে কাজ করছেন আয়ান মুখার্জির ‘ব্রহ্মাস্ত্র’ চলচ্চিত্রে। সঙ্গে আছেন রণবীর কাপুর। যদিও দুজনের কাজের থেকে এখন প্রেমের খবরই চাউর বলিউডপাড়ায়। আলিয়াকে দেখা যাবে শাহরুখ খান অভিনীত ‘জিরো’ ছবিতেও। রণবীর সিংয়ের সঙ্গেও ‘গলি বয়’ ছবিতে অভিনয় করবেন তিনি। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar