ঢাকা ০৬:৪০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
জোয়ার ও বৃষ্টির পানিতে শরনখোলা উপজেলার রায়েন্দা বাজার প্লাবিত। ভাঙ্গা – যশোর – বেনাপোল মহাসড়কটি চার লেনে উন্নীতকরন হলে দুরত্ব কমবেশি ৮৬ কি: মি: গজারিয়ায় ভবেরচর ইউনিয়নে জাতীয় শোক দিবস পালনে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত। মাদারীপুরের কালকিনিতে এক শিশুকে ধর্ষনের চেষ্টা,থানায় মামলা দায়ের টাঙ্গাইলে মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত রাঙ্গাবালীর জল কপাটের বেহাল দশা, দুশ্চিন্তায় কৃষকরা গজারিয়ার বালুয়াকান্দীতে অনুদানের চেক হস্তান্তর মতলব উত্তর উপজেলা আওয়ামী লীগের যৌথ বর্ধিত সভা ট্রাক উল্টে খাদে পড়ে গেল শরনখোলা উপজেলায় মতলব উত্তরে নতুন ভোটার ফরমে ইউপি সদস্যের স্বাক্ষর জাল করার অভিযোগ

সেচ্ছায় শ্রম দিয়ে চৌগাছায় রাস্তা সংস্কারণের কাজ করলেন ইউপি সদস্য আব্দুর রশিদ

(চৌগাছা,যশোর) যশোরের চৌগাছায় নিজস্ব উদ্যোগে রাস্তা সংস্কারণের কাজ করলেন চৌগাছা উপজেলার ধূলিয়ানী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের (ফতেপুর) ইউপি সদস্য আব্দুর রশিদ। রাস্তা সংস্করণের দেখা যায় ধূলিয়ানী থেকে ফতেপুর মহরের বাড়ির পূর্ব পর্যন্ত রাস্তার তিন জায়গায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ধূলিয়ানী থেকে চৌগাছা রোডের ফতেপুর-বাওড় অফিস পর্যন্ত রাস্তার ছিলো বেহাল অবস্থা। বছরের পর বছর জনগণ দূর্ভোগ পোহাতে থাকে। এই রাস্তায় চলতে পারছিলো না ভারি যানবাহন। সকল ভারি যানবাহন চলাচল করছিলো জাহাঙ্গীরপুর রাস্তা ঘুরে। উপরমহলের কোনো ভ্রুক্ষেপ ছিলো না এই বিষয়ে। অনেক বছর দূর্ভোগ পোহাবার পরেই রাস্তার কাজ শেষ হলো। শস্তি ফিরে পেলো এলাকার মানুষ।

এই একই রাস্তার ফতেপুর-ধূলিয়ানীর পথ ধরে মহরের বাড়ির সামনের মোড়ের কালভাট এবং ধূলিয়ানী রাস্তা বরাবর ছোট ব্রিজের দুই পাশে চলাচলের রাস্তাটি খুব খারাপ অবস্থা ধারণ করেছে। এমতাবস্থায় চলাচলে জনগণের দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। যাত্রী ও মালবাহী আলমসাধু, চার্জার ভ্যান, মটরসাইকেল, ইজিবাইক, সিএনজি চলাচলে ঝুকি বহন করতে হচ্ছে জনগণকে। ঝুকিপূর্ণ চলাচলে এলাকার মানুষের মাঝে নিয়মিত গুঞ্জন চলছে। কিন্তু এগিয়ে আসার মত কাউকে দেখা যায় না।

এমতাবস্থায় ধূলিয়ানী ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নং ওয়ার্ডের (ফতেপুর) ইউপি সদস্য আব্দুর রশিদের মাথায় আসে বিষয়টি। নড়েচড়ে বসে আব্দুর রশিদ। নিজের উদ্যোগে ভাটা থেকে একগাড়ি দূর্বল ইট এবং বালি এনে উক্ত রাস্তা সংস্করণের কাজ শুরু করে। সরজমিনে গেলে ইউপি সদস্য আব্দুর রশিদ বলেন, যানবাহন নিয়ে লোকজনের চলাচলে কষ্ট দেখে আমি চেয়ারম্যানের সাথে কথা বললে তিনি আমাকে আশ্বাস দেন তুমি কাজ করো আমি পরে দেখবানে কি করা যায়। চেয়ারম্যানের অনুমতি নিয়েই আমি নিজেস্ব উদ্যোগে কাজ শুরু করেছি। এক্ষেত্রে আমি নিজে, আমার পিতা আব্দুল কাদের, ভাইপো রিপন শ্রম দিচ্ছি। সাথে শ্রমিক নিয়েছি। সংস্করণের কাজে রীতিমত এলাকার লোকজন খুবই খুশি।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আতিয়ার রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

জোয়ার ও বৃষ্টির পানিতে শরনখোলা উপজেলার রায়েন্দা বাজার প্লাবিত।

সেচ্ছায় শ্রম দিয়ে চৌগাছায় রাস্তা সংস্কারণের কাজ করলেন ইউপি সদস্য আব্দুর রশিদ

আপডেট টাইম ০৬:১০:৫২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯

(চৌগাছা,যশোর) যশোরের চৌগাছায় নিজস্ব উদ্যোগে রাস্তা সংস্কারণের কাজ করলেন চৌগাছা উপজেলার ধূলিয়ানী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের (ফতেপুর) ইউপি সদস্য আব্দুর রশিদ। রাস্তা সংস্করণের দেখা যায় ধূলিয়ানী থেকে ফতেপুর মহরের বাড়ির পূর্ব পর্যন্ত রাস্তার তিন জায়গায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ধূলিয়ানী থেকে চৌগাছা রোডের ফতেপুর-বাওড় অফিস পর্যন্ত রাস্তার ছিলো বেহাল অবস্থা। বছরের পর বছর জনগণ দূর্ভোগ পোহাতে থাকে। এই রাস্তায় চলতে পারছিলো না ভারি যানবাহন। সকল ভারি যানবাহন চলাচল করছিলো জাহাঙ্গীরপুর রাস্তা ঘুরে। উপরমহলের কোনো ভ্রুক্ষেপ ছিলো না এই বিষয়ে। অনেক বছর দূর্ভোগ পোহাবার পরেই রাস্তার কাজ শেষ হলো। শস্তি ফিরে পেলো এলাকার মানুষ।

এই একই রাস্তার ফতেপুর-ধূলিয়ানীর পথ ধরে মহরের বাড়ির সামনের মোড়ের কালভাট এবং ধূলিয়ানী রাস্তা বরাবর ছোট ব্রিজের দুই পাশে চলাচলের রাস্তাটি খুব খারাপ অবস্থা ধারণ করেছে। এমতাবস্থায় চলাচলে জনগণের দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। যাত্রী ও মালবাহী আলমসাধু, চার্জার ভ্যান, মটরসাইকেল, ইজিবাইক, সিএনজি চলাচলে ঝুকি বহন করতে হচ্ছে জনগণকে। ঝুকিপূর্ণ চলাচলে এলাকার মানুষের মাঝে নিয়মিত গুঞ্জন চলছে। কিন্তু এগিয়ে আসার মত কাউকে দেখা যায় না।

এমতাবস্থায় ধূলিয়ানী ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নং ওয়ার্ডের (ফতেপুর) ইউপি সদস্য আব্দুর রশিদের মাথায় আসে বিষয়টি। নড়েচড়ে বসে আব্দুর রশিদ। নিজের উদ্যোগে ভাটা থেকে একগাড়ি দূর্বল ইট এবং বালি এনে উক্ত রাস্তা সংস্করণের কাজ শুরু করে। সরজমিনে গেলে ইউপি সদস্য আব্দুর রশিদ বলেন, যানবাহন নিয়ে লোকজনের চলাচলে কষ্ট দেখে আমি চেয়ারম্যানের সাথে কথা বললে তিনি আমাকে আশ্বাস দেন তুমি কাজ করো আমি পরে দেখবানে কি করা যায়। চেয়ারম্যানের অনুমতি নিয়েই আমি নিজেস্ব উদ্যোগে কাজ শুরু করেছি। এক্ষেত্রে আমি নিজে, আমার পিতা আব্দুল কাদের, ভাইপো রিপন শ্রম দিচ্ছি। সাথে শ্রমিক নিয়েছি। সংস্করণের কাজে রীতিমত এলাকার লোকজন খুবই খুশি।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আতিয়ার রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।