ঢাকা ০৩:১৪ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
রেকর্ড দরপতন মুদ্রার , ১ মার্কিন ডলার কিনতে হচ্ছে ২৫৫ পাকিস্তানি রুপিতে মাতৃত্বকালীন কার্ড প্রদানে ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগ,ইউপি সচিবসহ আটক দুই মতলব উত্তরে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত জাতীয় ইমাম সম্মেলন অনুষ্ঠিত কুমিল্লা জেলা ক্রিকেট কমিটির সভাপতির পদ থেকে থেকে পদত্যাগ করেছেন সাইফুল আলম রনি কুলাউড়ায় ফাহিম স্মৃতি দ্বৈত নক আউট ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্ট-২০২৩, শুভ উদ্বোধনী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে পরিত্যাক্ত স্কুল ভবন থেকে ৬৮ রাউন্ড এলএমজি গুলি উদ্ধার। ফরিদগঞ্জে যাত্রা শুরু করেছে এক্স স্টুডেন্ট এসোসিয়েশন অবিভাবক শূণ্যতায় অস্তিত্ব বিলিনের পথে ডাকাতিয়া রামপালে সুইডেনের দূতাবাসে পবিত্র কুরআন পোড়ানোর ঘটনায় প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত সারা দেশব্যাপী কেন্দ্রীয় ফারিয়ার ৭ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালনে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন

সিলেটকে হারিয়ে কুমিল্লার জয়

স্পোর্টস ডেস্ক :  জয় দিয়ে আসর শুরু করল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। শেষ ওভারে মীমাংসিত ম্যাচে সিলেট সিক্সার্সকে তারা হারিয়েছে ৪ উইকেটে। ১৯.৫ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় কুমিল্লা। ফলে ৪ উইকেটে জয় পায় স্মিথের দল।এদিন আগে ব্যাট করে কুমিল্লাকে ১২৭ রানের টার্গেট দেয় সিলেট সিলেট সিক্সার্স।

এর আগে, শুরুতেই দুই উইকেট হারিয়ে প্রাথমিক বিপর্যয়ে পড়ে কুমিল্লা। দলীয় ২১ রানের মাথায় ইমরুল কায়েস আউট হলে দ্বিতীয় উইকেট হারায় দলটি। রানের খাতা খুলার আগেই মোহাম্মদ ইরফানের বলে সরাসরি বোল্ড আউট হয়ে সাজঘরে চলে যান তিনি। এরপর ওপেন করতে আসা এলভিন লুইস ৯ বল খেলে ৫ রান করে আউট হলে তৃতীয় উইকেট হারায় দলটি।

বিপিএলের ষষ্ঠ আসরে শহিদ আফ্রিদি খেলছেন কুমিল্লার হয়ে। রবিবার নিজেদের প্রথম ম্যাচে সিলেটের বিপক্ষে মাঠে নামেন তিনি। এই ম্যাচে ব্যাটে ঝড় তুলেন আফ্রিদি। তার ব্যাটিং ণৈপুন্যে ৪ উইকেটে জয় পায় কুমিল্লা।

শেষ ২ বলে জয়ের জন্য কুমিল্লার দরকার ছিল ২ রান। অলক কাপালির বলে চার মেরে এক বল বাকি থাকতেই কুমিল্লাকে জয়ের স্বাদ দেন আফ্রিদি।

এর আগে,টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা সিলেট ৮ উইকেটে ১২৭ রান করে। মাঝারি মানের লক্ষ্যটা কুমিল্লা টপকে যায় ১৯ ওভার ৫ বলে। ৬ উইকেটে ১৩০ রান তোলে সাবেক চ্যাম্পিয়নরা।

সিলেটের হয়ে দারুণ ব্যাটিং করেন নিকোলাস পুরান। ছয়ে নেমে ২৬ বলে ৪১ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন সিলেটের এই ব্যাটসম্যান।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা সিলেট ৫৬ রানের মধ্য ৫ উইকেট হারায়। লিটন দাস, ডেভিড ওয়ানার, আফিফ, সাব্বিরদের মতো ব্যাটসম্যানরা নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। তবে পুরানের ব্যাটিং ণৈপুন্যে স্বস্তি নিয়ে মাঠ ছাড়ে!

অলক কাপালি তাকে কিছুটা সঙ্গত দিয়েছে। ২০ বলে ১৯ রান করেন তিনি। পুরানের ২৬ বলের ইনিংসটি সাঁজানো ছিল পাঁচটি চার ও দুইটি ছক্কায়। কুমিল্লার হয়ে দুইটি করে উইকেট পান মেহেদী, শহিদ ও সাইফ উদ্দিন।

১২৮ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নামা কুমিল্লার হয়ে লুইস, ইমরুল, বিজয়, শোয়েব মালিক, স্মিথরা ব্যাটে আলো ছড়াতে পারেননি। তামিম ৩৪ বলে ৩৫ রান করেন। দলকে জয়ী করে মাঠ ছাড়েন আফ্রিদি। ২৫ বলে ৩৯ রানের ঝড়ো ইনিংসটি তিনি সাঁজান ৫টি চার ও ২টি ছক্কায়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
সিলেট সিক্সার্স ১২৮/৮ (২০.০) আফিফ ১৯, পুরান ৪১; মেহেদী হাসান ২৪/২, আফ্রিদি ২৯/১, সাইফুদ্দীন ১৩/২, শহীদ ২২/২।
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স: ১৩০/৬ (১৯.৫) তামিম  ৩৫, স্মিথ ১৬, আফ্রিদি , সাইফুদ্দীন ; ইরফান ১৯/১, আল আমিন ২৭/২ লামিচানে ১৬/২।
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ন্স ৪ উইকেটে জয়ী। ম্যাচসেরা শহীদ আফ্রিদি।
Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

রেকর্ড দরপতন মুদ্রার , ১ মার্কিন ডলার কিনতে হচ্ছে ২৫৫ পাকিস্তানি রুপিতে

সিলেটকে হারিয়ে কুমিল্লার জয়

আপডেট টাইম ১০:৪২:৫৮ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৬ জানুয়ারী ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক :  জয় দিয়ে আসর শুরু করল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। শেষ ওভারে মীমাংসিত ম্যাচে সিলেট সিক্সার্সকে তারা হারিয়েছে ৪ উইকেটে। ১৯.৫ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে যায় কুমিল্লা। ফলে ৪ উইকেটে জয় পায় স্মিথের দল।এদিন আগে ব্যাট করে কুমিল্লাকে ১২৭ রানের টার্গেট দেয় সিলেট সিলেট সিক্সার্স।

এর আগে, শুরুতেই দুই উইকেট হারিয়ে প্রাথমিক বিপর্যয়ে পড়ে কুমিল্লা। দলীয় ২১ রানের মাথায় ইমরুল কায়েস আউট হলে দ্বিতীয় উইকেট হারায় দলটি। রানের খাতা খুলার আগেই মোহাম্মদ ইরফানের বলে সরাসরি বোল্ড আউট হয়ে সাজঘরে চলে যান তিনি। এরপর ওপেন করতে আসা এলভিন লুইস ৯ বল খেলে ৫ রান করে আউট হলে তৃতীয় উইকেট হারায় দলটি।

বিপিএলের ষষ্ঠ আসরে শহিদ আফ্রিদি খেলছেন কুমিল্লার হয়ে। রবিবার নিজেদের প্রথম ম্যাচে সিলেটের বিপক্ষে মাঠে নামেন তিনি। এই ম্যাচে ব্যাটে ঝড় তুলেন আফ্রিদি। তার ব্যাটিং ণৈপুন্যে ৪ উইকেটে জয় পায় কুমিল্লা।

শেষ ২ বলে জয়ের জন্য কুমিল্লার দরকার ছিল ২ রান। অলক কাপালির বলে চার মেরে এক বল বাকি থাকতেই কুমিল্লাকে জয়ের স্বাদ দেন আফ্রিদি।

এর আগে,টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা সিলেট ৮ উইকেটে ১২৭ রান করে। মাঝারি মানের লক্ষ্যটা কুমিল্লা টপকে যায় ১৯ ওভার ৫ বলে। ৬ উইকেটে ১৩০ রান তোলে সাবেক চ্যাম্পিয়নরা।

সিলেটের হয়ে দারুণ ব্যাটিং করেন নিকোলাস পুরান। ছয়ে নেমে ২৬ বলে ৪১ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলেন সিলেটের এই ব্যাটসম্যান।

টস হেরে ব্যাটিংয়ে নামা সিলেট ৫৬ রানের মধ্য ৫ উইকেট হারায়। লিটন দাস, ডেভিড ওয়ানার, আফিফ, সাব্বিরদের মতো ব্যাটসম্যানরা নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। তবে পুরানের ব্যাটিং ণৈপুন্যে স্বস্তি নিয়ে মাঠ ছাড়ে!

অলক কাপালি তাকে কিছুটা সঙ্গত দিয়েছে। ২০ বলে ১৯ রান করেন তিনি। পুরানের ২৬ বলের ইনিংসটি সাঁজানো ছিল পাঁচটি চার ও দুইটি ছক্কায়। কুমিল্লার হয়ে দুইটি করে উইকেট পান মেহেদী, শহিদ ও সাইফ উদ্দিন।

১২৮ রানের জয়ের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নামা কুমিল্লার হয়ে লুইস, ইমরুল, বিজয়, শোয়েব মালিক, স্মিথরা ব্যাটে আলো ছড়াতে পারেননি। তামিম ৩৪ বলে ৩৫ রান করেন। দলকে জয়ী করে মাঠ ছাড়েন আফ্রিদি। ২৫ বলে ৩৯ রানের ঝড়ো ইনিংসটি তিনি সাঁজান ৫টি চার ও ২টি ছক্কায়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
সিলেট সিক্সার্স ১২৮/৮ (২০.০) আফিফ ১৯, পুরান ৪১; মেহেদী হাসান ২৪/২, আফ্রিদি ২৯/১, সাইফুদ্দীন ১৩/২, শহীদ ২২/২।
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স: ১৩০/৬ (১৯.৫) তামিম  ৩৫, স্মিথ ১৬, আফ্রিদি , সাইফুদ্দীন ; ইরফান ১৯/১, আল আমিন ২৭/২ লামিচানে ১৬/২।
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ন্স ৪ উইকেটে জয়ী। ম্যাচসেরা শহীদ আফ্রিদি।