ঢাকা ০৫:২৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
সারা দেশব্যাপী কেন্দ্রীয় ফারিয়ার ৭ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালনে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন রেকর্ড গড়ল শাহরুখের ‘পাঠান’ বিদেশেও অপ্রতিরোধ্য সীমান্তে হত্যা এবং মাদকদ্রব্যসহ সকল চোরাচালান বন্ধের দাবিতে সমাবেশ ও কাঁটাতার মিছিল মসজিদে নামাজের মধ্যদিয়ে মুসল্লিদের মাঝে হৃদ্যতা বাড়ে : আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দিন শখ থেকে উদ্যোক্তা, কোয়েল পাখির ডিম বিক্রি করে মাসে আয় আড়াই লাখ। নড়াইল-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মুফতি শহিদুল ইসলামের ইন্তেকাল বাউফলে সরকারি চাল বাজারজাত করার সময় বাবা-ছেলে আটক। থানায় আগত সেবা প্রত্যাশীদের যথাযথ আইনি সহায়তা প্রদান করুন: আইজিপি জননেত্রী শেখ হাসিনার আমলে বাংলাদেশের মানুষ শান্তিতে বসবাস করতে পারেঃ” আব্দুস সালাম মূর্শেদী এমপি” কলাপাড়ার মহিপুরে ৫০ মণ জাটকাসহ ট্রলার জব্দ।

সর্দি-কাশি দূর করার ঘরোয়া উপায়

ফাইল ছবি

মাতৃভূমির খবর ডেস্ক :  প্রকৃতিতে জাঁকিয়ে বসছে শীত। আর শীতের শুরুতেই সর্দি-কাশি, বুকে কফ বা শ্লেষ্মা জমার সমস্যা দেখা যায়। এই সমস্যাকে আপাত দৃষ্টিতে সাধারণ একটি সমস্যা বলে মনে হলেও সময় মতো এর চিকিৎসা করা না গেলে এটি শ্বাসযন্ত্রের ক্ষতি করতে পারে। তাই এই সমস্যায় শুরু থেকেই নিতে হবে ব্যবস্থা। আর আপনি চাইলেই চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার আগেই ঘরোয়া উপায়ে এই সমস্যা কমানোর ব্যবস্থা নিতে পারেন। প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করে দেখতে পারেন এই সমস্যা দূর করতে।ঘরোয়া উপায়ে এসব সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। জেনে নিন সর্দি-কাশি দূর করার কিছু ঘরোয়া উপায়:

দুধ ও হলুদ : দুধ যে কোনো বয়সী মানুষের জন্য উপকারী। এক গ্লাস গরম দুধের মধ্যে ১ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে পান করুন। হলুদে অ্যান্টিভাইরাল ও অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল গুণ রয়েছে, যা সহজেই সংক্রমণ রোধ করে। ফলে সর্দি-কাশির কষ্ট থেকেও রেহাই পাওয়া সম্ভব হয়।

আদা চা : সর্দি-কাশি দূর করতে আদা চা উপকারী। আদা কুচি করে গরম পানি বা গরম চায়ে দিয়ে পান করুন। এতে সর্দি-কাশি একেবারেই দূর হবে।

লেবু ও মধু : লেবু ও মধুর মিশ্রণটিও আদা চায়ের মতোই উপকারী। এক গ্লাস গরম পানিতে দুই চা চামচ মধু ও এক চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে পান করলে সর্দি-কাশি দূর হবে।

তুলসীপাতা ও আদা : এক কাপ পানিতে কয়েকটা তুলসীপাতা ও আদা কুচি ফেলে ফোটাতে থাকুন। পানি ফুটে অর্ধেক হয়ে এলে তা নামিয়ে রাখুন। এই পানি দিনে অন্তত দুবার পান করলে সর্দি-কাশি কমে যাবে।

রসুন : এতে রয়েছে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা সর্দি-কাশি দূর করতে ভূমিকা রাখে। এ ছাড়া এতে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়া, অ্যান্টিভাইরাল ও অ্যান্টিফাংগাল উপাদান রয়েছে, যা সংক্রমণ রুখতে পারে। চাইলে চার-পাঁচ কোয়া রসুন ঘিয়ে নেড়ে নিয়ে গরম থাকতে থাকতে খেয়ে নিন। ঘিয়ে ভাজা রসুন স্যুপের সঙ্গে মিশিয়ে খেলেও আরাম পাবেন।

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

সারা দেশব্যাপী কেন্দ্রীয় ফারিয়ার ৭ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালনে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন

সর্দি-কাশি দূর করার ঘরোয়া উপায়

আপডেট টাইম ০২:৪২:৩৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৮

মাতৃভূমির খবর ডেস্ক :  প্রকৃতিতে জাঁকিয়ে বসছে শীত। আর শীতের শুরুতেই সর্দি-কাশি, বুকে কফ বা শ্লেষ্মা জমার সমস্যা দেখা যায়। এই সমস্যাকে আপাত দৃষ্টিতে সাধারণ একটি সমস্যা বলে মনে হলেও সময় মতো এর চিকিৎসা করা না গেলে এটি শ্বাসযন্ত্রের ক্ষতি করতে পারে। তাই এই সমস্যায় শুরু থেকেই নিতে হবে ব্যবস্থা। আর আপনি চাইলেই চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার আগেই ঘরোয়া উপায়ে এই সমস্যা কমানোর ব্যবস্থা নিতে পারেন। প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করে দেখতে পারেন এই সমস্যা দূর করতে।ঘরোয়া উপায়ে এসব সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। জেনে নিন সর্দি-কাশি দূর করার কিছু ঘরোয়া উপায়:

দুধ ও হলুদ : দুধ যে কোনো বয়সী মানুষের জন্য উপকারী। এক গ্লাস গরম দুধের মধ্যে ১ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে পান করুন। হলুদে অ্যান্টিভাইরাল ও অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল গুণ রয়েছে, যা সহজেই সংক্রমণ রোধ করে। ফলে সর্দি-কাশির কষ্ট থেকেও রেহাই পাওয়া সম্ভব হয়।

আদা চা : সর্দি-কাশি দূর করতে আদা চা উপকারী। আদা কুচি করে গরম পানি বা গরম চায়ে দিয়ে পান করুন। এতে সর্দি-কাশি একেবারেই দূর হবে।

লেবু ও মধু : লেবু ও মধুর মিশ্রণটিও আদা চায়ের মতোই উপকারী। এক গ্লাস গরম পানিতে দুই চা চামচ মধু ও এক চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে পান করলে সর্দি-কাশি দূর হবে।

তুলসীপাতা ও আদা : এক কাপ পানিতে কয়েকটা তুলসীপাতা ও আদা কুচি ফেলে ফোটাতে থাকুন। পানি ফুটে অর্ধেক হয়ে এলে তা নামিয়ে রাখুন। এই পানি দিনে অন্তত দুবার পান করলে সর্দি-কাশি কমে যাবে।

রসুন : এতে রয়েছে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা সর্দি-কাশি দূর করতে ভূমিকা রাখে। এ ছাড়া এতে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়া, অ্যান্টিভাইরাল ও অ্যান্টিফাংগাল উপাদান রয়েছে, যা সংক্রমণ রুখতে পারে। চাইলে চার-পাঁচ কোয়া রসুন ঘিয়ে নেড়ে নিয়ে গরম থাকতে থাকতে খেয়ে নিন। ঘিয়ে ভাজা রসুন স্যুপের সঙ্গে মিশিয়ে খেলেও আরাম পাবেন।