ঢাকা ০৩:৫৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
কুমিল্লার দেবিদ্বার থানার পুলিশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক অপপ্রচারের অভিযোগ কুমিল্লার মুরাদনগরে চাঞ্চল্যকর সজিব হত্যার এক নাম্বার আসামি সাকিব আটক। চাক্তাই-খাতুনগঞ্জের চিহ্নিত চাঁদাবাজ ইউনুছ কেরানিকে গ্রেফতারের দাবিতে ট্রাক পরিবহণ শ্রমিকদের ৪৮ ঘন্টার আল্টিমেটাম ছেংগারচর পৌর প্রশাসকের সাথে ব্যবসায়ী ও বণিক সমিতির সাথে মতবিনিময় মতলব উত্তরের রাঢ়ীকান্দি দারুচ্ছুন্নাত দাখিল মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত দেশীয় শিল্প নিয়ে চক্রান্তের প্রতিবাদে সিরাজগঞ্জে বিড়ি শ্রমিক সমাবেশ বসুন্ধরা ডিজিটাল এ নতুন নাটক “মিডল ক্লাস লাভ স্টোরি” পটুয়াখালীতে হাসপাতালের শত শত খাবার স্যালাইন ডাষ্টবিনে,কুড়িয়ে নিলো আম জনতা। অটিস্টিক শিশুদের ডায়েট নিয়ে পুষ্টিবিদ সামিরা সুকৃতি “ সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মহামান্য শেখ খলীফা বিন জায়েদ আল নাহিয়ান এর আত্মার মাগফেরাত কামনায় শোকসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

শীতের অসুখ থেকে বাঁচার উপায়

ফাইল ছবি

লাইফস্টাইল ডেস্ক :   শুষ্ক আবহাওয়ার কারণে শীতকালে আমাদের অসুখ-বিসুখের প্রকোপ বেড়ে যায়। তাই পর্যাপ্ত শীতের পোশাক পরার পাশাপাশি শীতের অসুখ থেকে বাঁচতে প্রয়োজন বাড়তি সতর্কতা। কিছু বিষয় মেনে চললেই শীতকালের অসুখ-বিসুখকে উপেক্ষা করা সম্ভব। সুষম খাদ্য, নিয়মিত শরীরচর্চা, মানসিক কষ্ট লাঘব, শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। কাজেই সব দিক থেকে খেয়াল রেখে জীবন যাপন করলে আমরা ছোটখাটো অনেক অসুখ থেকে পরিত্রাণ পেতে পারি খুব সহজেই। চলুন জেনে নিই কী আমাদের করণীয়-

সর্দি-কাশি ও ভাইরাস জ্বর :  রাইনো ভাইরাস নামক এক ধরনের ভাইরাস হলো সর্দিকাশি ও ভাইরাসজনিত জ্বরের জন্য দায়ী। এই অসুখ সারাতে আদা চা, তুলসী পাতার রস, লেবু, মধু খুব ভালো কাজ করে। তবে ডাক্তারের সহযোগিতা নেয়া ছাড়া কোন ওষুধ খাওয়াই উচিত নয়।টনসিলের প্রদাহ :  চিকিৎসকের পরামর্শে অ্যান্টিবায়োটিক, ব্যথার জন্য ব্যথানাশক ঔষধ, অ্যালার্জির কারণে অ্যান্টিহিস্টামিন গ্রুপের ওষুধ খেতে হবে। গরম পানিতে লবণ মিশিয়ে গড়গড়া করতে হবে। গলায় গরম কাপড় জড়িয়ে রাখা ভালো।

নিউমোনিয়া :  ডাক্তারের নির্দেশনামাতে বয়স এবং ওজন অনুসারে শ্বাসকষ্ট, বুক দেবে যাওয়া, কাশি, অ্যালার্জি হলে অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ নিতে হবে।

মুখে ঘা:  খাদ্যে ভিটামিন বি-টু ও আয়রনের অভাবে মুখে ঘা হয়। প্রচুর শাক-সবজি, ফল খাওয়া উচিত। এই অসুখের জন্য অনেক সময় ট্যাবলেট ও ড্রপ ব্যবহার করা যায়।

হাতা-পা ফাটা:  অতিরিক্ত ধুলাবালি থেকে দূরে থাকতে হবে। পিওর ভ্যাজলিন, গ্লিসারিন ব্যবহার অত্যন্ত কার্যকর।

হাঁপানি:  গুরুতর সমস্যায় চিকিৎসকের পরামর্শে অবস্থার ধরন বুঝে ব্যবস্থা নিতে হবে। রোগীকে সব সময় মাথার দিক উঁচুতে রেখে আলো বাতাস চলাচল করে এমন ঘরে রাখতে হবে। ঠাণ্ডা, ধুলাবালি, অ্যালার্জি থেকে সাবধান থাকতে হবে।

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

কুমিল্লার দেবিদ্বার থানার পুলিশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক অপপ্রচারের অভিযোগ

শীতের অসুখ থেকে বাঁচার উপায়

আপডেট টাইম ০২:৩৮:১৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮

লাইফস্টাইল ডেস্ক :   শুষ্ক আবহাওয়ার কারণে শীতকালে আমাদের অসুখ-বিসুখের প্রকোপ বেড়ে যায়। তাই পর্যাপ্ত শীতের পোশাক পরার পাশাপাশি শীতের অসুখ থেকে বাঁচতে প্রয়োজন বাড়তি সতর্কতা। কিছু বিষয় মেনে চললেই শীতকালের অসুখ-বিসুখকে উপেক্ষা করা সম্ভব। সুষম খাদ্য, নিয়মিত শরীরচর্চা, মানসিক কষ্ট লাঘব, শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। কাজেই সব দিক থেকে খেয়াল রেখে জীবন যাপন করলে আমরা ছোটখাটো অনেক অসুখ থেকে পরিত্রাণ পেতে পারি খুব সহজেই। চলুন জেনে নিই কী আমাদের করণীয়-

সর্দি-কাশি ও ভাইরাস জ্বর :  রাইনো ভাইরাস নামক এক ধরনের ভাইরাস হলো সর্দিকাশি ও ভাইরাসজনিত জ্বরের জন্য দায়ী। এই অসুখ সারাতে আদা চা, তুলসী পাতার রস, লেবু, মধু খুব ভালো কাজ করে। তবে ডাক্তারের সহযোগিতা নেয়া ছাড়া কোন ওষুধ খাওয়াই উচিত নয়।টনসিলের প্রদাহ :  চিকিৎসকের পরামর্শে অ্যান্টিবায়োটিক, ব্যথার জন্য ব্যথানাশক ঔষধ, অ্যালার্জির কারণে অ্যান্টিহিস্টামিন গ্রুপের ওষুধ খেতে হবে। গরম পানিতে লবণ মিশিয়ে গড়গড়া করতে হবে। গলায় গরম কাপড় জড়িয়ে রাখা ভালো।

নিউমোনিয়া :  ডাক্তারের নির্দেশনামাতে বয়স এবং ওজন অনুসারে শ্বাসকষ্ট, বুক দেবে যাওয়া, কাশি, অ্যালার্জি হলে অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ নিতে হবে।

মুখে ঘা:  খাদ্যে ভিটামিন বি-টু ও আয়রনের অভাবে মুখে ঘা হয়। প্রচুর শাক-সবজি, ফল খাওয়া উচিত। এই অসুখের জন্য অনেক সময় ট্যাবলেট ও ড্রপ ব্যবহার করা যায়।

হাতা-পা ফাটা:  অতিরিক্ত ধুলাবালি থেকে দূরে থাকতে হবে। পিওর ভ্যাজলিন, গ্লিসারিন ব্যবহার অত্যন্ত কার্যকর।

হাঁপানি:  গুরুতর সমস্যায় চিকিৎসকের পরামর্শে অবস্থার ধরন বুঝে ব্যবস্থা নিতে হবে। রোগীকে সব সময় মাথার দিক উঁচুতে রেখে আলো বাতাস চলাচল করে এমন ঘরে রাখতে হবে। ঠাণ্ডা, ধুলাবালি, অ্যালার্জি থেকে সাবধান থাকতে হবে।