ঢাকা ০৮:২৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
কুমিল্লার বুড়িচংয়ে কলেজ ছাত্রী যৌন হয়রানির প্রতিবাদে ক্লাস বর্জন, শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ। গজারিয়া উপজেলা পরিষদ এর মাসিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত। টাঙ্গাইলে সৃষ্টি শিক্ষার্থী শিহাব হত্যা মামলায় ৪ আসামির আত্মসমর্পণ, জামিন নামঞ্জুর তেলের মূল্য বৃদ্ধি লোড শেডিং ও দ্রব্যমূল্যর উর্দ্ধগতির প্রতিবাদে জাতীয় পার্টির প্রতিবাদ সমাবেশ ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত। খাগড়াছড়ির গুইমারায় শান্তিপরিবহন ও কাভারভ্যান মুখোমুখি সংঘর্ষে- নিহত ১ কুষ্টিয়া কুমারখালীর উত্তর মিরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক মনিরুল থাকেন প্রবাসে, চাকরি করেন বাংলাদেশে। অষ্টগ্রামের হোসাইনী প্রেমিকগন প্রায় ১৬০ বছর ধরে কারবালার শোক পালন করে আসছে। কুমিল্লার মুরাদনগরে ১৩ জন প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের বিদায় সংবর্ধনা। বেতাগীর অগ্নিদগ্ধ সেই ইউপি সদস্য শামিম আর নেই! সিলেটে বাড়ছে পানিবাহিত রোগ

লক্ষীপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ১ ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখম করেছে সন্ত্রাসীরা

আমজাদ হোসেন, লক্ষীপুরঃ লক্ষীপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মো.আক্তার হোসেন (২৯) কে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিবেশী ৫ যুবক। ঘটনাটি ঘটেছে গত (২০ আগষ্ট) সন্ধ্যা ৭ টার দিকে। ভু্ক্তভুগী মো.আক্তার হোসেন পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ড লামচরী এলাকার শহর বক্স এর বাড়ীর আবদুল মালেক এর ছেলে।
গণ-মাধ্যম কর্মীদেরকে আক্তার বলেন, আমাকে আমার সৎ ভাই মোরশেদ আলম এর পাকানো সন্ত্রাসী আমার সৎ ভাইয়ের শালা মো.আরিফুর রহমান (দিপু) সহ অপর ৪ সহযোগী আমার উপর আক্রমন করে।আমার মায়ের সম্পত্তি আমার সৎ ভাই একক ভাবে ভোগ করতে চায়। একক ভাবে ভোগ করতে না পেরে সে আমাকে সন্ত্রাসী দিয়ে ধারালো অস্ত্র চাপাতি দ্বারা হত্যার উদ্দেশ্যে আঘাত,নগদ টাকা লুট,এবং প্রাণ নাশের ও হুমকি দেয়। এবং আমার ২৫,৫০০ টাকা জোর পূ্র্বক লুট করে নিয়ে যায়।
পরে আক্তার হোসেনের বাবা আবদুল মালেক বলেন,আমার ছেলেকে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে লক্ষীপুর সরকারী কলেজের পশ্চিমে (দুদক) কর্মকর্তা এমরানের বাসার সামনে রাতের  অন্ধকারে আমার ছেলে আক্তারকে অতর্কিত ভাবে ধারলো ছুরি দিয়ে মাথায় এবং হাতে পায়ে আঘাত করে মাথা  থেকে অতিরিক্ত রক্ত খরন করানো হয়েছে । এবং মাথায় ৪ সিঁলাই দেওয়া হয়েছে।  সে সময় স্থানীয়রা আক্তারকে মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে লক্ষীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে আক্তার হোসেনের মা নুর জাহান বেগম (৪৮)বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে লক্ষীপুর মড়েল থানাতে ১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/৫০৬ এ বে-আইনী জনতা বদ্ধে গতিরোধ করত হত্যার উদ্দেশ্যে ধারায় মামলা করা হয়। যার মামলা নং ৩৯,জিআর নং ৪১২/১৯। মামলার আসামীরা হলেন,(১)মো.আরিফুর রহমান দিপু (৩৩),পিতা-মমিন উল্ল্যা হাবিব  উল্ল্যা সর্দার বাড়ী লামছড়ি। (২) রিপন (২২),পিতা মমিন উল্ল্যা হাবিব উল্ল্যা সর্দার বাড়ী লামছড়ি। (৩) মো.রাজু (৩৮), পিতা- মমিন উল্ল্যা হাবিব উল্ল্যা সর্দার বাড়ী,লামছড়ি। (৪) মো.আক্কাস (৩৭),পিতা -আবুল কালাম সর্দার হাবিব উল্ল্যা সর্দার বাড়ী, লামছড়ি। (৫), মো.শহীদ (৩৭), পিতা-মো.ইউসুফ আলী হাবিব উল্ল্যা সর্দার বাড়ী লামছড়ি। এবং অজ্ঞাতনামা আরো ২/৩ জনকেও উক্ত মামলার আসামী করা হয়েছে ভুক্তভুগীদের দাবি গত ২২-৮-১৯ তারিখ  প্রাই ২ মাস আগে  মামলা করা হয়েছে লক্ষীপুর মডেল থানায়। এখনো আসামিদেরকে গ্রেফতার করা হয়নি। বরং আসামীরা আমাদেরকে মামলা তুলে নেওয়া জন্য হুমকি ধমকি দিয়ে আসছে।
মামলা থেকে তাদের নাম মুছে ফেলার চেষ্টা করছে বলেও জানাই ভুক্তভুগীরা। সমাজে বুক পুলিয়ে তারা প্রকাশ্যে চলা ফেরা করে।  আমরা প্রসাসনের প্রতি তিব্র দাবি জানাই যেনো এ ধরনের সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দেওয়া হয়। ভুক্তভুগীদের এখন প্রশ্ন একটায় মামলা হওয়ার ২ মাস পরেও কেন আসামীরা ধরা ছোঁয়ার বাহিরে।
Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

কুমিল্লার বুড়িচংয়ে কলেজ ছাত্রী যৌন হয়রানির প্রতিবাদে ক্লাস বর্জন, শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ।

লক্ষীপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ১ ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখম করেছে সন্ত্রাসীরা

আপডেট টাইম ০১:৩১:৪১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯
আমজাদ হোসেন, লক্ষীপুরঃ লক্ষীপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মো.আক্তার হোসেন (২৯) কে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিবেশী ৫ যুবক। ঘটনাটি ঘটেছে গত (২০ আগষ্ট) সন্ধ্যা ৭ টার দিকে। ভু্ক্তভুগী মো.আক্তার হোসেন পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ড লামচরী এলাকার শহর বক্স এর বাড়ীর আবদুল মালেক এর ছেলে।
গণ-মাধ্যম কর্মীদেরকে আক্তার বলেন, আমাকে আমার সৎ ভাই মোরশেদ আলম এর পাকানো সন্ত্রাসী আমার সৎ ভাইয়ের শালা মো.আরিফুর রহমান (দিপু) সহ অপর ৪ সহযোগী আমার উপর আক্রমন করে।আমার মায়ের সম্পত্তি আমার সৎ ভাই একক ভাবে ভোগ করতে চায়। একক ভাবে ভোগ করতে না পেরে সে আমাকে সন্ত্রাসী দিয়ে ধারালো অস্ত্র চাপাতি দ্বারা হত্যার উদ্দেশ্যে আঘাত,নগদ টাকা লুট,এবং প্রাণ নাশের ও হুমকি দেয়। এবং আমার ২৫,৫০০ টাকা জোর পূ্র্বক লুট করে নিয়ে যায়।
পরে আক্তার হোসেনের বাবা আবদুল মালেক বলেন,আমার ছেলেকে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে লক্ষীপুর সরকারী কলেজের পশ্চিমে (দুদক) কর্মকর্তা এমরানের বাসার সামনে রাতের  অন্ধকারে আমার ছেলে আক্তারকে অতর্কিত ভাবে ধারলো ছুরি দিয়ে মাথায় এবং হাতে পায়ে আঘাত করে মাথা  থেকে অতিরিক্ত রক্ত খরন করানো হয়েছে । এবং মাথায় ৪ সিঁলাই দেওয়া হয়েছে।  সে সময় স্থানীয়রা আক্তারকে মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে লক্ষীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে আক্তার হোসেনের মা নুর জাহান বেগম (৪৮)বাদী হয়ে ৫ জনকে আসামী করে লক্ষীপুর মড়েল থানাতে ১৪৩/৩৪১/৩২৩/৩২৬/৩০৭/৩৭৯/৫০৬ এ বে-আইনী জনতা বদ্ধে গতিরোধ করত হত্যার উদ্দেশ্যে ধারায় মামলা করা হয়। যার মামলা নং ৩৯,জিআর নং ৪১২/১৯। মামলার আসামীরা হলেন,(১)মো.আরিফুর রহমান দিপু (৩৩),পিতা-মমিন উল্ল্যা হাবিব  উল্ল্যা সর্দার বাড়ী লামছড়ি। (২) রিপন (২২),পিতা মমিন উল্ল্যা হাবিব উল্ল্যা সর্দার বাড়ী লামছড়ি। (৩) মো.রাজু (৩৮), পিতা- মমিন উল্ল্যা হাবিব উল্ল্যা সর্দার বাড়ী,লামছড়ি। (৪) মো.আক্কাস (৩৭),পিতা -আবুল কালাম সর্দার হাবিব উল্ল্যা সর্দার বাড়ী, লামছড়ি। (৫), মো.শহীদ (৩৭), পিতা-মো.ইউসুফ আলী হাবিব উল্ল্যা সর্দার বাড়ী লামছড়ি। এবং অজ্ঞাতনামা আরো ২/৩ জনকেও উক্ত মামলার আসামী করা হয়েছে ভুক্তভুগীদের দাবি গত ২২-৮-১৯ তারিখ  প্রাই ২ মাস আগে  মামলা করা হয়েছে লক্ষীপুর মডেল থানায়। এখনো আসামিদেরকে গ্রেফতার করা হয়নি। বরং আসামীরা আমাদেরকে মামলা তুলে নেওয়া জন্য হুমকি ধমকি দিয়ে আসছে।
মামলা থেকে তাদের নাম মুছে ফেলার চেষ্টা করছে বলেও জানাই ভুক্তভুগীরা। সমাজে বুক পুলিয়ে তারা প্রকাশ্যে চলা ফেরা করে।  আমরা প্রসাসনের প্রতি তিব্র দাবি জানাই যেনো এ ধরনের সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি দেওয়া হয়। ভুক্তভুগীদের এখন প্রশ্ন একটায় মামলা হওয়ার ২ মাস পরেও কেন আসামীরা ধরা ছোঁয়ার বাহিরে।