মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৩:৫২ পূর্বাহ্ন

রাজাপুরে শিক্ষকের বেত্রাঘাতে শিক্ষার্থী মেডিকেলে

মোঃ সাইদুল ইসলাম, রাজাপুরে (ঝালকাঠি) প্রতিনিধিঃ ঝালকাঠির রাজাপুরে প্রধান শিক্ষকের বেত্রাঘাতে দশম শ্রেনির শিক্ষার্থী আল হাদী আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমন অভিযোগ ওঠে বাংলার বাঘ খ্যাত শেরে বাংলা একে ফজলুল হকের প্রতিষ্ঠিত ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলার সাতুরিয়া এমএম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। শিক্ষার্থী আল-হাদী পিরোজপুর জেলার কাউখালির পার-সাতুরিয়া গ্রামের মোঃ সোহেব মিয়ার ছেলে। শিক্ষার্থীর অভিভাবক অভিযোগ করেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ ফজলুল হক আকন ১৫ এপ্রিল সোমবার শ্রেনি কক্ষের হাজিরা শেষে হাদীকে গত দিনগুলোতে বিদ্যালয় বিনা অনুমতিতে অনুপস্থিত থাকার কারন জানতে চাইলে হাদী জানায়, আমি অসুস্থ্য ছিলাম। প্রধান শিক্ষক শিক্ষার্থীর কথা মিথ্যাচার বলে ক্ষিপ্ত হয়ে বেত্রাঘাত চালায়। উত্তেজিত প্রধান শিক্ষকের বেত্রাঘাতে ঐ শিক্ষার্থী অসুস্থ্য হয়ে পরলে প্রধান শিক্ষক সহপাঠীদের পাঠিয়ে হাদীর পরিবারকে খবর দেয়। অভিভাবক এসে হাদীকে নিকটস্থ কাউখালি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা করান। এ ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এমডি আবুল বাসার এর কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, পরিবারের কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। প্রাথমিক তদন্তে ঘটনার সত্যতা মিলেছে। আমি ঐ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে ডেকে পাঠান হয়েছে কিন্তু তিনি প্রশিক্ষনে থাকায় এখনও অফিসে আসতে পারে নি। দেখি তাদের মধ্যে মিমাংশা করে দেয়া যায় কিনা। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক মুঠো ফোনে বলেন, “আল-হাদি আগামী ২০২০ সালের মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী অথচ তিনি বেশ কিছু দিন অনুপস্থিত থাকার কারন জানতে চাইলে মিথ্যাচার করায় ও আমি নিজে শারিরীক ভাবে অসুস্থ (ওপেন হার্ট সার্জারি) থাকায় নিজেকে তাৎক্ষণিক নিয়ন্ত্রন করতে না পারায় শিক্ষার্থী আল-হাদি সামান্য আহত হয়েছে। আমি আমার স্নেহের শিক্ষার্থীদের কখনো শারিরীক আঘাত করি না। আমি নিজে স্নেহের শিক্ষার্থী আল-হাদিকে দেখতে গিয়েছিলাম তার চিকিৎসার খোঁজ খবর নিয়েছি এবং নিয়মিত তার পরিবারের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করছি ও তার পড়াশুনার খোঁজ খবর রাখছি।” মোঃ সাইদুল ইসলাম রাজাপুর, ঝালকাঠি

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar