মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ০৮:০১ অপরাহ্ন

যারা সাম্প্রদায়িকতার রাজনীতি করে,যারা স্বাধীনতা রিরোধী রাজনীতি করে তাদের বিনাশ হোক:গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী

সিনিয়র রিপোর্টার (মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম),ঢাকা: গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী জনাব শ. ম. রেজাউল করিম, এমপি বলেছেন, ‘যারা সাম্প্রদায়িকতার রাজনীতি করে, স্বাধীনতা বিরোধী রাজনীতি করে তাদের বিনাশ হোক। আমরা বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার রাজনীতিকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। ক্ষমতায় থাকবে মুক্তিযুদ্ধের দল, ক্ষমতার বাইরে বিরোধী দলেও থাকবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার দল। আমাদের পরিষ্কার কথা, জীবনকে উৎসর্গ করতে হবে মানুষের কল্যাণে, মানুষের সেবায়, সেটাই হবে রাজনীতি’। আজ শুক্রবার (৫ এপ্রিল ২০১৯) বিকেলে সুপ্রীম কোর্ট বার অডিটোরিয়াম, ঢাকায় বাংলাদেশ কংগ্রেস এর ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ‘আদর্শ রাষ্ট্র ও সমাজ গঠনে রাজনৈতিক দলসমূহের ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী এসব কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, ‘আমি রাজনৈতিক নেতা হয়েছি, মন্ত্রী হয়েছি। আমার যদি টার্গেট থাকে আমার বিত্ত-বৈভব, বিশাল প্রাচুর্যের একটা জায়গা অর্জন করে আমি রাজনীতি করবো, এটা রাজনীতি হতে পারেনা। এ রাজনীতি থেকে বেরিয়ে আসার চলমান প্রক্রিয়ায় দেশবাসীকে শামিল হতে আমি আহ্বান জানাই’। মন্ত্রী আরো বলেন, ‘আমার কাছে বাংলাদেশ, ৩০লক্ষ শহীদের রক্তের বাংলাদেশ, অসম্প্রাদায়িক রাজনীতির বাংলাদেশ। চোখের দৃষ্টি বন্ধ করে মনের দৃষ্টিতে একবার তাকিয়ে দেখুন, যে পরিবারের একমাত্র সন্তান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হয়েছিলো, সে পরিবারের বিপন্ন অবস্থার কথা। মানুষের উন্নয়নের রাজনীতিতে আমরা একটা জায়গায় দাঁড়ানোর প্রাণান্তকর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। সামাজিক সূচকে, অর্থনৈতিক সূচকে বাংলাদেশ আজ অনেক দূর এগিয়ে যাচ্ছে’। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘রাষ্ট্র নায়ক হিসেবে দক্ষিণ এশিয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সমকক্ষ দ্বিতীয় ব্যক্তি কেউ নেই। তাঁর বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবন। মায়ানমারের ১৬ লক্ষ মানুষ যখন অসহায় হয়ে নিশ্চিত মৃত্যুর মুখোমুখি তখন বিশ্বের অনেক বড় বড় রাষ্ট্র লম্বা বাণী দিয়ে তাদের দায়িত্ব শেষ করেছেন। শেখ হাসিনা বাংলাদেশের বর্ডার খুলে দিয়ে তাদের আশ্রয় দিয়েছেন। মানবতার জননী হিসেবে বিশ্বে স্বীকৃতি পেয়েছেন। এটা অনন্য, অসাধারণ। এ জন্য সারা দুনিয়ায় সকল জনপদের মানুষ শেখ হাসিনা-কে বলেন মাদার অব হিউম্যানিটি। তিনি আজ বাংলাদেশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন’। মন্ত্রী আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ কংগ্রেসসহ যারা ভালো রাজনীতিতে বিশ্বাস করেন, গুণগত রাজনীতিতে বিশ্বাস করেন, সৃজনশীলতার রাজনীতিতে বিশ্বাস করেন তাদের সকলকে নিয়ে আমরা এগিয়ে যেতে চাই। এ দেশটা আমাদের সকলের। মনে রাখতে হবে দীর্ঘদিন আমরা বেঁচে থাকবো না। এই ছোট্ট জীবনে আসুন আমরা মানুষের কল্যাণে যতটা পারি কাজ করি। অনাহুতভাবে অপরের সমালোচনা করা, অপরের ক্ষতি করা অথবা শুধু নিজের বিত্ত-বৈভব সৃষ্টি করা, এই জায়গা থেকে ফিরে আসতে হবে’। মন্ত্রী বলেন, ‘রক্ত মাংসের দেহ নশ্বর, কীর্তি অবিনশ্বর। আমি যদি কিছু ভালো কাজ করে রেখে যেতে পারি, সেই কীর্তির মাঝে আমি বেঁচে থাকতে পারবো। নিজেকে নিয়ে নয়, দেশবাসীকে নিয়ে, প্রতিবেশীকে নিয়ে, আপনজনকে নিয়ে, সকলকে নিয়ে ভালো থাকতে হবে’। বাংলাদেশ কংগ্রেস এর চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট কাজী রেজাউল হোসেন এর সভাপতিত্বে এ আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাডভোকেট এ এম আমিন উদ্দিন এবং বিশিষ্ট রাষ্ট্র চিন্তাবিদ অধ্যাপক আবুল কাসেম ফজলুল হক।

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar