বুধবার, ০৪ অগাস্ট ২০২১, ১০:৩৯ অপরাহ্ন

মুরাদনগরে ফেলে যাওয়া শিশুর ৩দিনেও পরিচয় সনাক্ত হয়নি।

মুরাদনগরে ফেলে যাওয়া শিশুর ৩দিনেও পরিচয় সনাক্ত হয়নি।

মনির খান, স্টাফ রিপোর্টার জাতীয় দৈনিক মাতৃভূমির খবর।

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলা বাঙ্গরা বাজার থানাধীন শ্রীকাইল গ্রামে ১মাস বয়সী একটি জীবিত শিশু পাওয়া গিয়েছে । গত রবিবার ১৩/০৬/২০২১ইং দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে শ্রীকাইল টু নবীপুর রোডের পাশে হুমায়ুন কবিরের দু’তলা বাড়ীর নিচতলা সিড়ি রুম থেকে এই শিশুটি উদ্ধার করা হয়। ৩দিন হতে চলছে, কিন্তু এখনো শনাক্ত করা যায়নি শিশুটির পিতা-মাতা বা ঠিকানা। এই নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

হুমায়ূন কবিরের স্ত্রী জাহানারা বেগম জানান, আমরা দুতলায় রুম থেকে দুপুরে অনেকক্ষণ ধরে নিচতলায় একটি শিশুর কান্নার শব্দ শুনতে পাই। নেমে গিয়ে দেখি সিড়ির মুখে এই শিশুটি ফ্লোরে পরে আছে। আশে-পাশে কাউকে দেখতে পায়নি । আমার স্বামীও নিচে নেমে আসেন এবং শিশুটিকে কোলে তুলে নিতে বলেন। নিশ্চয় কেউ এখানে শিশুটিকে ফেলে রেখে পালিয়ে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। শিশুটির পরনে একটি হলুদ সাদা রংঙ্গের জামা ছিল। শিশুটি মেয়ে এবং আনুমানিক বয়স একমাস হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

শ্রীকাইল গ্রামের লোকজন বিষয়টি জানা জানির পর প্রথমে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে অবগত করে ফেইসবুকে শিশুটির ছবিসহ পরিচয় সনাক্তের জন্য পোস্ট করা হয়। এতে প্রচার হওয়ার পর দেশ-বিদেশ থেকে বিভিন্ন নিঃসন্তান দম্পত্তি ও অনেক পরিবার শিশুটিকে দত্তক নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। এমনকি হুমায়ূন কবিরের বাড়ীতে কেউ কেউ টাকার বিনিময়েও শিশুটিকে নিতে প্রস্তাব দিয়েছেন। বিডিআর থেকে অবসর বর্তমানে শ্রীকাইল বাজারে ব্যবসায়ী হুমায়ূন কবিরের পরিবারে ৪ মেয়ে ও ১ ছেলে রয়েছে। তবে ফেলে যাওয়া শিশুর লালন-পালন তারাই করতে চান। কারো নিকট বিক্রি বা দত্তক দিতে চান না বলেও সাংবাদিকদের নিকট জানিয়েছেন।

মুরাদনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার অভিষেক দাশ বলেন, শিশুটির প্রকৃত অভিভাবক পাওয়া না গেলে সমাজসেবা অধিদপ্তরের মাধ্যমে যথাযত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
মনির খান,
স্টাফ রিপোর্টার,
জাতীয় দৈনিক মাতৃভূমির খবর,
১৫/০৬/২১ ইং

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar