দীর্ঘকাল পর বিশ্ব কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নাটক ‘রাজা ও অন্যান্য’ মঞ্চস্থ হলো। মিলনায়তনে কোন আসন খালি ছিল না। অভিনেতাদের অভিনয়ে ও নাটকের বৈচিত্রপূর্ণ কাহিনী ও সংলাপের উপস্থাপনায় দর্শকরা ক্ষণে ক্ষণে হাতাতালি দিয়ে উল্লাস প্রকাশ করে তাদের ভাললাগা প্রকাশ করেন।
কবির প্রয়াণ দিবস বাইশে শ্রাবণ উপলক্ষে রাজধানীর গ্রুপ থিয়েটার প্রাচ্যনাট তিন বছর পর নাটকটির দুটি প্রদর্শনী করলো। গতরাতে শিল্পকলা একাডেমির পরিক্ষণ থিয়েটার মঞ্চে নাটকটি মঞ্চস্থ হয়। রবীন্দ্র নাটকের মধ্যে ‘রাজা ও অন্যান্য’ নাটকটি কবিগুরু বৃটিশ শাসসকে বিদ্রুপ করে রচনা করেন।
নাটকে রাজাকে দেখার জন্য প্রজারা উৎসুক হয়ে পড়ে, কিন্ত্র রাজা কোথায় থাকেন তা জানে না প্রজারা। তার জীবন সঙ্গিনী পর্যন্ত রাজাকে দেখতে পান না। এ নিয়ে প্রজার মধ্যে নানা কৌতুক, হাস্যরস জমে উঠে। অবশেষে রাজা ছুটে আসতে বাধ্য হন প্রজার ভিরে। কিন্তু তাও অনেকটা প্রতীকীভাবে।
চটুল সংলাপ, গান, নৃত্যে ভরপুর এ নাটক নাটকটি উপভোগ করতে দর্শকদের আগ্রহ ছিল লক্ষ্যণীয়। টিকেট না পেয়ে ফিরে গেছেন অসংখ্য দর্শক। দুটি প্রদর্শনীতে একই অবস্থা ছিল। ‘আমরা সবাই রাজা আমাদের এই রাজার রাজত্বে’সহ বেশ কয়েকটি রবীন্দ্র সংগীতের সাথে নৃত্য ছিল বেশ আকর্ষণীয়।
নাটকের নির্দেশক অভিনেতা ও নাট্যকার আজাদ আবুল কালাম বাসসকে বলেন, তিন বছর আগে নাটকটির সর্বশেষ প্রদশর্নী হয়। এটি প্রাচ্যনাটের চৌদ্দতম প্রযোজনা। বিভিন্ন মহলের অনুরোধে এবং কবিগুরুর প্রতি শ্রদ্ধা প্রকাশের জন্য দুটি প্রদশর্নী করা হলো। এমনিতেই রবীন্দ্রনাথের নাটকের দর্শক বেশি। আশা করছি নাটকটি মাঝে মধ্যেই প্রদশর্নী করবো।
নাটকটিতে অভিনয় করেছেন প্রাচ্যনাটের একদল প্রবীণ ও তরুণ শিল্পীরা। তারা হচ্ছেন, আফসানা মিমি,আজাদ আবুল কালাম, সানজিদা আনোয়ার, রাহুল আনন্দ, সাইফুল ইসলাম জার্নাল, রুবাইয়া মঞ্জুর,ঋতু সাত্তার, ইরা শারমীন, তপন মজুমদার, বিলকিস জাহান জবা, সাখাওয়াত হোসেন রেজভী ,তৌফিকুল ইসলাম ইমন,আসলামুজ্জামান পলাশ,হীরা চৌধুরী, মিজানুর রহমান মিতুল,রাকার বকুল, শরিফুল ইসলাম, এবিএস জেম,শাহরিয়ার ফেরদৌস,শাহেদ আলী, শতাব্দী ওয়াদুদ, ফরহাদগ হামিদ, মনিরুল ইসলাম রুবেল, মাসিহুদ্দৌলা আজাদ, নিফাত আহমেদ নোবেল, আবুল হাসনাত ভুঞা, রিঙ্কন শিকদার, সাদিকা পারভিন স্বর্ণা, পারভীন সুলতানা কলি, জয়ীতা মহলানবিশ, ¯œাতা শাহরিন, বিলকিস জাহান জবা, পরশ লোদী প্রমুখ।
সঙ্গীতে ছিলেন কার্তিক, সানজিদা আনোয়ার প্রীতি, উত্তম চক্রবর্তী, রাহুল আনন্দ, সাইফুল জার্নাল, নোবেল, জাহাঙ্গীর,ফারজিন নীল, দেবাশিষ, রিপন ও পারু। কোরিওগ্রাফি করেছেন ¯œাতা শাহরিন ও পারভিন সুলতানা কলি।
প্রযোজনা অধিকর্তা শতাব্দী ওয়াদুদ বাসসকে জানান, এ নাটকের দর্শক প্রচুর। এবারের দুটি প্রদর্শনীঁর মধ্যদিয়ে তা আবার জানা গেল। নতুন প্রজন্মের দর্শকের সংখ্যই ছিল বেশি। আমরা খুবই দুখি:ত যে অনেক দর্শক টিকেট না পেয়ে ফিরে গেছেন। শিগগরি নাটকটির পুনরায় প্রদশর্নী করা হবে।

SHARE

Facebook
Twitter