ঢাকা ০৯:০০ অপরাহ্ন, সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
নবীনগরে ভয়াবহ নদী ভাঙ্গনে চোখের পলকে বাস্তুহারা ৩০ পরিবার, ইউএনওর সহায়তা- নিয়ামতপুরে ইউনিয়ন ছাত্র লীগের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত। হারিয়ে যাওয়া ল্যাপটপ, নগদ ৫০ হাজার টাকা (সিএমপি) চকবাজার থানার পুলিশের সহায়তায় ফিরে পেয়ে আবেগ আপ্লুত, ট্রান্সপোর্ট ব্যবসায়ী ফরহাদ, আনোয়ারার প্রান্তে স্বপ্নের বঙ্গবন্ধু টানেল দেখতে পর্যটকের ভিড় দেখা হলনা হাট পথেই মৃত্যু বেপারীর বিশিষ্ট সাংবাদিক মো. সাইফুল ইসলাম রণি’র ৩৮ তম জন্মদিন আজ ইউএসটিসি ছাত্রদলের ৫ সদস্যের আহবায়ক কমিটির ৩ সদস্যের পদত্যাগ। পবিপ্রবিতে নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনায় উৎপাদিত তেলাপিয়া ও পাঙ্গাস মাছের নিলাম অনুষ্ঠিত টাঙ্গাইলে এনটিভির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন লক্ষ্মীপুরে পুলিশের নায়েক থেকে সহকারী উপ পরিদর্শক হলেন ৬ জন

ব্যাংকগুলোর আমানত ও ঋণে চলছে নজরদারি

ব্যাংকগুলো কী হারে আমানত সংগ্রহ করছে এবং ঋণ কী হারে দিচ্ছে, তা নজরদারির মধ্যে রেখেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। আজ মঙ্গলবার চলতি অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসের (জুলাই-ডিসেম্বর, ২০১৮) মুদ্রানীতি ঘোষণায় এ কথা বলেন করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির। বাংলাদেশ ব্যাংকের মূল ভবনের জাহাঙ্গীর আলম কনফারেন্স হলে বেলা ১১টায় মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হয়।

গভর্নর বলেন, ব্যাংকগুলো কী হারে আমানত সংগ্রহ করছে এবং ঋণ কী হারে দিচ্ছে, তা নজরদারি করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

নতুন মুদ্রানীতিতে সুদহার ও নীতিনির্ধারণীতে কোনো পরিবর্তন আসেনি। গত অর্থবছরের জানুয়ারি থেকে জুন মেয়াদের মুদ্রানীতিতে বেসরকারি খাতে ঋণপ্রবাহ ধরা হয়েছিল ১৬ দশমিক ৩ শতাংশ—এই হার এবারের মুদ্রানীতিতে অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে।

মুদ্রানীতি ঘোষণার সময় বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ছাড়াও ডেপুটি গভর্নরসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

আমদানি বৃদ্ধি পাচ্ছে, টাকা পাচার হচ্ছে কি না—এমন প্রশ্নের জবাবে ডেপুটি গভর্নর আবু হেনা মোহা. রাজী হাসান বলেন, ‘চার হাজার কোটি টাকা পাচারের বিষয়ে অনুসন্ধানে একটা তথ্য পাওয়া গেছে। আমরা তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে তা পাঠিয়েছি। এ বিষয়ে আরও কাজ চলছে।’

Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

নবীনগরে ভয়াবহ নদী ভাঙ্গনে চোখের পলকে বাস্তুহারা ৩০ পরিবার, ইউএনওর সহায়তা-

ব্যাংকগুলোর আমানত ও ঋণে চলছে নজরদারি

আপডেট টাইম ০৮:৩৭:২২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩১ জুলাই ২০১৮

ব্যাংকগুলো কী হারে আমানত সংগ্রহ করছে এবং ঋণ কী হারে দিচ্ছে, তা নজরদারির মধ্যে রেখেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। আজ মঙ্গলবার চলতি অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসের (জুলাই-ডিসেম্বর, ২০১৮) মুদ্রানীতি ঘোষণায় এ কথা বলেন করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির। বাংলাদেশ ব্যাংকের মূল ভবনের জাহাঙ্গীর আলম কনফারেন্স হলে বেলা ১১টায় মুদ্রানীতি ঘোষণা করা হয়।

গভর্নর বলেন, ব্যাংকগুলো কী হারে আমানত সংগ্রহ করছে এবং ঋণ কী হারে দিচ্ছে, তা নজরদারি করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

নতুন মুদ্রানীতিতে সুদহার ও নীতিনির্ধারণীতে কোনো পরিবর্তন আসেনি। গত অর্থবছরের জানুয়ারি থেকে জুন মেয়াদের মুদ্রানীতিতে বেসরকারি খাতে ঋণপ্রবাহ ধরা হয়েছিল ১৬ দশমিক ৩ শতাংশ—এই হার এবারের মুদ্রানীতিতে অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে।

মুদ্রানীতি ঘোষণার সময় বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ছাড়াও ডেপুটি গভর্নরসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

আমদানি বৃদ্ধি পাচ্ছে, টাকা পাচার হচ্ছে কি না—এমন প্রশ্নের জবাবে ডেপুটি গভর্নর আবু হেনা মোহা. রাজী হাসান বলেন, ‘চার হাজার কোটি টাকা পাচারের বিষয়ে অনুসন্ধানে একটা তথ্য পাওয়া গেছে। আমরা তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে তা পাঠিয়েছি। এ বিষয়ে আরও কাজ চলছে।’