ঢাকা ০৩:০৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৭ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
এইচ এস সি পরীক্ষায় এবার ছেলেদের তুলনায় মেয়েরাই জিপিএ-৫ পেয়েছে বেশি প্রশিক্ষণকালীন দূর্ঘটনায় ক্যাডেট সালমানের মৃত্যু। নগরীতে ১০ লাখ মানুষের জন্য ৬টি গণশৌচাগার উপকূলজুড়ে জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব অকল্পনীয় : তথ্যমন্ত্রী নারায়ণগঞ্জ অফিসার্স ফোরামের নতুন কমিটি ঘোষণা চট্টগ্রাম চেতনার পুর্নজাগরন একুশে বইমেলার আয়োজন: মেয়র এম রেজাউল করিম চৌধুরী গজারিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন ঘিরে আমিরুল ইসলাম কে নিয়ে তৃনমুলে উৎসাহ উদ্দীপনা পটুয়াখালীতে শেখ কামাল আন্তঃস্কুল ও মাদ্রাসা এ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত। নড়াইলে প্রতিবন্ধী শিশুদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত এই শীতে গুড় বিক্রি করে সফল উদ্যোক্তা নারী মিষ্টি আপা খ্যাত রাজশাহীর মেয়ে দিলারা জেসমিন

বাঁচতে চায় প্রিয়লাল: মানবিক সাহায্যের আকুল আবেদন

স্টাফ রিপোর্টার।। “মানুষ মানুষের জন্য জীবন জীবনের জন্য একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারে না…ও বন্ধু” -ভুপেন হাজারিকার গানটি সামনে রেখে ঐতিহ্যবাহী চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলাধীন সুলতানাবাদ ইউনিয়নের কোয়রকান্দি গ্রামের অসহায় ও হতদরিদ্র ১১৫ বছর বয়সী বয়োবৃদ্ধা যদুলাল চন্দ্র বাইন এর কনিষ্ঠ পুত্র প্রিয়লাল সরকার (৪৫) জন্ডিসে আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘদিন যাবত লিভার ক্যান্সারে ভুগিতেছেন। তাঁর চিকিৎসা চালাতে সমাজের বিত্তবানদের সহযোগিতা চেয়েছেন হতদরিদ্র বয়োবৃদ্ধ পিতা ও তাঁর পরিবারবর্গ। ভালোবাসার এই পৃথিবীতে ভালোবাসার মানুষের জন্যে আমরা কত কিছুই না করতে পারি। সকলের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন একটি অসহায় পরিবারের জন্যে। প্রিয়লাল সুস্থ হয়ে উঠলে বেঁচে যাবে একটি পরিবার। অসহায় ও হতদরিদ্র প্রিয়লাল এর এক পুত্র-কন্যা সন্তানের জনক। এরা হলেন- পিয়াস সরকার (১৩) ও মিথীলা রাণী সরকার (১১)। অসহায় বয়োবৃদ্ধ পিতা সন্তানের চিকিৎসার্থে আত্মীয়স্বজন ও গ্রামবাসীর সাহায্য সহযোগীতা নিয়ে সে সময় চিকিৎসা সেবা দিয়েছিলেন।
ছেলের চিকিৎসার জন্য প্রথমে চাঁদপুর পরে ঢাকার একটি বে-সরকারী হসপিটালে ভর্তি করান।
কিন্তু অবস্হার তেমন পরিবর্তন না হওয়ায় চিকিৎসকের পরামর্শে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে ৩০দিনে অনেক টাকা খরচ হয়েছে। অসহায় পরিবারের জন্য এই ব্যয় বহুল খরচ যোগাতে না পেরে সেখান থেকে বাড়ীতে ফেরত আনেন অসহায় পিতা।
বর্তমানে ঢামেক হাসপাতালের এক চিকিৎসকের পরামর্শে বাড়ীতেই চলছে প্রিয়লালের চিকিৎসা। তাকে ঢাকা পিজি হসপিটালে ভর্তি করার কথা বললেও টাকার অভাবে ভর্তি করাতে পারছেন না দরিদ্র পরিবারটি। সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত পাঁচ লক্ষ টাকা খরচ হয়ে গেছে প্রিয়লাল এর চিকিৎসা করাতে। দরিদ্র পিতার পক্ষে সন্তানের ব্যয় বহুল চিকিৎসা চালাতে গিয়ে হিমশিম খেয়ে নিদারুন কষ্টে মানবেতর জীবনযাপন করছে অসহায় পরিবারটি। অথচ পুরোপুরি প্রিয়লালকে সুস্হ করে তুলতে এখনো প্রায় ছয় লক্ষ টাকা দরকার; যা জোগাড় করা অসহায় পরিবারটির পক্ষে কোন রকমই সম্ভব নই। প্রিয়লাল এর বয়োবৃদ্ধ পিতা যদুলাল বাইন বলেন- সারাদিন বাঁশ দিয়ে হাঁস-মুরগীর খাঁচা তৈরী করে রোজগার হয় ১৫০/২০০ টাকা। সব মিলিয়ে সংসার চালাতেই নুন আনতে পান্তা ফুরনোর অবস্থা। সেখানে ক্যান্সার রোগীর চিকিৎসা তার পক্ষে খুবই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। আত্মীয় স্বজন, গ্রামবাসী ও নিজের কষ্টার্জিত টাকায় চিকিৎসা সেবা চালিয়েছি। আর তো সম্ভবপর হচ্ছেনা। এমতাবস্থায় ছেলের চিকিৎসা সেবা চালাতে সমাজের বিত্তবানসহ সর্বস্তরের মানুষের কাছে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে বিনীত অনুরোধ জানিয়েছেন। যাতে তার ছেলে প্রিয়লাল সুস্থ হয়ে আরও দশজনের মত হেঁসে খেলে বেড়াতে পারে।
তাই মানবিকতার বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে প্রিয়লাল এর চিকিৎসা ব্যয়ে আপনিও শরীক/অংশীদার হোন।

সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা:
প্রিয়লাল চন্দ্র সরকার
মোবাইল নং- 01918-621161 (পার্সোনাল বিকাশ নম্বর)

বার্তা প্রেরক :

তাপস চন্দ্র সরকার
কুমিল্লা।
ই-মেইলে ছবি আছে।

Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

এইচ এস সি পরীক্ষায় এবার ছেলেদের তুলনায় মেয়েরাই জিপিএ-৫ পেয়েছে বেশি

বাঁচতে চায় প্রিয়লাল: মানবিক সাহায্যের আকুল আবেদন

আপডেট টাইম ০৯:১৭:৫৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২

স্টাফ রিপোর্টার।। “মানুষ মানুষের জন্য জীবন জীবনের জন্য একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারে না…ও বন্ধু” -ভুপেন হাজারিকার গানটি সামনে রেখে ঐতিহ্যবাহী চাঁদপুর জেলার মতলব উত্তর উপজেলাধীন সুলতানাবাদ ইউনিয়নের কোয়রকান্দি গ্রামের অসহায় ও হতদরিদ্র ১১৫ বছর বয়সী বয়োবৃদ্ধা যদুলাল চন্দ্র বাইন এর কনিষ্ঠ পুত্র প্রিয়লাল সরকার (৪৫) জন্ডিসে আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘদিন যাবত লিভার ক্যান্সারে ভুগিতেছেন। তাঁর চিকিৎসা চালাতে সমাজের বিত্তবানদের সহযোগিতা চেয়েছেন হতদরিদ্র বয়োবৃদ্ধ পিতা ও তাঁর পরিবারবর্গ। ভালোবাসার এই পৃথিবীতে ভালোবাসার মানুষের জন্যে আমরা কত কিছুই না করতে পারি। সকলের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন একটি অসহায় পরিবারের জন্যে। প্রিয়লাল সুস্থ হয়ে উঠলে বেঁচে যাবে একটি পরিবার। অসহায় ও হতদরিদ্র প্রিয়লাল এর এক পুত্র-কন্যা সন্তানের জনক। এরা হলেন- পিয়াস সরকার (১৩) ও মিথীলা রাণী সরকার (১১)। অসহায় বয়োবৃদ্ধ পিতা সন্তানের চিকিৎসার্থে আত্মীয়স্বজন ও গ্রামবাসীর সাহায্য সহযোগীতা নিয়ে সে সময় চিকিৎসা সেবা দিয়েছিলেন।
ছেলের চিকিৎসার জন্য প্রথমে চাঁদপুর পরে ঢাকার একটি বে-সরকারী হসপিটালে ভর্তি করান।
কিন্তু অবস্হার তেমন পরিবর্তন না হওয়ায় চিকিৎসকের পরামর্শে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে ৩০দিনে অনেক টাকা খরচ হয়েছে। অসহায় পরিবারের জন্য এই ব্যয় বহুল খরচ যোগাতে না পেরে সেখান থেকে বাড়ীতে ফেরত আনেন অসহায় পিতা।
বর্তমানে ঢামেক হাসপাতালের এক চিকিৎসকের পরামর্শে বাড়ীতেই চলছে প্রিয়লালের চিকিৎসা। তাকে ঢাকা পিজি হসপিটালে ভর্তি করার কথা বললেও টাকার অভাবে ভর্তি করাতে পারছেন না দরিদ্র পরিবারটি। সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত পাঁচ লক্ষ টাকা খরচ হয়ে গেছে প্রিয়লাল এর চিকিৎসা করাতে। দরিদ্র পিতার পক্ষে সন্তানের ব্যয় বহুল চিকিৎসা চালাতে গিয়ে হিমশিম খেয়ে নিদারুন কষ্টে মানবেতর জীবনযাপন করছে অসহায় পরিবারটি। অথচ পুরোপুরি প্রিয়লালকে সুস্হ করে তুলতে এখনো প্রায় ছয় লক্ষ টাকা দরকার; যা জোগাড় করা অসহায় পরিবারটির পক্ষে কোন রকমই সম্ভব নই। প্রিয়লাল এর বয়োবৃদ্ধ পিতা যদুলাল বাইন বলেন- সারাদিন বাঁশ দিয়ে হাঁস-মুরগীর খাঁচা তৈরী করে রোজগার হয় ১৫০/২০০ টাকা। সব মিলিয়ে সংসার চালাতেই নুন আনতে পান্তা ফুরনোর অবস্থা। সেখানে ক্যান্সার রোগীর চিকিৎসা তার পক্ষে খুবই কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। আত্মীয় স্বজন, গ্রামবাসী ও নিজের কষ্টার্জিত টাকায় চিকিৎসা সেবা চালিয়েছি। আর তো সম্ভবপর হচ্ছেনা। এমতাবস্থায় ছেলের চিকিৎসা সেবা চালাতে সমাজের বিত্তবানসহ সর্বস্তরের মানুষের কাছে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিতে বিনীত অনুরোধ জানিয়েছেন। যাতে তার ছেলে প্রিয়লাল সুস্থ হয়ে আরও দশজনের মত হেঁসে খেলে বেড়াতে পারে।
তাই মানবিকতার বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে প্রিয়লাল এর চিকিৎসা ব্যয়ে আপনিও শরীক/অংশীদার হোন।

সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা:
প্রিয়লাল চন্দ্র সরকার
মোবাইল নং- 01918-621161 (পার্সোনাল বিকাশ নম্বর)

বার্তা প্রেরক :

তাপস চন্দ্র সরকার
কুমিল্লা।
ই-মেইলে ছবি আছে।