ঢাকা ০১:০৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
হানিমুনে এসে স্বামীকে পিটিয়ে উধাও নববধূঃ প্রেমিকসহ গ্রেফতার এক ইলিশের দাম ৫ হাজার কলাপাড়ায় গাঁজাসহ ৪ জন গ্রেফতার প্রবাসে কাজের সন্ধানে গিয়ে প্রবাসীর মৃত্যু , তিন মাসপর নিজ বাড়িতে দাফন পটুয়াখালী জেলা শাখার সোনালী অতীত ক্লাবের পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত দুর্গাপূজায় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রতি নির্দেশ আইজিপির অবৈধ দখল বাজদের দখলে বাকেরগঞ্জের পৌর শহরের বুক চিরে বয়ে যাওয়া শ্রীমন্ত নদীর দু পাশ প্রধানমন্ত্রীর ৭৬ তম জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছন সোনারগাঁয়ে কাঁচপুরে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্মী সভা ও সদস্য সংগ্রহ বাকেরগঞ্জে সোশাল ইসলামি ব্যাংকের ১৪৩ তম শাখা উদ্ভোধন

বগুড়ায় ৫০ টাকার জন্য মৃত্যু আসামী গ্রেফতার

মোঃহারুনুর রশিদ জেলা প্রতিনিধি (বগুড়া) বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গত ০৯ নভেম্বর ২০২১ তারিখ আনুমানিক রাত ১০:৩০ ঘটিকায় দৈনিক মুজুরী ভিত্তিক কর্মী চিকিৎসারত গুরুতর আহত এক রোগীর মুখের অক্সিজেন মাস্ক খুলে ফেলার কারনে একজন গুরুতর আহত রোগীর মৃত্যু ঘটে বলে জানা যায়। ভিকটিম স্কুলছাত্র শ্রী বিকাশ চন্দ্র দাশ গাইবান্ধার স্থানীয় একটি উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র; বয়স (১৭)। সে পড়াশোনার পাশাপাশি স্থানীয় একটি ওয়ার্কশপে গ্রীল ওয়েল্ডিং এর কাজ করে নিজের পড়াশোনার ও পরিবারের খরচ চালাত বলে জানা যায়। গত ০৯ নভেম্বর ২০২১ তারিখ ভিকটিম শ্রী বিকাশ চন্দ্র দাশ সন্ধ্যায় বাড়ি ফেরার পথে গাইবান্ধার সাঘাটাতে মোটরসাইকেলের সাথে দূর্ঘটনায় গুরুতর আহত হলে স্থানীয় হাসপাতালের ডাক্তারের পরামর্শে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে আনুমানিক রাত ১০.০০ ঘটিকার সময় অভিভাবকরা বগুরার বর্ণিত হাসপাতালে নিয়ে যায়। উক্ত হাসপাতালে পৌছালে জরুরী বিভাগের হাসপাতালের দৈনিক মজুরী ভিত্তিক কর্মী মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু ভিকটিমের অভিভাবকের নিকট চিকিৎসা দালালীর নামে ৫০০ টাকা দাবি করে এবং পরবর্তীতে ২০০ টাকায় রাজি হয়। ভিকটিমকে জরুরী বিভাগে নিয়ে যাওয়ার পরে চিকিৎসক রোগীকে জরুরী সেবা দিয়ে অক্সিজেন লাগিয়ে দেন এবং ওয়ার্ডে ভর্তি করে দেন। অতঃপর ভিকটিমকে মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু সার্জিক্যাল ওয়ার্ডে নিয়ে যায়। বেড না থাকায় ভিকটিমকে ফ্লোরে বেড দেওয়া হয়। অতঃপর ভিকটিমের অভিভাবকের নিকট টাকা চাইলে তাদের কাছে ১৫০ টাকা থাকায় তাকে ১৫০ টাকা দেওয়া হয়। তখন সে আরো টাকা দাবী করলে শ্রী বিকাশ চন্দ্র দাশের অভিভাবক বলে আমাদের কাছে আর কোন টাকা নেই। তখন মোঃ আসাদুল ইসলাম ধলু উত্তেজিত হয়ে ভিকটিম শ্রী বিকাশ চন্দ্র দাশের অক্সিজেন মাস্ক খুলে দিয়ে গালি গালাজ করে। এরপরই শ্বাসকষ্টজনিত কারণে ভিকটিম মৃত্যু বরণ করে। তখন হাসপাতালে অন্যান্য রোগী ও পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন লোকজন জড়ো হয়। এ সময় হাসপাতালের নিরাপত্তাকর্মীরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্ট করে। তখন সুযোগ বুঝে মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। উক্ত বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কর্তৃক একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। ভিকটিম শ্রী বিকাশ চন্দ্র দাশ মৃত্যু বরণের ঘটনায় অদ্য ১১ নভেম্বর ২০২১ তারিখ রাত ০০.৩০ ঘটিকায় বগুড়া সদর থানায় মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু’কে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে হাসপাতাল কতৃপক্ষ, যার মামলা নং-২৯, তারিখ ১১/১১/২০২১ইং, ধারা ৩০৪(ক) পেনাল কোড। উক্ত নির্মম হত্যাকান্ডের ঘটনাটি দেশব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি করে ও বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে গুরুত্বের সাথে প্রচারিত হয়। র‌্যাব বর্ণিত ঘটনার প্রেক্ষিতে আসামীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার লক্ষ্যে গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করে।
এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১২ এর অভিযানে অদ্য ১১ নভেম্বর ২০২১ তারিখ ভোরে ঢাকার আব্দুলাহপুর হতে মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু পিতাঃ মৃত জয়নুদ্দিন মীর, গ্রামঃ কুমিরাডাঙ্গা, থানাঃ গোবিন্দগঞ্জ, জেলাঃ গাইবান্ধা’কে গ্রেফতার করা হয়।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু ভিকটিম শ্রী বিকাশ চন্দ্র দাশ চিকিৎসারত অবস্থায় অক্সিজেন মাস্ক বিচ্ছিন্ন করায় বিষয়টি স্বীকার করে। গ্রেফতারকৃত মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু বিগত ৬ বছর যাবত উক্ত হাসপাতলে দৈনিক মুজুরী ভিত্তিক কর্মী (পরিচ্ছন্নতাকর্মী) হিসেবে অস্থায়ীভাবে কাজ করছে। প্রতিদিন সে দুপুর ২টা পর্যন্ত কাজ করার পর বিকেল থেকে হাসপাতালের জরুরী আউটডোরে রোগীদেরকে ট্রলিতে করে পৌঁছে দেয়া বা অন্যান্য দালালীসহ বিভিন্ন কাজ করতো। সে এই কাজের মাধ্যমে রোগীদের নিকট হতে অবৈধভাবে অর্থ আদায় করতো জানায়। উক্ত ঘটনার পর সেখান থেকে সে প্রথমে নওগাঁ ও পরবর্তীতে ঢাকা হয়ে চট্টগ্রামে আত্মগোপনে যাওয়ার চেষ্টা করে। গ্রেফতারকৃতের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

হানিমুনে এসে স্বামীকে পিটিয়ে উধাও নববধূঃ প্রেমিকসহ গ্রেফতার

বগুড়ায় ৫০ টাকার জন্য মৃত্যু আসামী গ্রেফতার

আপডেট টাইম ০৮:১২:৪১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১১ নভেম্বর ২০২১

মোঃহারুনুর রশিদ জেলা প্রতিনিধি (বগুড়া) বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গত ০৯ নভেম্বর ২০২১ তারিখ আনুমানিক রাত ১০:৩০ ঘটিকায় দৈনিক মুজুরী ভিত্তিক কর্মী চিকিৎসারত গুরুতর আহত এক রোগীর মুখের অক্সিজেন মাস্ক খুলে ফেলার কারনে একজন গুরুতর আহত রোগীর মৃত্যু ঘটে বলে জানা যায়। ভিকটিম স্কুলছাত্র শ্রী বিকাশ চন্দ্র দাশ গাইবান্ধার স্থানীয় একটি উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র; বয়স (১৭)। সে পড়াশোনার পাশাপাশি স্থানীয় একটি ওয়ার্কশপে গ্রীল ওয়েল্ডিং এর কাজ করে নিজের পড়াশোনার ও পরিবারের খরচ চালাত বলে জানা যায়। গত ০৯ নভেম্বর ২০২১ তারিখ ভিকটিম শ্রী বিকাশ চন্দ্র দাশ সন্ধ্যায় বাড়ি ফেরার পথে গাইবান্ধার সাঘাটাতে মোটরসাইকেলের সাথে দূর্ঘটনায় গুরুতর আহত হলে স্থানীয় হাসপাতালের ডাক্তারের পরামর্শে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে আনুমানিক রাত ১০.০০ ঘটিকার সময় অভিভাবকরা বগুরার বর্ণিত হাসপাতালে নিয়ে যায়। উক্ত হাসপাতালে পৌছালে জরুরী বিভাগের হাসপাতালের দৈনিক মজুরী ভিত্তিক কর্মী মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু ভিকটিমের অভিভাবকের নিকট চিকিৎসা দালালীর নামে ৫০০ টাকা দাবি করে এবং পরবর্তীতে ২০০ টাকায় রাজি হয়। ভিকটিমকে জরুরী বিভাগে নিয়ে যাওয়ার পরে চিকিৎসক রোগীকে জরুরী সেবা দিয়ে অক্সিজেন লাগিয়ে দেন এবং ওয়ার্ডে ভর্তি করে দেন। অতঃপর ভিকটিমকে মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু সার্জিক্যাল ওয়ার্ডে নিয়ে যায়। বেড না থাকায় ভিকটিমকে ফ্লোরে বেড দেওয়া হয়। অতঃপর ভিকটিমের অভিভাবকের নিকট টাকা চাইলে তাদের কাছে ১৫০ টাকা থাকায় তাকে ১৫০ টাকা দেওয়া হয়। তখন সে আরো টাকা দাবী করলে শ্রী বিকাশ চন্দ্র দাশের অভিভাবক বলে আমাদের কাছে আর কোন টাকা নেই। তখন মোঃ আসাদুল ইসলাম ধলু উত্তেজিত হয়ে ভিকটিম শ্রী বিকাশ চন্দ্র দাশের অক্সিজেন মাস্ক খুলে দিয়ে গালি গালাজ করে। এরপরই শ্বাসকষ্টজনিত কারণে ভিকটিম মৃত্যু বরণ করে। তখন হাসপাতালে অন্যান্য রোগী ও পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন লোকজন জড়ো হয়। এ সময় হাসপাতালের নিরাপত্তাকর্মীরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্ট করে। তখন সুযোগ বুঝে মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। উক্ত বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কর্তৃক একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। ভিকটিম শ্রী বিকাশ চন্দ্র দাশ মৃত্যু বরণের ঘটনায় অদ্য ১১ নভেম্বর ২০২১ তারিখ রাত ০০.৩০ ঘটিকায় বগুড়া সদর থানায় মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু’কে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করে হাসপাতাল কতৃপক্ষ, যার মামলা নং-২৯, তারিখ ১১/১১/২০২১ইং, ধারা ৩০৪(ক) পেনাল কোড। উক্ত নির্মম হত্যাকান্ডের ঘটনাটি দেশব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি করে ও বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে গুরুত্বের সাথে প্রচারিত হয়। র‌্যাব বর্ণিত ঘটনার প্রেক্ষিতে আসামীকে আইনের আওতায় নিয়ে আসার লক্ষ্যে গোয়েন্দা নজরদারী বৃদ্ধি করে।
এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-১২ এর অভিযানে অদ্য ১১ নভেম্বর ২০২১ তারিখ ভোরে ঢাকার আব্দুলাহপুর হতে মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু পিতাঃ মৃত জয়নুদ্দিন মীর, গ্রামঃ কুমিরাডাঙ্গা, থানাঃ গোবিন্দগঞ্জ, জেলাঃ গাইবান্ধা’কে গ্রেফতার করা হয়।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু ভিকটিম শ্রী বিকাশ চন্দ্র দাশ চিকিৎসারত অবস্থায় অক্সিজেন মাস্ক বিচ্ছিন্ন করায় বিষয়টি স্বীকার করে। গ্রেফতারকৃত মোঃ আসাদুল ইসলাম মীর ধলু বিগত ৬ বছর যাবত উক্ত হাসপাতলে দৈনিক মুজুরী ভিত্তিক কর্মী (পরিচ্ছন্নতাকর্মী) হিসেবে অস্থায়ীভাবে কাজ করছে। প্রতিদিন সে দুপুর ২টা পর্যন্ত কাজ করার পর বিকেল থেকে হাসপাতালের জরুরী আউটডোরে রোগীদেরকে ট্রলিতে করে পৌঁছে দেয়া বা অন্যান্য দালালীসহ বিভিন্ন কাজ করতো। সে এই কাজের মাধ্যমে রোগীদের নিকট হতে অবৈধভাবে অর্থ আদায় করতো জানায়। উক্ত ঘটনার পর সেখান থেকে সে প্রথমে নওগাঁ ও পরবর্তীতে ঢাকা হয়ে চট্টগ্রামে আত্মগোপনে যাওয়ার চেষ্টা করে। গ্রেফতারকৃতের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।