মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১০:০১ অপরাহ্ন

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উদ্বোধনী মেলা ও শোকেসিং-২০১৯ অনুষ্ঠিত

সিনিয়র রিপোর্টার (মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম),ঢাকা: “আপনার উদ্ভাবন আমরা করব বাস্তবায়ন” প্রতিপাদ্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় উদ্ভাবনী মেলা ও শোকেসিং ২০১৯। সোমবার ২০ মে ২০১৯ সকাল দশটায় মিরপুরে অবস্থিত ঢাকা পিটিআই-এর কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব মোঃ জাকির হোসেন এম.পি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সচিব জনাব মোঃ আকরাম-আল-হোসেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. এ এফ এম মনজুর কাদির। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাননীয় প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাকির হোসেন এম.পি বলেন, প্রত্যেকে নিজ নিজ জায়গা থেকে কাজ করতে হবে। এসময় মন্ত্রণালয়ের এবং অধিদপ্তরের মনিটরিং সিস্টেম শক্ত করার আহ্বান জানান তিনি। প্রধান শিক্ষক হিসেবে সরাসরি নিয়োগ দেয়ার বিষয়টি তুলে দিয়ে সহকারি শিক্ষকদের মধ্য থেকেই পদোন্নতি দিয়ে প্রধান শিক্ষক করা হবে বলেও জানান তিনি। তবে এর পাশাপাশি শিক্ষকদেরকে পাঠদানে মনোযোগী হবার বিষয়টিও গুরুত্বারোপ করেন প্রতিমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে অন্যান্য বক্তারা ইনোভেশন কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে সেবা সহজিকরণ এবং মানসম্মত শিক্ষা নিশ্চিতকরণের ওপর গুরুত্বারোপ করেন। অনুষ্ঠানে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব বদরুল আলম বাবুল বলেন, ইনোভেশন একটি চলমান প্রক্রিয়া যা ধীরে ধীরে গণমুখী হয়ে যায়। তিনি উদ্ভাবনী আইডিয়া সমূহ অন্যদের সাথে শেয়ার করা এবং শিক্ষার্থী ভর্তিতে এবং শিক্ষক বদলিতে অনলাইন পদ্ধতি চালু করার ওপর জোর দেন। এছাড়া অনুষ্ঠানে অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) মোঃ গিয়াস উদ্দিন আহমেদ স্কুল প্রাঙ্গণে বাগান করা, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা শিক্ষা দেয়া এবং প্রি-প্রাইমারি ক্লাস সাজানোর জন্য অভিভাবক মহল থেকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সচিব মোঃ আকরাম-আল-হোসেন বলেন, ২০৪১ সালে যারা উন্নত বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেবেন তাদের প্রাথমিক শিক্ষার ভিত্তি মজবুত করে গড়ে তোলার জন্যই কাজ করছে বর্তমান সরকার। তিনি বলেন, উন্নত সমৃদ্ধ ও মেধাসম্পন্ন জাতি গঠনে প্রাথমিক শিক্ষার বিকল্প নেই। শিশুদের ছোট বয়স থেকেই স্কুলের পাশাপাশি নিজের ঘরবাড়ি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখার জন্যও উদ্বুদ্ধ করার আহ্বান জানান তিনি। উল্লেখ্য, ২০১৩ সাল থেকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় ইনোভেশন কর্মকাণ্ড শুরু হয়। নাগরিক সেবা প্রদান, নৈতিকতা বিকাশ এবং বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা – এই তিনটি বিষয়কে কেন্দ্র করে মূলত উদ্ভাবনী আইডিয়াগুলো নিয়ে কাজ করা হয়। বর্তমান অর্থ বছর ২০১৮-১৯ – এ ১১৫টি উদ্ভাবনী আইডিয়া পাওয়া যায় যার মধ্যে মেলায় প্রদর্শিত হয় ১৫টি। এ সকল আইডিয়ার অধিকাংশই প্রাথমিক শিক্ষকদের।

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar