বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১১:৩৬ অপরাহ্ন

পুলিশের উপস্থিতিতেই বরিশাল ল কলেজের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকের উপর হামলা

মাতৃভূমির খবর ডেস্ক : কুয়াকাটা থেকে ফেরার পথে ঝালকাঠী জেলা নলছিটি উপজেলা শিমুলতলা বাজার নামক এলাকায় বরিশাল ল কলেজের পিকনিক বাস থামিয়ে শিক্ষার্থীর উপর হামলা ও শিক্ষকদের লাঞ্চিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে এক দল সন্ত্রাসীর বিরুদ্ধে। এ সময় নলছিটি থানা পুলিশের এস.আই নাসির উপস্থিত থাকলেও শিক্ষার্থীদের উপর হামলা ও শিক্ষকদের লাঞ্চিত করার প্রতিবাদে তেমন কোন ভূমিকা রাখেন নি বলে জানান হামলার শিকার শিক্ষার্থীরা। এ ঘটনায় বরিশাল ল কলেজের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকদের মাঝে ক্ষোভ সৃস্টি হয়েছে। শুক্রবার রাত ১১ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়। সূত্রে জানা যায় শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে বরিশাল থেকে পিকনিক যায় বরিশাল ল কলেজের দুই শতাধিক শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা। কুয়াকাটা থেকে ফেরার পথে প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীরা গান চালিয়ে আনন্দ করছিল এ সময় হঠাৎ বাস ব্রেক করায় বেল্লাল নামক এক ছাত্রের গায়ে ধাক্কা লাগে। এ সময় সাইফুলের গায়ে ধাক্কা লাগার অপরাধে বেল্লালকে এলোপাথালি থাপ্পর মারতে থাকে। বাসে থাকা শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা উভয় থামিয়ে দেয়। পরক্ষণে সাইফুল বিভিন্নভাবে হুমকি দিতে থাকে বেল্লালকে। সাইফুলের বাড়ী নলছিটি হওয়ায় বাস লেবুখালী পৌঁছালে স্থানীয় সন্ত্রাসীদের ফোন দিতে থাকে। এ সময় উপস্থিত বরিশাল ল কলেজের শিক্ষক তৌহিদুল ইসলাম রিগ্যান ও আশরাফুল আলম এ বিষয় নিয়ে ঝামেলা না করার অনুরোধ রেখে বলেন আগামীকাল কলেজে বলে দোষগুন দেখে ব্যাবস্থা নিব। স্যারদের এই কথায় ক্ষিপ্ত হয়ে সাইফুল বাস থেকে নেমে মোটরসাইকেল যোগে নলছিটি উপজেলার শিমুলতলা নামক স্থানে ১০-১৫জন স্থানীয় সন্ত্রাসী নিয়ে রাস্তার উপরে দাঁড়িয়ে থাকে। লেবুখালী ফেরি পার হলে বাসটি শিমুলতলা পৌঁছলে সাইফুল সহ বেল্লালকে খোঁজতে থাকে। এসময় নলছিটি থানা পুলিশ এস.আই নাসির উদ্দিন উপস্থিত হন। কিন্তু সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আটকের মত ভূমিকা রাখেন নি তিনি। বাসে থাকা শিক্ষার্থী ও শিক্ষকরা সন্ত্রাসীদের বাঁধা দিলেও তাদের উপর পুলিশের সামনে চালায় সন্ত্রাসীরা। হামলার ঘটনা ভিডিও ধারন করায় তিন শিক্ষার্থীর মোবাইল কেড়ে নেয় সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় শিক্ষার্থীরা উপস্থিত এস.আই নাসিরের কাছে সাহায্য চায়লে শিক্ষার্থীদের বলেন আমি কি আপনদের চাকরী করতে এসেছি। আমি আপনাদের চাকরী করিনা। উপায়অন্ত না পেয়ে বাসা থাকা অপর এক শিক্ষার্থী নলছিটি থানার ইনচার্জ সাখাওয়াত হোসেনকে ফোন করে। এস.আই নাসিরের ভূমিকার বিষয় অবহিত করেন। পরে ওসি, এস.আই নাসিরকে ফোন করে। ঐ সন্ত্রাসীদের পিটিয়ে সরিয়ে দিতে বলেন। ফোন রাখার পরে উল্টো শিক্ষার্থীদের উপর লাঞ্চিত করে এস.আই নাসির উদ্দিন। স্থানীয়রা উপস্থিত হয়ে সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষা করে বাস উঠিয়ে বরিশালে পাঠিয়ে দেন। তাৎক্ষনিক হামলাকারীদের নাম জানা যায় নি বলে জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। বরিশাল জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক বরিশাল ল কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ইকবাল আক্তারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন বিষয়টি খুব দুঃখজনক। সামান্য একটি বিষয় নিয়ে শিক্ষকরা উপস্থিত থাকাকালীন বাস আটকিয়ে এ ঘটনা মেনে নেওয়ার মত নয়। তিনি আরো বলেন এই ঘটনায় তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ঐ ছাত্রের ছাত্রত্ব বাতিল করা সহ শাস্তির নিশ্চিত আশ্বাস দেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar