ঢাকা ০৩:০৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২০ অগাস্ট ২০২২, ৪ ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
কুমিল্লায় প্রাইভেটকারের গ্যাস সিলিন্ডার ভিতরে ফেন্সিডিল বহনকালে আটক এক ঢাকার আশুলিয়ায় সাংবাদিক মাসুদ রানার উপর হামালাকারীদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ। ঢাকার আশুলিয়াতে পুলিশকে মিথ্যা ও বিভ্রান্তকর তথ্য দিয়ে হয়রানি কমলগঞ্জ আদমপুরে, নববধূর আত্নহত্যা নাকি পরিকল্পিতো হত্যা। আজ কুমিল্লায় জাতীয় ভোক্তা অ‌ধিকার সংরক্ষণ অ‌ধিদপ্ত‌রের অভিযান দুমকিতে ঝড়ের আঘাতে স্কুল ঘর লন্ডভন্ড গজারিয়াবাসী ২০ বছরে ফুলদী নদীতে সেতু পায়নি মতলব উত্তরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকী ও ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালিত ১৫ আগস্টের ইতিহাস ভুলে গেলে জাতি ফের পথভ্রষ্ট হবে ——— প্রতিমন্ত্রী ড.শামসুল আলম “বাংলাদেশে ‘ফিফা বিশ্বকাপ ২০২২’ সম্প্রচারের স্বত্ব পেয়েছে টি স্পোর্টস” গ্লোবাল টেলিভিশনের আশুলিয়া প্রতিনিধি মাসুদ রানার উপর সন্ত্রাসী হামলা

পাহাড়পুরে অশান্তির দাবানলে শান্তির সুবাতাস সৃষ্টি করলেন এসপি তানভীর আরাফাত

মোহাম্মদ রফিক, কুুষ্টিয়া:  কুষ্টিয়ার মিরপুরের পাহাড়পুর গ্রামে একটি মৃত্যুকে কেন্দ্র করে বিবাবদমান দু’টি গ্রপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক দ্বন্দ্ব  শেষ পর্যন্ত সংঘাত-সংঘর্ষে রুপ নেয়। চাপা উত্তেজনায় গ্রামের সাধারণ মানুষের চোখের ঘুম হারাম হয়ে যায়। এই নিদ্রাহীন মানুষের মাঝে শান্তির ঘুম ফিরিয়ে দিতে, গ্রাামের অন্ত্যজ জনগোষ্ঠীর মাাঝে চলমান অশান্তির দাবানলে প্রকৃত শান্তির সুবাতাস সৃষ্টি করলেন কুষ্টিয়ার সৎ ও সাহসী পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার)।
গতকাল পাহাড়পুর গ্রামে শান্তি সমাবেশ যেন মহাসমাবেশে রুপ নেয়। গ্রামের খেটে খাওয়া বিভিন্ন বয়সী মানুষের জমায়েত। নারী, পুরুষ, কিশোর-যুবকের পদভারে উচ্ছাসে পরিণত হয় শান্তি সমাবেশ। গ্রামের আশি বছর বয়সী রমিজ উদ্দিন বলেন, বাবা হাফ ছেড়ে বাঁচলাম। আর ক’দিনই বা বাঁচবো। গ্রামের অশান্তিতে কেউ মারা গেলে এক গ্রপ মাটি দিতে যায়, আরেক গ্রপ আসেনা। আমি আল্লাহর কাছে দোয়া করেছি আল্লাহ এই অবস্থায় আমার মৃত্যু দিওনা। গ্রামের মানুষের কারও মাটি পাবো, কারও পাবো না। আজ এই শান্তি সমাবেশের মধ্য দিয়ে আমাদের গ্রামে আবার একতা হলো। শান্তি ফিরে এলো। এরজন্যে এসপি স্যারকে ধন্যবাদ জানাই। ৬০ বছর বয়সী ওলেজান বেওয়া বলেন, আল্লাহ এই গ্রামের উপর রহম করেছে। তাই শান্তি মিটিং হচ্ছে। পুলিশ বাবাজীদের জন্য অনেক দোয়া করছি। এক পাড়ার মানুষ আরেক পাড়ায় যেতে পারিনি। কি যে কষ্ট বাবা তা আর বুঝাতে পারবোনা। এই বলে বুড়ি আকাশের দিকে দু’হাত তুলে প্রার্থনা করতে থাকে।
গতকাল বিকেল সাড়ে ৪ টায় পাহাড়পুরে গ্রামবাসীদের নিয়ে পাহাড়পুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে মিরপুর উপজেলা কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের উদ্যোগে শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন শান্তির দূত পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার)। বিশেষ অতিথি ছিলেন মিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান কামারুল আরেফিন, মিরপুর পৌর মেয়র হাজী এনামুল হক, মিরপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এড. আব্দুল হালিমসহ এলাকার গণ্যমান্য বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। সভাপতিত্ব করেন মিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম।
পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার) বলেন, কিছু নষ্ট মানুষের জন্য সাধারণ মানুষ কষ্ট পাবে তা আমি হতে দেবো না। যারা অশান্তি সৃষ্টি করে তাদের জায়গা এই সমাজে হবে না। তাদের যে জায়গা সেখানে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, আমি কোন অন্যায়ের কাছে মাথা নত করিনি। কোন অপরাধী আমার কাছ থেকে পার পাবে না। তাকে যে কোন মুল্যে এর খেসারত দিতে হবে।
Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

কুমিল্লায় প্রাইভেটকারের গ্যাস সিলিন্ডার ভিতরে ফেন্সিডিল বহনকালে আটক এক

পাহাড়পুরে অশান্তির দাবানলে শান্তির সুবাতাস সৃষ্টি করলেন এসপি তানভীর আরাফাত

আপডেট টাইম ০১:৫৫:৪২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯
মোহাম্মদ রফিক, কুুষ্টিয়া:  কুষ্টিয়ার মিরপুরের পাহাড়পুর গ্রামে একটি মৃত্যুকে কেন্দ্র করে বিবাবদমান দু’টি গ্রপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক দ্বন্দ্ব  শেষ পর্যন্ত সংঘাত-সংঘর্ষে রুপ নেয়। চাপা উত্তেজনায় গ্রামের সাধারণ মানুষের চোখের ঘুম হারাম হয়ে যায়। এই নিদ্রাহীন মানুষের মাঝে শান্তির ঘুম ফিরিয়ে দিতে, গ্রাামের অন্ত্যজ জনগোষ্ঠীর মাাঝে চলমান অশান্তির দাবানলে প্রকৃত শান্তির সুবাতাস সৃষ্টি করলেন কুষ্টিয়ার সৎ ও সাহসী পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার)।
আরো পড়ুন : কুষ্টিয়া জেলা প্রাাণিসম্পদ কর্মকর্তার তদারকিতে বদলে গেল পশু হাসপাতালের চিত্র
গতকাল পাহাড়পুর গ্রামে শান্তি সমাবেশ যেন মহাসমাবেশে রুপ নেয়। গ্রামের খেটে খাওয়া বিভিন্ন বয়সী মানুষের জমায়েত। নারী, পুরুষ, কিশোর-যুবকের পদভারে উচ্ছাসে পরিণত হয় শান্তি সমাবেশ। গ্রামের আশি বছর বয়সী রমিজ উদ্দিন বলেন, বাবা হাফ ছেড়ে বাঁচলাম। আর ক’দিনই বা বাঁচবো। গ্রামের অশান্তিতে কেউ মারা গেলে এক গ্রপ মাটি দিতে যায়, আরেক গ্রপ আসেনা। আমি আল্লাহর কাছে দোয়া করেছি আল্লাহ এই অবস্থায় আমার মৃত্যু দিওনা। গ্রামের মানুষের কারও মাটি পাবো, কারও পাবো না। আজ এই শান্তি সমাবেশের মধ্য দিয়ে আমাদের গ্রামে আবার একতা হলো। শান্তি ফিরে এলো। এরজন্যে এসপি স্যারকে ধন্যবাদ জানাই। ৬০ বছর বয়সী ওলেজান বেওয়া বলেন, আল্লাহ এই গ্রামের উপর রহম করেছে। তাই শান্তি মিটিং হচ্ছে। পুলিশ বাবাজীদের জন্য অনেক দোয়া করছি। এক পাড়ার মানুষ আরেক পাড়ায় যেতে পারিনি। কি যে কষ্ট বাবা তা আর বুঝাতে পারবোনা। এই বলে বুড়ি আকাশের দিকে দু’হাত তুলে প্রার্থনা করতে থাকে।
গতকাল বিকেল সাড়ে ৪ টায় পাহাড়পুরে গ্রামবাসীদের নিয়ে পাহাড়পুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে মিরপুর উপজেলা কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের উদ্যোগে শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন শান্তির দূত পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার)। বিশেষ অতিথি ছিলেন মিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান কামারুল আরেফিন, মিরপুর পৌর মেয়র হাজী এনামুল হক, মিরপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এড. আব্দুল হালিমসহ এলাকার গণ্যমান্য বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। সভাপতিত্ব করেন মিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম।
পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার) বলেন, কিছু নষ্ট মানুষের জন্য সাধারণ মানুষ কষ্ট পাবে তা আমি হতে দেবো না। যারা অশান্তি সৃষ্টি করে তাদের জায়গা এই সমাজে হবে না। তাদের যে জায়গা সেখানে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, আমি কোন অন্যায়ের কাছে মাথা নত করিনি। কোন অপরাধী আমার কাছ থেকে পার পাবে না। তাকে যে কোন মুল্যে এর খেসারত দিতে হবে।