মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ০৭:৫৯ অপরাহ্ন

নুরের ওপর হামলা দুর্ভাগ্যজনক: তোফায়েল আহমেদ

মাতৃভূমির খবর ডেস্কঃ  ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুরের ওপর হামলা দুর্ভাগ্য বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের বর্ষীয়ান নেতা ও ডাকসুর সাবেক ভিপি তোফায়েল আহমেদ। তিনি বলেন, আজ দুর্ভাগ্য এ ধরনের ঘটনা ঘটে। আমি দুঃখিত, বিব্রত এবং লজ্জিত। আমার এ প্রসঙ্গে বলার কিছুই নেই। আজ সোমবার রাজধানীর বনানী কবরস্থানে আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাকের ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে দলের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়।

আরো পড়ুন: রাজীবের মৃত্যুর তদন্ত প্রতিবেদনের সময় আবারো বাড়ল

তোফায়েল বলেন, ছাত্র রাজনীতির বিষয়ে কোনো বক্তব্য দিতে গেলে আমি বিব্রত বোধ করি। আমাদের দিনে মতের ভিন্নতা ছিল, যেমন ১৯৬৯ সালে আমরা সর্বদলীয় ছাত্রসমাজ গঠন করেছিলাম। আমাকে ডাকসুর ভিপি হিসেবে আহ্বায়ক করা হয়েছিল। ছাত্র ইউনিয়ন (মতিয়া), ছাত্র ইউনিয়ন (মেনন), জাতীয় ছাত্র ফেডারেশনের একটা অংশ- আমাদের তো আদর্শের ভিন্নতা ছিল। এক আদর্শ ছিল না, কিন্তু আমরা ১১ দফা কর্মসূচী প্রণয়ন করে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন করে ১৯৬৯ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি বঙ্গবন্ধুকে মুক্ত করে এনেছিলাম।

তিনি আরও বলেন, সমস্ত বাংলাদেশের ছাত্রসমাজ ঐক্যবদ্ধ ছিল। আজ দুর্ভাগ্য এ ধরনের ঘটনা ঘটে, আমি খুবই দুঃখিত, বিব্রত এবং লজ্জিত। এ সমন্ধে বলার আমার কিছু নেই। কিন্তু আমি আমার অতীতের স্মৃতির পাতায় প্রবেশ করে সেই দিনগুলোর কথা যখন আমি মনে করি, জীবনের সেই সোনালী দিন; আমি ব্যথিত-লজ্জিত, এর বেশি আমার কিছু বলার নেই।

ডাকসু ভিপি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর এ সদস্য বলেন, যারা ডাকসুর ভিপি হয় তাদেরও সতর্কতার সঙ্গে চলা উচিত, কথা বলা উচিত। এমন কিছু করা উচিত নয়, যেটাতে প্রতিপক্ষের মনে আঘাত লাগতে পারে৷ ডাকসুর মানে সকলের। আমাকে কেন সর্বদলীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক করা হয়েছিল? কারণ ডাকসু মানে সকলের।

রোববার দুপুর পৌনে ১টায় ডাকসু ভবনে ভিপি নুরুল হক নুর ও তার সহযোগীদের ওপর হামলা হয়। প্রায় আধঘণ্টা চলে মারপিট। এতে ভিপি নুরসহ আহত হন অন্তত ১৫ জন।

হামলার প্রায় এক ঘণ্টা পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রাব্বানী ভিপি নুরুল হক নুর ও তার সহযোগীদের ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার করেন। পরে চিকিৎসার জন্য তাদেরকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়।

ঢাকার আসন্ন সিটি করপোরেশনে মেয়র পদে কাকে নৌকায় মনোনয়ন দেওয়া হবে জানার জন্য অপেক্ষার পরামর্শ দিয়ে এ সময় দলটির স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ডের প্রভাবশালী এ সদস্য বলেন: এখনো সময় আছে৷ এখনই বলতে পারবো না৷ আগে আমাদের দলের সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্ব আমাদের মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে, সেখানেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে কাকে মনোনয়ন দেওয়া হবে।

আগামী ৩০ জানুয়ারি ঢাকা উত্তর এবং দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। রোববার এই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন।

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar