ঢাকা ০৭:২৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
কুষ্টিয়ায় আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস পালন প্রতিবন্ধীকতাকে জয় করে অনেকেই সফলতা লাভ করেছেন ……ডিসি মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম সম্ভাবনাময় পর্যটন স্পট চর হেয়ার ও সোনারচর। ২ জন অতিরিক্ত পুলিশ সুপারকে বিদায় সংবর্ধনা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন টঙ্গী পূর্ব এবং পশ্চিম থানা । সম্মেলনের নামে আওয়ামী লীগকে ভয় দেখিয়ে লাভ নেই,,,,,,, ফারুক খান।। বিএনপি- জামায়াতের নৈরাজ্য ঠেকাতে প্রস্তুত আছি- আসিফ আহম্মেদ আনিস মালদ্বীপে আলোকিত চাঁদপুর সংগঠনের সংবর্ধনায় কাজী হাবিবুর রহমান লাঠি খেলা উৎসব ২০২২ উপলক্ষে সাংবাদিক সম্মেলন পুলিশের মবিলাইজেশন কন্টিনজেন্টের বার্ষিক মহড়ার উদ্বোধন কমলগঞ্জে দোকানে চুরি, ১১ চোরাই মোবাইলসহ গ্রেফতার ১ বাকেরগঞ্জে পুলিশের বিশেষ অভিযানে গ্রেপ্তার-৩

না ফেরার দেশে চলে গেলেন জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার মোশারফ রুবেল

( আবুল বারাকাত , বিশেষ প্রতিনিধি )

বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেট খেলোয়াড় মোশাররফ রুবেল আর নেই (৩৯)। (ইন্না লিল্লাহী ওয়া ইন্না ইলাইহী রাজিউন)মঙ্গলবার বিকেলে নিজ বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন তিনি। প্রায় তিন বছর ধরে ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত ছিলেন জাতীয় দলের এ বাঁহাতি স্পিনার।

মঙ্গলবার বিকেলে নিজ বাসভবনে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। প্রায় তিন বছর ধরে ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত ছিলেন জাতীয় দলের এ বাঁহাতি স্পিনার।

একই দিনে দুই সাবেক ক্রিকেটারকে হারালো বাংলাদেশ। মঙ্গলবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন বাংলাদেশ দলের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা সামিউর রহমান সামি।

গত বছরের অক্টোবরে শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় আইসিউইতে নেওয়া হয়েছিল ক্রিকেটার মোশাররফ হোসেন রুবেলকে। সেখান থেকে সুস্থ হয়ে ফিরে চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে যান তিনি। সবশেষ গত ২০ ফেব্রুয়ারি ভারত থেকে ডাক্তার দেখিয়ে আসেন। তবে দেশে ফিরে আবার বেশি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এজন্য কিছুদিন পর আবার হাসপাতালের আইসিউইতে নেওয়া হয় রুবেলকে।

২০১৯ সালে মস্তিষ্কে টিউমার ধরা পড়লে মাঠ থেকে ছিটকে পড়েন রুবেল। চিকিৎসা নিয়ে প্রায় সেরে উঠলেও নতুন করে টিউমার ধরা পড়ে তার মস্তিষ্কে। নতুন করে টিউমার ধরা পড়ায় শঙ্কায় পড়ে যায় রুবেলের জীবন। জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে থাকা এই ক্রিকেটার সিঙ্গাপুরে গিয়ে চিকিৎসা করান।

অন্যদিকে দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকা সামি স্বাভাবিক চলাফেরা ও করতে পারছিলেন না। শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটায় তাকে ইবনে সিনা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছিল। সামিউর রহমান সামি ব্রেইল টিউমারের পাশাপাশি হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোক জনিত জটিলতায়ও ভুগছিলেন।

সামিউর রহমান সামি বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের এক উজ্জ্বল নক্ষত্রের নাম। প্রখ্যাত ক্রীড়া পরিবারের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। আইসিসি ট্রফিতে বাংলাদেশের প্রথম সেঞ্চুরিয়ান ইউসুফ রহমান বাবুর ছোট ভাই সামি। তাদের বড় ভাই জিল্লুর রহমান সত্তর ও আশির দশকে ঢাকাই বাস্কেটবলের নামি তারকা।

৭০ ও ৮০’র দশকে ইউসুফ বাবু আর সামিউর রহমান সামি দুই ভাই একসঙ্গে আইসিসি ট্রফি খেলেছেন বাংলাদেশের হয়ে। ১৯৮৬ সালে শ্রীলঙ্কার মাটিতে সর্বপ্রথম এশিয়া কাপে পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার সঙ্গে একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে অংশ নেয় বাংলাদেশ। সামিউর রহমান সামি ওই দুই ম্যাচেই বাংলাদেশের বোলিং উদ্বোধন করেন।

ক্রিকেটার মোশারফ রুবেল এবং সামিউর রহমান সামীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছি এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি। হে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন আপনি মরহুম ক্রিকেটারদ্বয়কে জান্নাতুল ফেরদৌসের মেহমান হিসেবে কবুল করুন।

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

কুষ্টিয়ায় আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী দিবস পালন প্রতিবন্ধীকতাকে জয় করে অনেকেই সফলতা লাভ করেছেন ……ডিসি মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম

না ফেরার দেশে চলে গেলেন জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেটার মোশারফ রুবেল

আপডেট টাইম ০৫:২৮:০১ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ এপ্রিল ২০২২

( আবুল বারাকাত , বিশেষ প্রতিনিধি )

বাংলাদেশ জাতীয় দলের সাবেক ক্রিকেট খেলোয়াড় মোশাররফ রুবেল আর নেই (৩৯)। (ইন্না লিল্লাহী ওয়া ইন্না ইলাইহী রাজিউন)মঙ্গলবার বিকেলে নিজ বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন তিনি। প্রায় তিন বছর ধরে ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত ছিলেন জাতীয় দলের এ বাঁহাতি স্পিনার।

মঙ্গলবার বিকেলে নিজ বাসভবনে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। প্রায় তিন বছর ধরে ব্রেইন টিউমারে আক্রান্ত ছিলেন জাতীয় দলের এ বাঁহাতি স্পিনার।

একই দিনে দুই সাবেক ক্রিকেটারকে হারালো বাংলাদেশ। মঙ্গলবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে না ফেরার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন বাংলাদেশ দলের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলা সামিউর রহমান সামি।

গত বছরের অক্টোবরে শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় আইসিউইতে নেওয়া হয়েছিল ক্রিকেটার মোশাররফ হোসেন রুবেলকে। সেখান থেকে সুস্থ হয়ে ফিরে চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে যান তিনি। সবশেষ গত ২০ ফেব্রুয়ারি ভারত থেকে ডাক্তার দেখিয়ে আসেন। তবে দেশে ফিরে আবার বেশি অসুস্থ হয়ে পড়েন। এজন্য কিছুদিন পর আবার হাসপাতালের আইসিউইতে নেওয়া হয় রুবেলকে।

২০১৯ সালে মস্তিষ্কে টিউমার ধরা পড়লে মাঠ থেকে ছিটকে পড়েন রুবেল। চিকিৎসা নিয়ে প্রায় সেরে উঠলেও নতুন করে টিউমার ধরা পড়ে তার মস্তিষ্কে। নতুন করে টিউমার ধরা পড়ায় শঙ্কায় পড়ে যায় রুবেলের জীবন। জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে থাকা এই ক্রিকেটার সিঙ্গাপুরে গিয়ে চিকিৎসা করান।

অন্যদিকে দীর্ঘদিন অসুস্থ থাকা সামি স্বাভাবিক চলাফেরা ও করতে পারছিলেন না। শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটায় তাকে ইবনে সিনা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছিল। সামিউর রহমান সামি ব্রেইল টিউমারের পাশাপাশি হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোক জনিত জটিলতায়ও ভুগছিলেন।

সামিউর রহমান সামি বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসের এক উজ্জ্বল নক্ষত্রের নাম। প্রখ্যাত ক্রীড়া পরিবারের অন্যতম সদস্য ছিলেন তিনি। আইসিসি ট্রফিতে বাংলাদেশের প্রথম সেঞ্চুরিয়ান ইউসুফ রহমান বাবুর ছোট ভাই সামি। তাদের বড় ভাই জিল্লুর রহমান সত্তর ও আশির দশকে ঢাকাই বাস্কেটবলের নামি তারকা।

৭০ ও ৮০’র দশকে ইউসুফ বাবু আর সামিউর রহমান সামি দুই ভাই একসঙ্গে আইসিসি ট্রফি খেলেছেন বাংলাদেশের হয়ে। ১৯৮৬ সালে শ্রীলঙ্কার মাটিতে সর্বপ্রথম এশিয়া কাপে পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার সঙ্গে একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে অংশ নেয় বাংলাদেশ। সামিউর রহমান সামি ওই দুই ম্যাচেই বাংলাদেশের বোলিং উদ্বোধন করেন।

ক্রিকেটার মোশারফ রুবেল এবং সামিউর রহমান সামীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছি এবং শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি। হে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন আপনি মরহুম ক্রিকেটারদ্বয়কে জান্নাতুল ফেরদৌসের মেহমান হিসেবে কবুল করুন।