ঢাকা ০১:৪৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১২ আশ্বিন ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
হানিমুনে এসে স্বামীকে পিটিয়ে উধাও নববধূঃ প্রেমিকসহ গ্রেফতার এক ইলিশের দাম ৫ হাজার কলাপাড়ায় গাঁজাসহ ৪ জন গ্রেফতার প্রবাসে কাজের সন্ধানে গিয়ে প্রবাসীর মৃত্যু , তিন মাসপর নিজ বাড়িতে দাফন পটুয়াখালী জেলা শাখার সোনালী অতীত ক্লাবের পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত দুর্গাপূজায় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রতি নির্দেশ আইজিপির অবৈধ দখল বাজদের দখলে বাকেরগঞ্জের পৌর শহরের বুক চিরে বয়ে যাওয়া শ্রীমন্ত নদীর দু পাশ প্রধানমন্ত্রীর ৭৬ তম জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানিয়েছন সোনারগাঁয়ে কাঁচপুরে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্মী সভা ও সদস্য সংগ্রহ বাকেরগঞ্জে সোশাল ইসলামি ব্যাংকের ১৪৩ তম শাখা উদ্ভোধন

দুমকিতে ডাক্তারের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ – ফেসবুকে তোলপাড়

দুমকি (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর দুমকিতে মেডিকেয়ার ডায়াগনস্টিক ক্লিনিকের পার্টটাইম ও পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মরত ডা: মোঃ নাসির উদ্দিনের বিরুদ্ধে “স্যার না বলে ভাই ডাকায়” লাঞ্ছিতের অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। অভিযোগকারী সূত্রে জানা গেছে, রোববার দুপুরে ইয়াসমিন বাহার (৪৫) দুমকি মেডিকেয়ার ডায়াগনস্টিক ক্লিনিকে আল্টাসনোগ্রাফ পরীক্ষা করানোর জন্য গেলে রিসিপশন থেকে জানানো হয় আধা ঘন্টা পরে ডাক্তার আসবে, ভিকটিম ব্যক্তিগত কাজ সেরে আধা ঘন্টা পরে পুনরায় ক্লিনিকে গিয়ে রিসিভসন কাউন্টারে কোন লোক দেখতে না পেয়ে পাশের ৩ নম্বর কক্ষে লোক দেখতে পেয়ে জিজ্ঞেস করেন ভাইয়া ডাক্তার কখন আসবেন। এতে কোনো উত্তর না পেয়ে তিনি পুনরায় জিজ্ঞেস করেন ডাক্তার কখন আসবেন। ভিতরে থাকা ডা: নাসির উদ্দিন (৫০) বলেন এই মহিলা ভাইয়া কিসের ? আপনি স্যার বললেন না কেন? আমি বললাম (ভিকটিম) আমি তো কাউকে চিনি না ভাই। এতে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে অকথ্য ভাষায় বললেন ফালতু মহিলা কোথাকার এখান থেকে বের হয়ে যান, অসভ্য মহিলা অসভ্যতামি করার জায়গা এটা নয়, বের হয়ে যান এখান থেকে নইলে গলা ধাক্কা দিয়ে বের করে দিব। অভিযোগকারী প্রতিবাদ করলে চিৎকার করে ডাক্তার গায়ে হাত তোলার জন্য এগিয়ে আসেন। উপস্থিত জনতা তাকে শান্ত করার চেষ্টা করলে জনমের শিক্ষা দিবে বলে হুমকি প্রদান করেন এবং দ্রুত গতিতে কক্ষ থেকে বের হয়ে যান।
এব্যাপারে ডা: নাসির উদ্দিন এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি ঐ ধরনের কোনো গালমন্দ তাকে করিনি, আমার গতকাল ক্লিনিকে ডিউটি না থাকায় জরুরি কাজে ওখানে গিয়েছিলাম। তিনি আমাকে আল্টাসনোগ্রাফ করিয়ে দেয়ার কথা বললে আমি তাকে রিসিপশনে যোগাযোগ করতে বলায় ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে দেখিয়ে নেবে বলে ডাক চিৎকার শুরু করেন এবং লোকজন জড়ো করেন আমি অন্য উপায় না পেয়ে লজ্জায় ক্লিনিক থেকে বেরিয়ে যাই।
এ ব্যাপারে দুমকি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আব্দুস সালাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযোগের তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।#

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

হানিমুনে এসে স্বামীকে পিটিয়ে উধাও নববধূঃ প্রেমিকসহ গ্রেফতার

দুমকিতে ডাক্তারের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ – ফেসবুকে তোলপাড়

আপডেট টাইম ০২:০৫:৫৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ অগাস্ট ২০২২

দুমকি (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর দুমকিতে মেডিকেয়ার ডায়াগনস্টিক ক্লিনিকের পার্টটাইম ও পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মরত ডা: মোঃ নাসির উদ্দিনের বিরুদ্ধে “স্যার না বলে ভাই ডাকায়” লাঞ্ছিতের অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। অভিযোগকারী সূত্রে জানা গেছে, রোববার দুপুরে ইয়াসমিন বাহার (৪৫) দুমকি মেডিকেয়ার ডায়াগনস্টিক ক্লিনিকে আল্টাসনোগ্রাফ পরীক্ষা করানোর জন্য গেলে রিসিপশন থেকে জানানো হয় আধা ঘন্টা পরে ডাক্তার আসবে, ভিকটিম ব্যক্তিগত কাজ সেরে আধা ঘন্টা পরে পুনরায় ক্লিনিকে গিয়ে রিসিভসন কাউন্টারে কোন লোক দেখতে না পেয়ে পাশের ৩ নম্বর কক্ষে লোক দেখতে পেয়ে জিজ্ঞেস করেন ভাইয়া ডাক্তার কখন আসবেন। এতে কোনো উত্তর না পেয়ে তিনি পুনরায় জিজ্ঞেস করেন ডাক্তার কখন আসবেন। ভিতরে থাকা ডা: নাসির উদ্দিন (৫০) বলেন এই মহিলা ভাইয়া কিসের ? আপনি স্যার বললেন না কেন? আমি বললাম (ভিকটিম) আমি তো কাউকে চিনি না ভাই। এতে তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে অকথ্য ভাষায় বললেন ফালতু মহিলা কোথাকার এখান থেকে বের হয়ে যান, অসভ্য মহিলা অসভ্যতামি করার জায়গা এটা নয়, বের হয়ে যান এখান থেকে নইলে গলা ধাক্কা দিয়ে বের করে দিব। অভিযোগকারী প্রতিবাদ করলে চিৎকার করে ডাক্তার গায়ে হাত তোলার জন্য এগিয়ে আসেন। উপস্থিত জনতা তাকে শান্ত করার চেষ্টা করলে জনমের শিক্ষা দিবে বলে হুমকি প্রদান করেন এবং দ্রুত গতিতে কক্ষ থেকে বের হয়ে যান।
এব্যাপারে ডা: নাসির উদ্দিন এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমি ঐ ধরনের কোনো গালমন্দ তাকে করিনি, আমার গতকাল ক্লিনিকে ডিউটি না থাকায় জরুরি কাজে ওখানে গিয়েছিলাম। তিনি আমাকে আল্টাসনোগ্রাফ করিয়ে দেয়ার কথা বললে আমি তাকে রিসিপশনে যোগাযোগ করতে বলায় ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে দেখিয়ে নেবে বলে ডাক চিৎকার শুরু করেন এবং লোকজন জড়ো করেন আমি অন্য উপায় না পেয়ে লজ্জায় ক্লিনিক থেকে বেরিয়ে যাই।
এ ব্যাপারে দুমকি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আব্দুস সালাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অভিযোগের তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।#