মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৮:৫৩ অপরাহ্ন

ডিএনএ নমুনা দিতে হাসপাতালে রোহানের মা-ও

মাতৃভূমির খবর ডেস্ক :  পুরান ঢাকার চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ২২ জনের লাশ শনাক্ত করা যায়নি। নিখোঁজ অনেকের খোঁজ মেলেনি। নিখোঁজদের স্বজনেরা আজ শুক্রবার এসেছেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে। পরিচয়হীন ২২টি লাশ বিভিন্ন হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বেলা ১১টা থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে লাশের সন্ধানে আসা স্বজনদের ডিএনএ পরীক্ষা শুরু করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) ক্রাইম সিন টিম। এর অংশ হিসেবে স্বজনদের রক্তের নমুনা নেওয়া হচ্ছে । ছেলের ছবি হাতে রোহানের মা ডিএনএর নমুনা দিতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এসেছেন।

মর্গের সামনে ঢাকা জেলা প্রশাসনের তথ্যকেন্দ্র থেকে জানা গেছে, চারজনের লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে রয়েছে। ১৫ জনের লাশ জাতীয় হৃদ্‌রোগ ইনস্টিটিউটে, তিনজনের লাশ কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল এবং মিটফোর্ড হাসপাতালে রাখা হয়েছে। এসব লাশের নমুনা সংরক্ষণ করা হয়েছে।

সিআইডির সহকারী ডিএনএ অ্যানালিস্ট নুসরাত ইয়াসমিন বলেন, লাশ শনাক্ত করতে বেশ সময় লাগতে পারে। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, যাঁরা লাশের সন্ধানের জন্য এসেছেন তাঁদের বাবা, মা, স্ত্রী, সন্তানদের রক্তের নমুনা রাখব। যদি তাঁরা না আসেন তাহলে ভাইবোনদের নমুনা রাখা হবে। তবে পুরো বিষয়টির জন্য সময় লাগবে ৭ থেকে ২১ দিন।

নিখোঁজদের সন্ধানে আজও অনেকে মর্গের সামনে এসেছেন। তাঁদের কান্নায় ভারী হয়ে উঠেছে পুরো এলাকা।

সোলায়মান (৩০) নামের এক যুবকের সন্ধানে এসেছেন তাঁর ভাই বোন ও বন্ধুরা।

সোলায়মানের বন্ধু শফিকুল ইসলাম বলেন, সোলায়মান চকবাজারের ওয়াহেদ ম্যানশনের সামনে ভ্যানে করে মাছের বড়া বিক্রি করতেন। ঘটনার আগে বিকেলে তাঁর সঙ্গে আমার দেখা হয়। কিন্তু রাতের পর এখনও খোঁজ মেলেনি।

পোড়া ও দগ্ধ লাশের পরিচয় জানা বেশ দুরূহ বলে জানান বিশেষজ্ঞরা। বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের প্রধান সমন্বয়ক সামন্ত লাল সেন প্রথম আলোকে বলেন, লাশগুলো এমনভাবে পুড়ে গেছে যে, কঙ্কালের মতো হয়েছে। সেক্ষেত্রে ডিএনএ পরীক্ষা করাতে হয়। পুড়ে যাওয়া লাশের চেহারাও চেনা যায় না। কেমিক্যালের মতো দাহ্য পদার্থে পুড়ে গেলে বিষয়টি আরও কঠিন হয়ে যায়।

ঢাকার অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার সেলিম রেজা বলেছেন তাঁরা ৬৭ জনের লাশ পেয়েছেন। এর আগে শিল্প মন্ত্রণালয়ের প্রাথমিক তদন্ত প্রতিবেদনে নিহতের সংখ্যা ৭৮ জন উল্লেখ করা হয়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক বাচ্চু মিয়া বলেন, এখন পর্যন্ত ৪৫ জনের লাশ শনাক্ত করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

গত বুধবার রাত ১০টার পরেই চকবাজারে চুড়িহাট্টা এলাকায় আগুন লাগে। আগুন ছড়িয়ে পড়ে বেশ কয়েকটি ভবনে। অগ্নিকাণ্ডের সময় বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়।

সূত্র : প্রথমআলো

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar