ঢাকা ১১:৩৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ মে ২০২২, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
জাকের ভাই নাটকে সাংবাদিক চরিত্রে এড. উত্তম *অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসার্স‌‌‌ কল্যাণ সমিতির এজিএম অনুষ্ঠিত* মালদ্বীপের বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে প্রবাসীদের বর্ষবরণ ও ঈদ পৃর্নমিলন উদযাপন ঝড়ে লন্ডভন্ড নড়াইলের একটি মাদ্রাসা কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মজয়ন্তী উদযাপন কুসিক নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ পেলেন যারা সিলেটের বন‍্যার্তদের পাশে বঞ্চিত নারী ও শিশু অধিকার ফাউন্ডেশন টাঙ্গাইলের ঘাটাইল থানা আকস্মিক পরিদর্শনে পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার গজারিয়ায় মাদক, সন্ত্রাস,জঙ্গীবাদ ইভটিজিং, বাল্যবিবাহ,প্রতিরোধে বিট পুলিশের সভা অনুষ্ঠিত।

জেনে নিন, চুলের যত্ন নিতে যা করবেন

মাতৃভূমির খবর ডেস্ক :  সারা বছর জুড়ে চুলে লেগে থাকে কোন না কোন সমস্যা। বিশেষ করে শীতকালে এই সমস্যা আরো বেশি বৃদ্ধি পায়। সারা দিন ব্যস্ততার মাঝে চুলের যত্ন নেওয়ার সময় থাকে না বললেই চল। তবে একটু সচেতন থাকলে সহজেই এড়াতে পারেন চুলের সমস্যা। মেনে চলতে পারেন কিছু টিপসও।

চুলের সমস্যা থেকে নিজেকে দূরে রাখতে নিয়মিত কাটতে হবে চুলের আগা। এতে চুলের শেইপ যেমন থাকবে সুন্দর তেমনি আগা ফেটে যাওয়া কিংবা ভেঙে যাওয়ার সমস্যাও যাবে কমে। সম্ভব হলে প্রতি তিন মাস অন্তর অন্তর অন্তত একবার চুল কাটিয়ে নিন, তাতে চুলের স্বাস্থ্য থাকবে ভালো।

এক মাসে একবার করতে পারেন ডিপ কন্ডিশনিং। আর সেটি করবেন প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে। নারিকেল তেল, অলিভ অয়েল, আমন্ড অয়েল বা সরিষার তেল চুলের পক্ষে খুব ভালো কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করতে পারে। দুই থেকে তিন চামচ তেল গরম করে হালকা ঠাণ্ডা করে নিন। ঈষদুষ্ণ থাকতে থাকতেই তেলটা চুলের গোড়ায় এবং গোটা চুলে ভালো করে মেখে নিন। শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে ঢেকে সারারাত রেখে দিন। পরের দিন শ্যাম্পু করে নেবেন।

সঠিকভাবে চুল আঁচড়াতে হবে। ভেজা চুল আঁচড়াতে যাবেন না তাহলে ভেঙে যেতে পারে চুল। যতটা সম্ভব চুল থেকে পানি ঝরিয়ে নিয়ে তারপর মোটা কাটার চিরুনি দিয়ে জট ছাড়িয়ে নিন। নিচের দিক থেকে আঁচড়াতে শুরু করুন, ধীরে ধীরে উপর দিকে উঠুন।

যাদের চুল কোঁকড়া আর রুক্ষ তারা করতে পারেন প্রি-কন্ডিশনিং। শ্যাম্পু করার আগেই কন্ডিশনার লাগানোর পদ্ধতিই হলো প্রি-কন্ডিশনিং। দারুণ ভালো ফল পেতে পারেন এই পদ্ধতি ব্যবহার করে।

চুলে অতিরিক্ত শ্যাম্পু করবেন না তাহলে চুলের উপরে স্বাভাবিক তেলের আস্তরণ নষ্ট হয়ে যেতে পারে। যার ফলে চুল হয়ে যায় রুক্ষ। সপ্তাহে দুই তিনবারের বেশি শ্যাম্পু করবেন না।চুলের গোঁড়ার পুষ্টি যোগাতে ব্যবহার করতে পারেন ঘরোয়া হেয়ার মাস্ক। নারিকেল তেল, কলা, মেয়নিজ, ডিম, অলিভ অয়েল, অ্যালোভেরা, মধু, টক দই দিয়ে সহজেই বানিয়ে নিতে পারেন রকমারি হেয়ার মাস্ক। চুল খোলা অবস্থায় ঘুমালে বালিশের সঙ্গে ঘষা লেগে চুল উঠে যেতে পারে৷ তাই ঘুমানোর আগে চুল বেঁধে রাখুন।

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

জাকের ভাই নাটকে সাংবাদিক চরিত্রে এড. উত্তম

জেনে নিন, চুলের যত্ন নিতে যা করবেন

আপডেট টাইম ০১:০২:০৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৭ নভেম্বর ২০১৮

মাতৃভূমির খবর ডেস্ক :  সারা বছর জুড়ে চুলে লেগে থাকে কোন না কোন সমস্যা। বিশেষ করে শীতকালে এই সমস্যা আরো বেশি বৃদ্ধি পায়। সারা দিন ব্যস্ততার মাঝে চুলের যত্ন নেওয়ার সময় থাকে না বললেই চল। তবে একটু সচেতন থাকলে সহজেই এড়াতে পারেন চুলের সমস্যা। মেনে চলতে পারেন কিছু টিপসও।

চুলের সমস্যা থেকে নিজেকে দূরে রাখতে নিয়মিত কাটতে হবে চুলের আগা। এতে চুলের শেইপ যেমন থাকবে সুন্দর তেমনি আগা ফেটে যাওয়া কিংবা ভেঙে যাওয়ার সমস্যাও যাবে কমে। সম্ভব হলে প্রতি তিন মাস অন্তর অন্তর অন্তত একবার চুল কাটিয়ে নিন, তাতে চুলের স্বাস্থ্য থাকবে ভালো।

এক মাসে একবার করতে পারেন ডিপ কন্ডিশনিং। আর সেটি করবেন প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে। নারিকেল তেল, অলিভ অয়েল, আমন্ড অয়েল বা সরিষার তেল চুলের পক্ষে খুব ভালো কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করতে পারে। দুই থেকে তিন চামচ তেল গরম করে হালকা ঠাণ্ডা করে নিন। ঈষদুষ্ণ থাকতে থাকতেই তেলটা চুলের গোড়ায় এবং গোটা চুলে ভালো করে মেখে নিন। শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে ঢেকে সারারাত রেখে দিন। পরের দিন শ্যাম্পু করে নেবেন।

সঠিকভাবে চুল আঁচড়াতে হবে। ভেজা চুল আঁচড়াতে যাবেন না তাহলে ভেঙে যেতে পারে চুল। যতটা সম্ভব চুল থেকে পানি ঝরিয়ে নিয়ে তারপর মোটা কাটার চিরুনি দিয়ে জট ছাড়িয়ে নিন। নিচের দিক থেকে আঁচড়াতে শুরু করুন, ধীরে ধীরে উপর দিকে উঠুন।

যাদের চুল কোঁকড়া আর রুক্ষ তারা করতে পারেন প্রি-কন্ডিশনিং। শ্যাম্পু করার আগেই কন্ডিশনার লাগানোর পদ্ধতিই হলো প্রি-কন্ডিশনিং। দারুণ ভালো ফল পেতে পারেন এই পদ্ধতি ব্যবহার করে।

চুলে অতিরিক্ত শ্যাম্পু করবেন না তাহলে চুলের উপরে স্বাভাবিক তেলের আস্তরণ নষ্ট হয়ে যেতে পারে। যার ফলে চুল হয়ে যায় রুক্ষ। সপ্তাহে দুই তিনবারের বেশি শ্যাম্পু করবেন না।চুলের গোঁড়ার পুষ্টি যোগাতে ব্যবহার করতে পারেন ঘরোয়া হেয়ার মাস্ক। নারিকেল তেল, কলা, মেয়নিজ, ডিম, অলিভ অয়েল, অ্যালোভেরা, মধু, টক দই দিয়ে সহজেই বানিয়ে নিতে পারেন রকমারি হেয়ার মাস্ক। চুল খোলা অবস্থায় ঘুমালে বালিশের সঙ্গে ঘষা লেগে চুল উঠে যেতে পারে৷ তাই ঘুমানোর আগে চুল বেঁধে রাখুন।