ঢাকা ০২:৪৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ১৩ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
পবিপ্রবিতে ‘‘চ্যালেঞ্জ এন্ড অপরচুনিটিজ অফ এগ্রিকালচার ইন কোস্টাল এরিয়া অব বাংলাদেশ’’ বিষয়ক ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত কুলাউড়ায় বন্যার্তদের এক লক্ষ টাকা দিলো ব্যাচ ২০০২-০৪। নেএকোনায় , চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এর উদ্যোগে বন্যার্তদের জন্য ত্রাণ বিতরণ। দালাল বাজার ফাতেমা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অভিভাবক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবিগঞ্জে চলছে পোনা মাছ ধরা ও বিক্রির মহোৎসব দেখার যেন কেউ নেই। মতলব উত্তরে স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন অনুষ্ঠান উদযাপন টাঙ্গাইলে সড়ক দূর্ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের মৃত্যু সোনারগাঁয়ে ভুমি কর্মকর্তার যোগসাজসে সরকারী জায়গা দখল করে দোকান নির্মাণ নড়াইলে বালু বোঝাই ট্রলিগাড়ির চাপায় মাদ্রাসা ছাত্র নিহত কুমিল্লার বাঙ্গরা বাজার থানায় ৬ বছরের শিশুকে ধর্ষণে চেষ্টা, গ্রেফতার এক

চলচ্চিত্র পরিচালক মৃণাল সেন আর নেই

ফাইল ছবি

বিনোদন ডেস্ক :  চলে গেলেন কিংবদন্তী পরিচালক মৃণাল সেন। আজ রোববার সকাল সাড়ে দশটার দিকে ভারতের ভবানীপুরে নিজের বাড়িতেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর।

১৪ মে, ১৯২৩ সালে বাংলাদেশের ফরিদপুরে জন্ম মৃণাল সেনের। হাইস্কুলের পড়া শেষ করে কলকাতায় আসেন। পদার্থবিদ্যা নিয়ে স্কটিশ চার্চ কলেজে পড়াশোনা করেন। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। আজীবন বামপন্থায় বিশ্বাসী ছিলেন। কমিউনিস্ট পার্টি অব ইন্ডিয়ার সাংস্কৃতিক কাজকর্মের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। কিন্তু কখনও পার্টির সদস্য হননি তিনি।

১৯৫৫ সালে ‘রাতভোর’ ছবি দিয়ে চলচ্চিত্র জগতে যাত্রা শুরু মৃণাল সেনের। সে ছবিতে অভিনয় করেছিলেন মহানায়ক উত্তম কুমার। প্রথম ছবিতে তেমন সাফল্য না পেলেও পরের ছবি ‘নীল আকাশের নীচে’-তে নিজের জাত চেনান তিনি। এরপর ‘বাইশে শ্রাবণ’ ছবির হাত ধরে আন্তর্জাতিক স্তরে স্বীকৃতি মেলে মৃণাল সেনের। ‘ভুবনসোম’, ‘কোরাস’, ‘মৃগয়া’, ‘অকালের সন্ধানে’, ‘খারিজ’, ‘ক্যালকাটা ৭১’ মতো সিনেমাগুলি চিরকাল সিনেপ্রেমীদের মনের মণিকোঠায় জায়গা করে থাকবে। এই ছবিগুলি জাতীয় পুরস্কার এনে দিয়েছে মৃণাল সেনকে।

১৯৮৩ সালে পদ্মভূষণ সম্মানে ভূষিত করা হয় তাঁকে। ‘দাদাসাহেব ফালকে’ পুরস্কারেও সম্মানিত করা হয় এই পরিচালককে।

২০০২ সালে শেষবার ক্যামেরার পিছনে দাঁড়িয়েছিলেন পরিচালক, ছবির নাম ‘আমার ভুবন’।

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

পবিপ্রবিতে ‘‘চ্যালেঞ্জ এন্ড অপরচুনিটিজ অফ এগ্রিকালচার ইন কোস্টাল এরিয়া অব বাংলাদেশ’’ বিষয়ক ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত

চলচ্চিত্র পরিচালক মৃণাল সেন আর নেই

আপডেট টাইম ০৫:১৬:৩৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮

বিনোদন ডেস্ক :  চলে গেলেন কিংবদন্তী পরিচালক মৃণাল সেন। আজ রোববার সকাল সাড়ে দশটার দিকে ভারতের ভবানীপুরে নিজের বাড়িতেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর।

১৪ মে, ১৯২৩ সালে বাংলাদেশের ফরিদপুরে জন্ম মৃণাল সেনের। হাইস্কুলের পড়া শেষ করে কলকাতায় আসেন। পদার্থবিদ্যা নিয়ে স্কটিশ চার্চ কলেজে পড়াশোনা করেন। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। আজীবন বামপন্থায় বিশ্বাসী ছিলেন। কমিউনিস্ট পার্টি অব ইন্ডিয়ার সাংস্কৃতিক কাজকর্মের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। কিন্তু কখনও পার্টির সদস্য হননি তিনি।

১৯৫৫ সালে ‘রাতভোর’ ছবি দিয়ে চলচ্চিত্র জগতে যাত্রা শুরু মৃণাল সেনের। সে ছবিতে অভিনয় করেছিলেন মহানায়ক উত্তম কুমার। প্রথম ছবিতে তেমন সাফল্য না পেলেও পরের ছবি ‘নীল আকাশের নীচে’-তে নিজের জাত চেনান তিনি। এরপর ‘বাইশে শ্রাবণ’ ছবির হাত ধরে আন্তর্জাতিক স্তরে স্বীকৃতি মেলে মৃণাল সেনের। ‘ভুবনসোম’, ‘কোরাস’, ‘মৃগয়া’, ‘অকালের সন্ধানে’, ‘খারিজ’, ‘ক্যালকাটা ৭১’ মতো সিনেমাগুলি চিরকাল সিনেপ্রেমীদের মনের মণিকোঠায় জায়গা করে থাকবে। এই ছবিগুলি জাতীয় পুরস্কার এনে দিয়েছে মৃণাল সেনকে।

১৯৮৩ সালে পদ্মভূষণ সম্মানে ভূষিত করা হয় তাঁকে। ‘দাদাসাহেব ফালকে’ পুরস্কারেও সম্মানিত করা হয় এই পরিচালককে।

২০০২ সালে শেষবার ক্যামেরার পিছনে দাঁড়িয়েছিলেন পরিচালক, ছবির নাম ‘আমার ভুবন’।