ঢাকা ০৮:৪৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
নবীনগরে ভয়াবহ নদী ভাঙ্গনে চোখের পলকে বাস্তুহারা ৩০ পরিবার, ইউএনওর সহায়তা- নিয়ামতপুরে ইউনিয়ন ছাত্র লীগের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত। হারিয়ে যাওয়া ল্যাপটপ, নগদ ৫০ হাজার টাকা (সিএমপি) চকবাজার থানার পুলিশের সহায়তায় ফিরে পেয়ে আবেগ আপ্লুত, ট্রান্সপোর্ট ব্যবসায়ী ফরহাদ, আনোয়ারার প্রান্তে স্বপ্নের বঙ্গবন্ধু টানেল দেখতে পর্যটকের ভিড় দেখা হলনা হাট পথেই মৃত্যু বেপারীর বিশিষ্ট সাংবাদিক মো. সাইফুল ইসলাম রণি’র ৩৮ তম জন্মদিন আজ ইউএসটিসি ছাত্রদলের ৫ সদস্যের আহবায়ক কমিটির ৩ সদস্যের পদত্যাগ। পবিপ্রবিতে নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনায় উৎপাদিত তেলাপিয়া ও পাঙ্গাস মাছের নিলাম অনুষ্ঠিত টাঙ্গাইলে এনটিভির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন লক্ষ্মীপুরে পুলিশের নায়েক থেকে সহকারী উপ পরিদর্শক হলেন ৬ জন

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য স্থিতিশীল, তাই ছাড়পত্র : বিএসএমএমইউ পরিচালক

মাতৃভূমির খবর ডেস্ক : খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা যথেষ্ট স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানিয়েছেন বিএসএমএমইউ পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হারুন। তিনি বলেন, এজন্যই তাকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় হাসপাতাল থেকে খালেদা জিয়াকে নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানোর পর সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা জানান।

আবদুল্লাহ আল হারুন বলেন, দীর্ঘ এক মাস চিকিৎসার পর খালেদা জিয়াকে ছাড়পত্র দিয়েই কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তাকে এক মাস চিকিৎসা দিতে আমরা চেষ্টার ত্রুটি করিনি। এখন তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। এই স্থিতিশীলতা ইতিবাচক।

তাকে সুস্থ বলা যাবে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘সরাসরি এভাবে বলা যাবে না। তার বার্ধক্যজনিত রোগ আছে। তাই একেবারে সুস্থ বলা যাবে না। তবে তার শারীরিক অবস্থা ইতিবাচক অর্থে স্থিতিশীল। তাকে যথেষ্ট চিকিৎসাসেবা দেয়া হয়েছে।

বিএসএমএমইউ হাসপাতালের পরিচালক বলেন, ‘খালেদা জিয়ার জন্য মেডিকেল বোর্ড গঠন করাই আছে। যেকোনো সময় প্রয়োজন হলে চিকিৎসা নিতে এখানে আসতে পারেন তিনি। আর কারাগারে নিয়মিত চিকিৎসার প্রয়োজন হলে কর্তৃপক্ষ তার ব্যবস্থা করবেন। তার সবগুলো এমআরআই রিপোর্ট সন্তোষজনক, ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা চলবে।’

বিএনপির অভিযোগ খালেদা জিয়াকে মেডিকেলের ছাড়পত্র না দিয়েই কারাগারে পাঠানো হয়েছে- এমন প্রশ্নের জবাবে আবদুল্লাহ আল হারুন বলেন, ছাড়পত্রহীন কি পাঠানো যায়? ছাড়পত্র দিয়েই পাঠানো হয়েছে। প্রয়োজন হলে তাকে আবারও চিকিৎসার জন্য আনা হবে। এটি কারা কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব।

হাইকোর্টের নির্দেশে গত ৬ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের ছয়তলার ৬১২নম্বর কেবিনে ভর্তি করা হয়। তার চিকিৎসার জন্য পাঁচ সদস্যের মেডিকেল বোর্ডও গঠন করা হয়।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেছেন, ছাড়পত্র ছাড়াই খালেদা জিয়াকে বিএসএমএমইউ থেকে জোড় করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে বিএসএমএমইউ পরিচালক বলেন, ছাড়পত্র ছাড়া কি কাউকে হাসপাতাল থেকে ছাড়া হয়?

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

নবীনগরে ভয়াবহ নদী ভাঙ্গনে চোখের পলকে বাস্তুহারা ৩০ পরিবার, ইউএনওর সহায়তা-

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য স্থিতিশীল, তাই ছাড়পত্র : বিএসএমএমইউ পরিচালক

আপডেট টাইম ০২:৪০:০২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৯ নভেম্বর ২০১৮

মাতৃভূমির খবর ডেস্ক : খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা যথেষ্ট স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানিয়েছেন বিএসএমএমইউ পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আব্দুল্লাহ আল হারুন। তিনি বলেন, এজন্যই তাকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় হাসপাতাল থেকে খালেদা জিয়াকে নাজিমউদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানোর পর সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা জানান।

আবদুল্লাহ আল হারুন বলেন, দীর্ঘ এক মাস চিকিৎসার পর খালেদা জিয়াকে ছাড়পত্র দিয়েই কারাগারে পাঠানো হয়েছে। তাকে এক মাস চিকিৎসা দিতে আমরা চেষ্টার ত্রুটি করিনি। এখন তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। এই স্থিতিশীলতা ইতিবাচক।

তাকে সুস্থ বলা যাবে কিনা এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘সরাসরি এভাবে বলা যাবে না। তার বার্ধক্যজনিত রোগ আছে। তাই একেবারে সুস্থ বলা যাবে না। তবে তার শারীরিক অবস্থা ইতিবাচক অর্থে স্থিতিশীল। তাকে যথেষ্ট চিকিৎসাসেবা দেয়া হয়েছে।

বিএসএমএমইউ হাসপাতালের পরিচালক বলেন, ‘খালেদা জিয়ার জন্য মেডিকেল বোর্ড গঠন করাই আছে। যেকোনো সময় প্রয়োজন হলে চিকিৎসা নিতে এখানে আসতে পারেন তিনি। আর কারাগারে নিয়মিত চিকিৎসার প্রয়োজন হলে কর্তৃপক্ষ তার ব্যবস্থা করবেন। তার সবগুলো এমআরআই রিপোর্ট সন্তোষজনক, ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা চলবে।’

বিএনপির অভিযোগ খালেদা জিয়াকে মেডিকেলের ছাড়পত্র না দিয়েই কারাগারে পাঠানো হয়েছে- এমন প্রশ্নের জবাবে আবদুল্লাহ আল হারুন বলেন, ছাড়পত্রহীন কি পাঠানো যায়? ছাড়পত্র দিয়েই পাঠানো হয়েছে। প্রয়োজন হলে তাকে আবারও চিকিৎসার জন্য আনা হবে। এটি কারা কর্তৃপক্ষের দায়িত্ব।

হাইকোর্টের নির্দেশে গত ৬ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের ছয়তলার ৬১২নম্বর কেবিনে ভর্তি করা হয়। তার চিকিৎসার জন্য পাঁচ সদস্যের মেডিকেল বোর্ডও গঠন করা হয়।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেছেন, ছাড়পত্র ছাড়াই খালেদা জিয়াকে বিএসএমএমইউ থেকে জোড় করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে বিএসএমএমইউ পরিচালক বলেন, ছাড়পত্র ছাড়া কি কাউকে হাসপাতাল থেকে ছাড়া হয়?