রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৭:৪৭ পূর্বাহ্ন

কোটচাঁদপুরে শপিং ব্যাগ থেকে নবজাতক উদ্ধার আটক -২

ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার স্বাস্থ কমপ্লেক্সের ভিতরে পরিত্যাক্ত ভবনের পিছন থেকে শপিং ব্যাগ থাকা জীবিত এক নবজাতককে উদ্ধার করা হয়েছে। এলাকাসূত্রে জানা যায়, হাসপাতাল পাড়ার চা ব্যাবসায়ী মনু মিয়ার বোন নাজমা ছাগল খুজতে গিয়ে দেখেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিত্যাক্ত ভবনের পিছনে প্রাচীরের পাশে লাল একটি শপিং ব্যাগ পড়ে আছে।পড়ে থাকা ব্যাগটি নড়া চড়া করছে পরে ব্যাগটি খুলে দেখতে পায় ব্যাগের ভিতরে পলিথিনে মোড়ানো একটি নবজাতক কন্যা শিশু। দেখার পর আতংকিত হয়ে ভাবি নার্গিস বেগম সহ আশপাশের লোকজনকে ডাকেন। নবজাতকটি জীবিত আছে বুঝতে পেরে তাকে কোটচাঁদপুর হাসপাতালে ভর্তি করেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন মহিলা জানান, বাচ্চা পাওয়ার পর আমরা তার মা বাবাকে খুজতে থাকি এক পর্যায়ে তার মা ববিতাকে আয়া রিনার রুমের ভিতর বসে থাকতে দেখি।বাচ্চার মা প্রথমে বলে বাচ্চা আমার না কিন্তু তার শরির থেকে প্রচুর রক্তক্ষরণ হচ্ছিল প্রশ্নের মুখে পড়ে এক পর্যায়ে তিনি বলেন বাচ্চাটি আমার। ঘটনাটি জানাজানি হলে আয়া রিনা খাতুন তার ব্যাক্তিগত আ্যাম্বুলেন্সে করে যশোর পাঠাতে চেয়েছিল কিন্তু জনগনের রসানলে পড়ে আর পাঠাতে পারে না। এদিকে নবজাতককে ফেলে রেখে পালিয়ে যাবার সময় এলাকাবাসী মা-বাবাকে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নবজাতকের বাবা আক্কাস আলীকে পুলিশ হেফাজতে নেয় এবং মাকে কোটচাঁদপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।কোটচাঁদপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ অমিত কুমার নাথ জানান, নবজাতক ও মাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তাদের অবস্থা গুরতর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। যশোরে চিকিৎসারত অবস্তায় বাচ্চাটি মারা যায়। এদিকে হাসপাতালের টি এইচ ও আব্দুর রশীদ পুলিশ ও সাংবাদিকদের জানান বিষয়টি হাসপাতাল কতৃিপক্ষ তদন্ত করে দেখবে। কোটচাঁদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুবুল আলম ঘটনাটি সত্য। তিনি জানান, নজবজাতকের বাবাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে।নবজাতক ও তার মাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় কোটচাঁদপুর হাসপাতালের আয়া রিনা খাতুন জড়িত থাকার অভিযোগে তাকে থানায় এনে জিজ্ঞাসা শেষে মামলার প্রস্তুতি নেয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar