ঢাকা ১১:৫৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ মার্চ ২০২৩, ৮ চৈত্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
সন্ধান চাই বাকেরগঞ্জ বন্দরে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাট, আহত-১ টাঙ্গাইলে এসপি’র কাছে থেকে বিনামূল্যে স্কুল ড্রেস ও চকলেট পেলো সুবিধাবঞ্চিত শিশুরাঠঠআণ টাঙ্গাইলে ডিবি পুলিশের ভুয়া পরিচয়দানকারী ৪ ডাকাত গ্রেফতার “আসলে বিএনপি নেতারা চায় না বেগম খালেদা জিয়া মুক্তি পাক : তথ্যমন্ত্রী “ “অভিনেতা খালেকুজ্জামানের মৃত্যুতে তথ্যমন্ত্রীর শোক বাকেরগঞ্জে সাহান আরা আবদুল্লার রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া-মোনাজাত মুরাদনগরে ড্রেজার মেশিন জব্দসহ ৫শ পাইপ বিনষ্ট দেশের সকল ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন আজ দৃশ্যমান – ড.আবদুস সোবহান গোলাপ,এমপি। মুরাদনগরে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ড্রেজার মেশিন জব্দসহ ৫০০ পাইপ বিশিষ্ট।

কুষ্টিয়ায় পৃথক বন্দুকযুদ্ধে দুই ‘মাদক ব্যবসায়ী’ নিহত

মাতৃভূমির খবর ডেস্ক :  কুষ্টিয়ায় পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ জন নিহত হয়েছে। সদর উপজেলার কবুরহাট এবং দৌলতপুর উপজেলার মুসলিমনগর মঙ্গলবার দিবাগত রাতে এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। পুলিশের দাবি নিহত দুই জনই মাদক ব্যবসায়ী। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য উদ্ধার করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় পুলিশের ছয় সদস্য আহত হয়েছেন।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি নাছির উদ্দিন বলেন, রাত ২টার দিকে কবুরহাটের মাদ্রাসাপাড়া জিকে ক্যানেলের পাশে মাদক চোরাকারবারিদের অবস্থানের খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল সেখান যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যাক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায় এবং তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহতের পরিচয় এখনো জানা যায় নি। তিনি আরো বলেন, ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, দুটি ম্যাগাজিন, ৩ রাউন্ড গুলি ও ৮০০ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

অপরদিকে, দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ দারা খান জানান, রাত তিনটার দিকে দৌলতপুর উপজেলার বাঁধের বাজার এলাকার মুসলিমনগর মাঠে দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে বন্দুকযুদ্ধের খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে অভিযানে যায়।

এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে উদ্ধার করে দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহতের নাম মদন (৪৫)।

তিনি সীমান্তসংলগ্ন জামাল গ্রামের রিফাজ উদ্দিনে ছেলে এবং সীমান্তবর্তী এলাকার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে দৌলতপুর থানাসহ বিভিন্ন থানায় দেড় ডজনেরও বেশি মামলা রয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, তিন রাউন্ড গুলি, নয়শ’ পিস ইয়াবা ও ৩০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে। এই ঘটনায় পুলিশের দুই সদস্য আহত হয়েছেন বলেও জানায় পুলিশ।

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

সন্ধান চাই

কুষ্টিয়ায় পৃথক বন্দুকযুদ্ধে দুই ‘মাদক ব্যবসায়ী’ নিহত

আপডেট টাইম ০৩:২৪:০৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩১ অক্টোবর ২০১৮

মাতৃভূমির খবর ডেস্ক :  কুষ্টিয়ায় পৃথক ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ জন নিহত হয়েছে। সদর উপজেলার কবুরহাট এবং দৌলতপুর উপজেলার মুসলিমনগর মঙ্গলবার দিবাগত রাতে এ ‘বন্দুকযুদ্ধের’ ঘটনা ঘটে। পুলিশের দাবি নিহত দুই জনই মাদক ব্যবসায়ী। ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র, গুলি ও বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য উদ্ধার করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় পুলিশের ছয় সদস্য আহত হয়েছেন।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি নাছির উদ্দিন বলেন, রাত ২টার দিকে কবুরহাটের মাদ্রাসাপাড়া জিকে ক্যানেলের পাশে মাদক চোরাকারবারিদের অবস্থানের খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল সেখান যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালালে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। পরে ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যাক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায় এবং তাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহতের পরিচয় এখনো জানা যায় নি। তিনি আরো বলেন, ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, দুটি ম্যাগাজিন, ৩ রাউন্ড গুলি ও ৮০০ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।

অপরদিকে, দৌলতপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ দারা খান জানান, রাত তিনটার দিকে দৌলতপুর উপজেলার বাঁধের বাজার এলাকার মুসলিমনগর মাঠে দুই দল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে বন্দুকযুদ্ধের খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে অভিযানে যায়।

এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে উদ্ধার করে দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিলে ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। নিহতের নাম মদন (৪৫)।

তিনি সীমান্তসংলগ্ন জামাল গ্রামের রিফাজ উদ্দিনে ছেলে এবং সীমান্তবর্তী এলাকার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে দৌলতপুর থানাসহ বিভিন্ন থানায় দেড় ডজনেরও বেশি মামলা রয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, তিন রাউন্ড গুলি, নয়শ’ পিস ইয়াবা ও ৩০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে। এই ঘটনায় পুলিশের দুই সদস্য আহত হয়েছেন বলেও জানায় পুলিশ।