বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০৪:১৬ পূর্বাহ্ন

কাশ্মীরে কেউ বন্দুক হাতে নিলে মেরে ফেলা হবে

মাতৃভূমির খবর ডেস্ক : দেশের বিরুদ্ধে কাশ্মীরের কেউ হাতে বন্দুক তুলে নিলে তাকে মেরে ফেলা হবে। এ হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ভারতীয় সেনাবাহিনীর লেফটেন্যান্ট জেনারেল কানওয়ালজিৎ সিং ধিলন। তিনি ভারতীয় সেনাবাহিনীর চিনার কোর্পসের কমান্ডার।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর পুলওয়ামায় জঙ্গি হানায় ৪০ জন ভারতীয় আধা সামরিক বাহিনীর সদস্যের মৃত্যু ঘটে গত বৃহস্পতিবার। ওই ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে এই সেনা কর্মকর্তা হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, দয়ামায়ার কোনো প্রশ্ন নেই। আজ মঙ্গলবার শ্রীনগরে জঙ্গিদের উদ্দেশে এই হুমকি দেন। তিনি বলেন, যার হাতেই বন্দুক দেখা যাবে তাকেই মেরে ফেলা হবে যদি সেই ব্যক্তি আত্মসমর্পণ না করেন।

পুলওয়ামার ঘটনার পর কয়েক জঙ্গিকে মেরে ফেলে ভারতীয় বাহিনী। ওই তল্লাশি অভিযানে ভারতীয় এক সেনা কর্তা ছাড়াও তিন জওয়ান মারা যান। নিহত হয় তিন জঙ্গিও, যাদের একজন পাকিস্তানি বলে ভারতীয় বাহিনীর দাবি। সফল ওই তল্লাশি অভিযান শেষ হওয়ার পরেই জঙ্গিদের উদ্দেশে এই হুমকি দেন কানওয়ালজিৎ সিং।

কাশ্মীরি মায়েদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমি আপনাদের সবাইকে অনুরোধ করছি বিপথ চালিত ছেলেদের দেশের মূল স্রোতে ফিরে আসতে বলুন। তাঁদের বোঝান। না হলে যার হাতে বন্দুক দেখা যাবে তাকেই মেরে ফেলা হবে।’ শ্রীনগরে সেনা বাহিনী, সিআরপিএফ ও জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের যৌথ সংবাদ সম্মেলনে কানওয়ালজিৎ সিং আজ এই হুঁশিয়ারি দেন।

জঙ্গিদের পুনর্বাসনের এক প্রকল্প রাজ্যে চালু আছে। অস্ত্র ছেড়ে যাঁরা মূল স্রোতে ফিরে এসেছেন, তাঁদের অভিজ্ঞতা নানাভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। জঙ্গিপনায় আকৃষ্ট না হয়ে যুব সম্প্রদায় যাতে স্বাভাবিক জীবন যাপন করে সে জন্য বিভিন্ন খেলাধুলোয় উৎসাহ জোগানো হচ্ছে। ফুটবলের জাতীয় লীগে চ্যাম্পিয়নশিপের দৌড়ে রয়েছে রিয়েল কাশ্মীর ফুটবল ক্লাব। এই দলের খেলা থাকলে হাজারে হাজারে মানুষ মাঠে আসছেন। দলকে উৎসাহ দিচ্ছেন।

সূত্র : প্রথমআলো

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar