শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০২:৪৭ অপরাহ্ন

কপি সাহদে এখন চাঁদপুর মতলব দক্ষনিরে পৌরসভার অভভিাবক হয়ে বদ্যিুৎ সংযোগরে নামে চাঁদা আদায়রে অভযিোগ

কুমল্লিা তারা নউিজ টভিি মতলব উপজলো প্রতনিধিি মোঃতপছলি হাছানঃ র্দীঘদনি ধরে গত ২০১৭ সালে বদ্যিুৎ সংযোগ দওেয়ার নামে চাঁদপুর মতলব দক্ষণি পৌরসভার ময়ের আওলাদ হোসনে লটিন জল্পনা-কল্পনার মধ্য দযি়ে তনিি ৪ নংওযর়্াডরে চরপাথালযি়া নজি গ্রাম থকেে (২১) জন গ্রাহকরে কাছ থকেে প্রতি মটিার ১৭, হাজার টাকা করে চাঁদা উত্তোলন করা হয় কন্তিু তনি বছর হয়ে গলে বদ্যিুৎ সংযোগ বন্ধ থাকাতে তাতে ক্ষতগ্রিস্থ ঐ গ্রামরে এলাকার মানুষ পছিযি়ে আছে ছলেে সন্তানদরে লখোপড়া। এই নযি়ে ভুক্তভোগীরা চাঁদাবাজ দালালরে খপ্পরে পড়ে আছনে কন্তি  আছে বদ্যিুতরে খুঁটি আছে বদ্যিুতরে তার নইে সংযোগ মটিার ভুক্তভোগীরা ওই সময় বলনে(১) মো:তাফাজ্জল সরদার (৫০) পতিা মৃত: মোজাম্মলে সরদার,(২)স্বপন সরদার (৪৫)পতিা মৃত মুজাম্মলে সরদার (৩)ফারুক সরদার (৩৫) তনি মটিাররে জন্য নগদ টাকা উত্তোলন ৩৯,০০০(৪) আক্তার হোসনে (কালু) পতিা: আব্দুল খালকে মযি়াজী (৫)সোহলে মযি়াজী পতিা:আব্দুল খালকে মযি়াজী, খুঁটরি জন্য পল্লী বদ্যিুৎ অফসিযি়াল (১৫০০০)হাজার টাকা চাঁদা উত্তোলন, বদ্যিুতরে দালাল(৬) মজবিুর রহমান (৪৫)পতিা মৃত:জমর দনি প্রদান (৭) মান্নান প্রদান (৩০)প্রবাসী টলিু ময়িার স্ত্রী অভযিোগ করনে।  ওই গ্রামরে  দনিমজুরি থকেে শুরু করে খটেে খাওয়া মানুষদরে কাছ থকেে ১২ হাজার টাকা থকেে শুরু করে ১৫ হাজার টাকা করে প্রতটিি গ্রাহক দরে কাছ থকেে বদ্যিুৎ সংযোগ নামে দালালরে মাধ্যমে চাদা উত্তোলন করনে পৌর মযে়র কপি সাহদে আরকে নতুন নামে এলো আলহাজ আওলাদ হোসনে (লটিন) ।   গত ২১জুলাই ইং তারখিে সরজেমনিে গযি়ে জানা যায় :মতলব পৌরসভা ৪ নং ওযর়্াডরে চরপাথালযি়া গ্রাম থকে,ে গত র্অথবছর,ে২০১৭,ইং হইতে ২০২০ সালে অবধৈ চাঁদার বনিমিয় বদ্যিুৎ সংযোগ দওেয়ার নামে লাখ লাখ টাকা দালাল মজবিরে মাধ্যমেে হাতযি়ে নযি়ছেনে পৌরসভার মযে়র আলহাজ্ব আওলাদ হোসনে (লটিন) তনিি বদ্যিুতরে খুঁটি ও তাররে সংযোগ আছে কন্তিু বদ্যিুতরে সরবরাহ র্দীঘ তনি বছর হয়ে গলে আজও পায়নি সইে বদ্যিুৎ সংযোগ কন্তিু থমেে আছে । এই বষিয়ে ভুক্তভোগীরা বলনে কোভডি ১৯ মহামারি বশ্বি করোনাভাইরাস এইদকিে অন্যদকিে ছলেসেন্তানদরে  পড়াশোনা বর্কেড ঘটবে বলে বদ্যিুতরে জন্য টাকা দযি়ছেি মজবিরে কাছে কন্তিু মযে়র আলহাজ্ব আওলাদ হোসনে লটিন আমাদরেকে বলছেে তাই  আমরা টাকা দযি়ছেি মজবিরে কাছ।ে মুজবিকে বষিয়ে জজ্ঞিাসাবাদ করলিে সংবাদর্কমীকে দখেইে মোবাইল মোঠো ফোনইে আওলাদ হোসনে (লটিন) এর সাথইে যোগাযোগ শুরু করে পরর্বতীতে আওলাদ হোসনে (লটিন) দালাল মুজবিররে মোবাইল মোঠো ফোনে কথা বললিে শাহদে আরকে নাম কপি আওলাদ হোসনে লটিন নাম শোনার পরে বলে তোর সখোনে কি আমার সাথে এসে দখো কর ওই সময় সংবাদদাতাকে কয়কেবার ফোনে বলে দখো করার জন্য কন্তিু সইে সংবাদদাতা তার ভয়ঙ্কর রূপ ও তাহার ভাড়াটযি়ার গুন্ডা বাহনিীর ভয়ে তার সাথে দখো না করলে ওই সময়  মতলব দক্ষণি থানার নতৈকি ও আর্দশবান ইনর্চাজকে দযি়ে থানায় ডাকার চষ্টো কর।ে যখোনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সরকার ঘোষণা করছেে বাংলাদশেরে প্রতটিি গ্রাহকরে ঘরে ঘরে ৪৫০ টাকার মধ্যে নর্দিশেনা দযি়ছেে এবং স্থানীয় প্রশাসনকে আংগুল দযি়ে দালাল চক্রকে ধরযি়ে দযি়ে প্রকাশতি হয়ছে।ে আইনকে তোয়াক্কা না করে উপররে খুঁটরি জোরে সখোনে বদ্যৈুতকি লাইন নামে চাঁদা উত্তোলন করে ১৫ হাজার টাকা থকেে ১৭ হাজার টাকা কন্তি একজন পৌরসভার সকল জনগণরে অভভিাবক হয়ে সাধারণ মানুষরে কাছ থকেে হাতযি়ে নযি়ছেে লক্ষ লক্ষ টাকা চাঁদাবাজ ময়ের আওলাদ হোসনে (লটিন)। বদ্যিুৎ সংযোগ নামে চাদা উত্তোলন করার অভযিোগে এ বষিয়ে জজ্ঞিাসাবাদ করলে প্রশ্নরে উত্তর না দযি়ে ক্ষমতার শক্তি দখেযি়,ে তনিি সংবাদর্কমী নামে থানায় অভযিোগ কর।ে আর গ্রাহকরা বলছনে, করোনা ভাইরাস কে উপক্ষো করে সরকাররে নর্দিশেনার প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি দখেয়িে বাংলাদশেে বসে বাংলাদশেরে মানুষরে উপর শোষক হসিবেে ইংরজেদরে মত নীল চাষে নমেছেনে এবং দালাল মুজবি ওই গ্রামরে আক্তার সহ টাকা উত্তোলন করে মযে়র হাতে দযি়ছেি বলে জানায়।  যশোর পল্লী বদ্যিুৎ সমতি-িমতলব দক্ষণিরে অফসিরে ডজিএিম বলনে, এ অবধৈ টাকার ব্যাপারে অভযিোগ ভত্তিহিীন। কউে যদি প্রমান করতে পারে তার বরিুদ্ধে প্রশাসনকি ব্যবস্থা গ্রহন করা হব।ে পরর্বতীতে লত নাম্বার জানতে চাইলে ইঞ্জনিযি়ার বলে ৪ নং ওযর়্াডরে মযে়র এর লাইন তো লত নাম্বার আমার জানা নইে  এ বশিষে সংবাদদাতা খুব প্রকাশ করে যে একজন সংবাদর্কমীর নতৈকি ও আর্দশ হলো সত্য কছিু উদঘাটন করা এটা হলো সংবাদর্কমীর মৌলকি দায়ত্বি কন্তিু সইে সত্য উদঘাটন করাকে কন্দ্রে করে আজ আমার হতে হয়ছেে থানার অভযিুক্ত আসামী.তাহলে কি কপি সাহদে আরকে নাম বরেয়িে এলো নতুন করে মযে়র আওলাদ হোসনে (লটিন) নামে তাহলে কি তার শয়তানি ভয় কলম বন্ধ থাকবে না সত্য প্রকাশতি হবইে। নউিজটি চলমান থাকবে

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar