মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৩:৫৮ পূর্বাহ্ন

ইটভাটা মালিকের বিরুদ্ধে মিথ্যে সংবাদ প্রকাশের অভিযোগ

শাহজাহান আলী মনন, নীলফামারী জেলা প্রতিনিধি : নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলায় কৃষি জমির মাটি কেটে নিয়ে যাচ্ছে ইটভাটা মালিকেরা। আর এর ফলে পাশের জমির আইল ভেঙ্গে ফসলের ক্ষতি হয়েছে মর্মে প্রকাশিত সংবাদের তথ্যটি মনগড়া বলে অভিযোগ করেছেন এমএবি অটো ব্রিকস্ধসঢ়; ইটভাটা মালিক এরশাদ আলী। তিনি এ ব্যাপারে বলেন যে, তার ইটভাটার জন্য প্রয়োজনীয় মাটি তিনি নিজে কখনো কোন জমি থেকে কেটে আনেন না। বরং কন্ট্রাক্টের মাধ্যমে ট্রলির মালিক ও শ্রমিকরা তার ইটভাটায় মাটি সরবরাহ করেন। তাছাড়া মাটি নেয়ার ক্ষেত্রে তিনি সব সময় উচু ও অনাবাদী জমির মাটি নেন। কোন কৃষি জমির মাটি কাটা হলে তার জন্য ওইসব ট্রলির মালিক ও শ্রমিকরা জড়িত। তারা অবশ্যই জমির মালিকের সম্মতিতেই মাটি কেটে থাকে। এক্ষেত্রে কোন জমির মাটি কাটার কারণে অন্য কারো ক্ষতি হয়ে থাকলে তার দায়-দায়িত্ব জমির মাটি বিক্রেতার। ট্রলির মালিক- শ্রমিক বা ইটভাটা মালিকের নয়। তিনি আরও বলেন, আমার ইটভাটার মাটি অধিকাংশ ক্ষেত্রে ভাটার আশে পাশে এলাকা থেকে নেয়া হয়না। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে আমরা পাশর্^বর্তী রংপুরের তারাগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে মাটি এনে থাকি। তাই গত ৬ এপ্রিল শনিবার দৈনিক নয়াদিগন্ত পত্রিকায় প্রকাশিত খবরে আমাকে জড়িয়ে মিথ্যে সংবাদ প্রকাশ করায় প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সে সাথে সংশ্লিষ্ট সংবাদকর্মী আমার মন্তব্য না নিয়েই মনগড়াভাবে উড়ো তথ্যের ভিত্তিতে সংবাদ করায় ভবিষ্যতে এ ধরণের কাজ করা থেকে বিরত থাকার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি। কারণ আমরাও চাই সংবাদপত্রগুলো বস্তুনিষ্ঠ ও সঠিক সংবাদ প্রকাশ করুক। এতে দেশ জাতি ও মানবতার কল্যাণ হবে। কিন্তু মিথ্যে সংবাদ প্রকাশ করে অহেতুক কারো সম্মানহানী ঘটানো সংবাদপত্র বা সংবাদকর্মীর দায়িত্ব নয়। বরং এটি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও ষড়যন্ত্রমূলক বলে আমি মনে করি।

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar