বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৩৮ পূর্বাহ্ন

আসন্ন কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী সাবেক ছাত্রনেতা চেয়ারম্যান পুত্র তারেক রহমান বাবু

মোঃ খলিলুর রহমান, জেলা প্রতিনিধি, দৈনিক মাতৃভূমির খবরঃ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নবীনগরের ঐতিহ্যবাহী ইউনিয়ন বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের নৌকা মনোনয়ন পেতে প্রচার প্রচারণায় ব্যস্ত সময় পার করছেন সাবেক ছাত্রনেতা তারেক রহমান বাবু। তারেক রহমান বাবু ১৯৭৭ সালে কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের উত্তর লীপুর সাতঘর হাটি চেয়ারম্যান বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। তারেক রহমান বাবু কৃষ্ণনগর আব্দুল জব্বার স্কুল থেকে এস.এস.সি পাস করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজে এইচ.এস.সিতে ভর্তি হন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের রাজনীতিতে তিনি সক্রিয় ভ‚মিকা পালন করেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদ নির্বাচনে (১৯৯৬-৯৭) শিাবর্ষে তিনি ছাত্রলীগ থেকে সাহিত্য সম্পাদক নির্বাচিত হন। তারেক রহমান বাবু ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের সহ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। তারেক রহমান বাবু নবীনগর উপজেলা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের আহ্বায়ক কমিটির অন্যতম সদস্য। তারেক রহমানের পিতা মহুম ফুলমিয়া কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান। তারেক রহমানের নানা মরহুম অ্যাডভোকেট আলকাছ আলী কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সফল চেয়ারম্যান। তারেক রহমানের মাতা কামরুন্নাহার কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের সংরতি মহিলা আসনের সাবেক মহিলা মেম্বার। তারেক রহমান বাবু ছাত্রজীবন থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের রাজনৈতিক আদর্শকে বুকে ধারণ করে লড়াই সংগ্রাম আন্দোলনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পে গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করেন। তারেক রহমান বাবু ছাত্রজীবন থেকে অদ্যাবধি প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন, উপজেলা পরিষদ নির্বাচন ও জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পে গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করেন। তারেক রহমান ঢাকা কলেজ থেকে সমাজবিজ্ঞানে এম.এস.এস সম্মান ডিগ্রী অর্জন করেন। পড়াশুনা শেষ করে তিনি ব্যবসায়ে মনোনিবেশ করেন। তিনি রাজনীতির পাশাপাশি একজন সফল ব্যবসায়ী। তারেক রহমান বাবু এলাকার উন্নয়নে নিজের অবস্থান থেকে সর্বাত্মক আর্থিক ও মানসিক পরিশ্রম করার চেষ্টা করেন। তারেক রহমানের বাবা মরহুম ফুল মিয়া চেয়ারম্যান বাইশমোজা থেকে কৃষ্ণনগরের যে রাস্তা সেটি নির্মাণ করেছিলেন। তারেক রহমানের পিতা এলাকার উন্নয়নে, শিাগত উন্নয়নে ভ‚মিকা পালন করে গিয়েছেন। তারেক রহমান বলেন, আমি এলাকার দাঙ্গা, দলাদলিতে বিশ্বাসী নয়, আমি এলাকার দাঙ্গা নিরসন করে শান্তিশৃঙ্খলা ফিরিয়ে এনে সকলের মধ্যে একটি পারস্পরিক ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি করব। এলাকার রাস্তাঘাট, শিার মান ও জীবনযাত্রার মান উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করব। আমাকে যদি কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতীকে বিবেচনা করা হয়, আমি আমার সর্বাত্মক শ্রম ও মেধা দিয়ে কৃষ্ণনগর ইউনিয়নকে ডিজিটাল ইউনিয়নে রূপান্তর করব ইনশাল্লাহ। আমি বিশ্বাস করি আমার ত্যাগ ও পরিবারের কথা বিবেচনা করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নবীনগর উপজেলার সিনিয়র নেতৃবৃন্দ আমাকে নৌকার মনোনয়নে বিবেচিত করবে ইনশাল্লাহ। আমি দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে করোনাকালীন সময়ে অসহায় ও দারিদ্র পরিবারের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। আমি ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করেছি। আমি এলাকার ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও খেলাধুলায় আর্থিকভাবে সহযোগিতা করে আসছি। আমি বিশ্বাস করি আমার এলাকার লোকজন সম্মানিত ভোটারবৃন্দ আমার পরিবারের কথা বিবেচনায় নিয়ে আমাকে নৌকার প্রতীকে বিপুল ভোটে জয়ী করবে। আমি এবং আমার পরিবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের স্মৃতিবিজড়িত কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের সম্মানিত জনসাধারণ এর কল্যাণে সারাজীবন কাজ করে গিয়েছে এবং যাচ্ছে। কৃষ্ণনগর ইউনিয়নবাসী তাদের শান্তি-শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার ল্েয আমাকে বারবার নির্বাচনী মাঠে আসার অনুরোধ করছে, আমি তাদের অনুরোধে আমার এলাকার মানুষের কল্যাণের কথা বিবেচনা করে নির্বাচন করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করছি। আমি কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, কৃষক লীগ, শ্রমিক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠন সহ এলাকাবাসীর সর্বাত্মক সহযোগিতা ও দোয়া কামনা করছি। আমি আপনাদের পবিত্র ভোটে নির্বাচিত হলে আমার নানা ও বাবার আদর্শকে লালন করে এলাকাবাসীর উন্নয়নে কাজ করার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করছি। সকলে আমার জন্য দোয়া করবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar