ঢাকা ০২:৫৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ১৯ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
ইউএসটিসি ছাত্রদলের ৫ সদস্যের আহবায়ক কমিটির ৩ সদস্যের পদত্যাগ। পবিপ্রবিতে নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনায় উৎপাদিত তেলাপিয়া ও পাঙ্গাস মাছের নিলাম অনুষ্ঠিত টাঙ্গাইলে এনটিভির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন লক্ষ্মীপুরে পুলিশের নায়েক থেকে সহকারী উপ পরিদর্শক হলেন ৬ জন পানি, খাবার এবং ঔষধ বিতরণ করেন KSA গোল্ডেন বয় সোসাইটি বোয়ালমারীতে গরুবাহী ট্রাকের চাপায় মা-মেয়ে নিহত কাঞ্চনায় স্কুল পরিচালনা নিয়ে মন্তব্য করায় হেনস্তার অভিযোগ মাত্র ৩০ সেকেন্ড টর্নেডোতে লন্ডভন্ড পটুয়াখালীর চরপাড়া। একটি মানবিক সাহায্যের জন্য আবেদন বাঁচতে চাই ক্যান্সারে আক্রান্ত মোহাম্মদ আরমান গজারিয়ায় ঢাকা চট্টগ্রাম মহাসড়কে ভবেরচর কলেজ রোডে সড়ক দূর্ঘটনা আহত ৫

আওয়ামী লীগ সরকার আসার আগে কারও হাতে মোবাইল ছিল না

ফাইল ছবি

মাতৃভূমির খবর ডেস্ক :   আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকারে আসার আগে কারও হাতে মোবাইল ফোন ছিল না। আমরা মোবাইল ফোন পৌঁছে দিয়েছি। গতকাল  শুক্রবার বিকালে রাজধানীর গুলশানের ইয়ুথ ক্লাব মাঠে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধানমন্ত্রী প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, প্রত্যেকটা এলাকায় হাসপাতাল করে দিয়েছি। বেশি করে হাসপাতাল করে দিয়েছি মানুষ যাতে বেশি সেবা পায়। বস্তিবাসীদের কথা আমরা চিন্তা করেছি। তাদের জন্য স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করেছি। নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তন নয়, দেশের মানুষের উন্নয়ন করাই আমার মূল লক্ষ্য। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে। নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে সেবা করার সুযোগ দিয়েছে বলেই মানুষের জীবনের আয়-রোজগার বৃদ্ধি করতে সক্ষম হয়েছি। শিক্ষার উন্নত ব্যবস্থা করে দিয়েছি। বহুমুখী শিক্ষার ব্যবস্থা করে দিয়েছি। যাতে বিদেশে গিয়ে ছেলেমেয়েরা চাকরি করতে পারে।আগে ঘন ঘন লোডশেডিং হতো। এখন আর হয় না। বিদ্যুৎ খাতকে বহুমুখী করে দিয়েছি।

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, একসময় বাংলাদেশকে খরা, দুর্ভিক্ষ, দুর্যোগ, অভাবের দেশ বলা হতো। যারা বিদেশে যেতেন তাদের এসব প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হতো। তবে সেই বদনাম আর নাই। আজকে আর কারও কাছে হাত পেতে আমাদের চলতে হয় না। বাংলাদেশ আজ ভিক্ষুকের দেশ না। নিজের পায়ে দাঁড়াতে শিখেছে।

এর আগে বিকাল পৌনে ৪টার দিকে প্রধানমন্ত্রী জনসভাস্থলে পৌঁছে প্রধান অতিথির আসন নেন। এদিকে নির্বাচনী প্রচারণার অংশ হিসেবে আয়োজিত এ জনসভায় দুপুরের পর থেকেই জড়ো হয়েছেন দলটির বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী। নির্বাচনী আমেজে খণ্ড খণ্ড মিছিল মিলেছে সভাস্থলে।

নৌকার প্রতিকৃতি নিয়ে, নেচে গেয়ে ইয়ুথ ক্লাব মাঠে জড়ো হন নেতাকর্মীরা। তাদের গায়ে লাল-সবুজের পোশাক বর্ণিল করে তুলেন জনসভাকে।

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

ইউএসটিসি ছাত্রদলের ৫ সদস্যের আহবায়ক কমিটির ৩ সদস্যের পদত্যাগ।

আওয়ামী লীগ সরকার আসার আগে কারও হাতে মোবাইল ছিল না

আপডেট টাইম ০৬:০৬:০১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২২ ডিসেম্বর ২০১৮

মাতৃভূমির খবর ডেস্ক :   আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আওয়ামী লীগ সরকারে আসার আগে কারও হাতে মোবাইল ফোন ছিল না। আমরা মোবাইল ফোন পৌঁছে দিয়েছি। গতকাল  শুক্রবার বিকালে রাজধানীর গুলশানের ইয়ুথ ক্লাব মাঠে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধানমন্ত্রী প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, প্রত্যেকটা এলাকায় হাসপাতাল করে দিয়েছি। বেশি করে হাসপাতাল করে দিয়েছি মানুষ যাতে বেশি সেবা পায়। বস্তিবাসীদের কথা আমরা চিন্তা করেছি। তাদের জন্য স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করেছি। নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তন নয়, দেশের মানুষের উন্নয়ন করাই আমার মূল লক্ষ্য। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে। নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে সেবা করার সুযোগ দিয়েছে বলেই মানুষের জীবনের আয়-রোজগার বৃদ্ধি করতে সক্ষম হয়েছি। শিক্ষার উন্নত ব্যবস্থা করে দিয়েছি। বহুমুখী শিক্ষার ব্যবস্থা করে দিয়েছি। যাতে বিদেশে গিয়ে ছেলেমেয়েরা চাকরি করতে পারে।আগে ঘন ঘন লোডশেডিং হতো। এখন আর হয় না। বিদ্যুৎ খাতকে বহুমুখী করে দিয়েছি।

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, একসময় বাংলাদেশকে খরা, দুর্ভিক্ষ, দুর্যোগ, অভাবের দেশ বলা হতো। যারা বিদেশে যেতেন তাদের এসব প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হতো। তবে সেই বদনাম আর নাই। আজকে আর কারও কাছে হাত পেতে আমাদের চলতে হয় না। বাংলাদেশ আজ ভিক্ষুকের দেশ না। নিজের পায়ে দাঁড়াতে শিখেছে।

এর আগে বিকাল পৌনে ৪টার দিকে প্রধানমন্ত্রী জনসভাস্থলে পৌঁছে প্রধান অতিথির আসন নেন। এদিকে নির্বাচনী প্রচারণার অংশ হিসেবে আয়োজিত এ জনসভায় দুপুরের পর থেকেই জড়ো হয়েছেন দলটির বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী। নির্বাচনী আমেজে খণ্ড খণ্ড মিছিল মিলেছে সভাস্থলে।

নৌকার প্রতিকৃতি নিয়ে, নেচে গেয়ে ইয়ুথ ক্লাব মাঠে জড়ো হন নেতাকর্মীরা। তাদের গায়ে লাল-সবুজের পোশাক বর্ণিল করে তুলেন জনসভাকে।