বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০৫:৩২ পূর্বাহ্ন

আইসিটি উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় তরুণদের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ-তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী

সিনিয়র রিপোর্টার (মাসুদ হোসেন মোল্লা রিদম),ঢাকা: ডাক ,টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার বলেছেন, বাংলাদেশ ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নে দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলেছে। আইসিটি উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় আমাদের তরুণদের ভূমিকা উল্লেখযোগ্য। সেটা বলার অপেক্ষা রাখে না।

আজ রবিবার দুপুরে রাজধানীর হোটেল ওয়েস্টিনে আইসিটি সলিউশন প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে বাংলাদেশ এর গ্লোবাল ফেলোশিপ সিএসআর প্রোগ্রাম সিডস ফর দ্য ফিউচার ২০১৯ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানের সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

আইসিটি মন্ত্রী জব্বার বলেন, বাংলাদেশ ভিশন ২০২১ বাস্তবায়নে খুবই দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলছে। আইসিটি উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় আমাদের তরুণদের ভূমিকা উল্লেখ যোগ্য। সুতরাং আমাদের দায়িত্ব এই মেধাবী তরুণদের সঠিক পথ নির্দেশ না দেওয়া। বিগত বছরগুলোতে হুয়াওয়ে তাদের সসিডস ফর দ্য ফিউচার প্রতিযোগিতার মাধ্যমে তরুণদের মাঝে জ্ঞানের খোদার তৈরির একটি এই কাজটি করে আসছে। জেনে ভালো লেগেছে যে এই কোম্পানিটি তাদের রায়ের ১০ বাভই গবেষণার ব্যয় করে সেখানে তাদের ৮০ হাজার কর্মী কাজ করে চলেছেন। এমন একটি প্রতিষ্ঠানের প্রধান কার্যালয়ে প্রশিক্ষণ নিতে পারছে আমাদের তরুণরা।এটা দারুণ ব্যাপার।এটা তরুণদের ভবিষ্যতে আরো নতুন সব উদ্ভাবনে উদ্দীপ্ত করবে। আমরা এই প্রতিষ্ঠানটিকে আমাদের দেশের ডিজিটাল লক্ষ্য বাস্তবায়নের পথে অন্যতম সহযোগী হিসেবে গণ্য করি। আমাদের দেশের ছেলেরা এখানে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে।

হুয়াওয়ে টেকনোলজি (বাংলাদেশ) প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নিবার্হী কর্মকর্তা (সি ই ও) ঋ‍্য জেংজুন বলেন, বাংলাদেশের রয়েছে এক ঝাঁক স্বপ্নবাজ তরুণ প্রজন্ম। হুয়াওয়ে বিশ্বাস করে,এই তরুণরাই ডিজিটাল উন্নয়নের মূল চালিকাশক্তি‌। বয় ওর সিট ফর দা ফিউচার প্রতিযোগিতা তরুণদের নতুন নতুন চিন্তা চেতনা ও উদ্ভাবন করতে সহযোগিতা করবে। আর সেগুলো একটি উন্নত,সংযুক্ত ও বুদ্ধি ভিত্তিক সমাজ গড়ে তুলতে সহযোগিতা করবে। তারা যেন ভবিষ্যতে একটি সুন্দর ও উন্নত সমাজ গড়ে তুলতে পারে। তাদের মনের ভিতর সেই বীজ বপন করায় সিডস ফর দ্য ফিউচার এর উদ্দেশ্য।

সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয়েছে, বাংলাদেশ আইসিটি প্রতিবাদ তৈরি ও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক শিক্ষা প্রসারে হুয়াওয়ে বাংলাদেশের ৫ টি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১০ জন শিক্ষার্থীকে বাছাই করবে। আগামী দুই মাস এই বাছাই প্রক্রিয়া চলবে। পরবর্তীতে এই মেধাবী শিক্ষার্থীদের কে চীনে অবস্থিত হুয়াওয়ের হেডকোয়ার্টারে তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে অভিজ্ঞতা এবং প্রশিক্ষণ গ্রহণ করবে।

প্রসঙ্গত, ২০০৮ সাল বিশ্বব্যাপী সিডস ফর দ্য ফিউচার প্রতিযোগিতা শুরু হয়। আজ পর্যন্ত বিশ্বের ১০৮ টি দেশে এই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। বিশ্বব্যাপী ৩৫০ টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০,০০০ হাজার শিক্ষার্থীরা এতে অংশগ্রহণ করেছে। তাদের মধ্যে থেকে ৩,৬০০ জন শিক্ষার্থীকে হুয়াওয়ে হেডকোয়ার্টারে শিক্ষা সফরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এই সময় উক্ত সংবাদ সম্মেলনে ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রীর পিএস খোরশেদ তালুকদার,হুয়াওয়ে টেকনোলজি (বাংলাদেশ) লিমিটেডের উর্দ্ধতন কর্মকর্তারা ও গণমাধ্যমকর্মীরা।

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar