ঢাকা ০৯:৪২ অপরাহ্ন, সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
নবীনগরে ভয়াবহ নদী ভাঙ্গনে চোখের পলকে বাস্তুহারা ৩০ পরিবার, ইউএনওর সহায়তা- নিয়ামতপুরে ইউনিয়ন ছাত্র লীগের বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত। হারিয়ে যাওয়া ল্যাপটপ, নগদ ৫০ হাজার টাকা (সিএমপি) চকবাজার থানার পুলিশের সহায়তায় ফিরে পেয়ে আবেগ আপ্লুত, ট্রান্সপোর্ট ব্যবসায়ী ফরহাদ, আনোয়ারার প্রান্তে স্বপ্নের বঙ্গবন্ধু টানেল দেখতে পর্যটকের ভিড় দেখা হলনা হাট পথেই মৃত্যু বেপারীর বিশিষ্ট সাংবাদিক মো. সাইফুল ইসলাম রণি’র ৩৮ তম জন্মদিন আজ ইউএসটিসি ছাত্রদলের ৫ সদস্যের আহবায়ক কমিটির ৩ সদস্যের পদত্যাগ। পবিপ্রবিতে নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থাপনায় উৎপাদিত তেলাপিয়া ও পাঙ্গাস মাছের নিলাম অনুষ্ঠিত টাঙ্গাইলে এনটিভির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন লক্ষ্মীপুরে পুলিশের নায়েক থেকে সহকারী উপ পরিদর্শক হলেন ৬ জন

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ভারতের ঐতিহাসিক টেস্ট জয়

স্পোর্টস ডেস্ক :   অ্যাডিলেড টেস্টে ঐতিহাসিক জয় পেল ভারত। সোমবার ম্যাচের পঞ্চম দিনে অস্ট্রেলিয়াকে ৩১ রানে হারায় বিরাট কোহলিরা। এর আগে ২০০৩ সালে শেষবার অ্যাডিলেডে জিতেছিল সৌরভ গাঙ্গুলির নেতৃত্বাধীন ভারত। ১৫ বছর পর সেই রেকর্ড ছুঁলেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

চার ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে জিতে ভারত এগিয়ে গেল ১-০ ব্যবধানে। এখন কোহলির সামনে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে রইল প্রথম সিরিজ জয়ের স্বপ্ন।

ভারতের পক্ষে বল হাতে ৩টি করে উইকেট নেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন, জাসপ্রিত বুমরাহ ও মোহাম্মদ শামী। অন্য উইকেট যায় ইশান্ত শর্মার পকেটে। তবে ব্যাট হাতে প্রথম ইনিংসে ১২৩ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৭১ রান করে ম্যাচসেরার পুরষ্কার জিতেছেন চেতেশ্বর পুজারা।

পঞ্চম দিনে অস্ট্রেলিয়ার জয়ের জন্য করতে হতো ২১৯ রান, ভারতের প্রয়োজন ছিলো ৬টি উইকেট। স্বীকৃত ব্যাটসম্যানদের ২০০ রানের আগেই সাজঘরে ফিরিয়ে জয়ের সম্ভাবনা তৈরি করে ফেলে সফরকারীরা। কিন্তু শেষ তিন উইকেটে ছোট ছোট জুটি গড়ে তিনশর কাছাকাছি পৌঁছে যায় অস্ট্রেলিয়া।

আগের দিন ৩১ রানে অপরাজিত থাকা শন মার্শ এদিন ফেরেন ৬০ রান করে, দলীয় ১৫৬ রানের মাথায়। আশার প্রতীক হয়ে টিকে থাকা অধিনায়ক টিম পেইন সপ্তম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন দলের ১৮৭ রানের মাথায়। তার ব্যাট থেকে আসে ৪১ রান। তখনো জিততে বাকি ১৩৬ রান, উইকেট বাকি কেবল ৩টি।

প্রথমে মিচেল স্টার্ক ও প্যাট কামিনস, পরে প্যাট কামিনস ও নাথান লিয়ন এবং শেষে নাথান লিয়ন ও জশ হ্যাজেলউড মিলে ব্যাট হাতে জাগিয়ে তুলেছিলেন স্বাগতিকদের জয়ের আশা। অষ্টম উইকেট স্টার্ক-কামিনস ৪১, নবম উইকেটে কামিনস-লিয়ন ৩১ ও শেষ উইকেটে লিয়ন-হ্যাজলউড যোগ করেন ৩২ রান।

শেষের চারজনের ব্যাট থেকেই আসে সর্বমোট ১০৭ রান। এদের মধ্যে সর্বোচ্চ ৩৮ রান করে অপরাজিত থাকেন ম্যাচে মোট ৮ উইকেটে (২+৬) নেয়া লিয়ন। এছাড়া কামিনস ও স্টার্ক- উভয়েই করেন ২৮ রান। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার আগে হ্যাজলউড খেলেন ১৩ রানের ইনিংস।

ভারতের পক্ষে বল হাতে ৩টি করে উইকেট নেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন, জাসপ্রিত বুমরাহ ও মোহাম্মদ শামী। অন্য উইকেট যায় ইশান্ত শর্মার পকেটে। তবে ব্যাট হাতে প্রথম ইনিংসে ১২৩ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৭১ রান করে ম্যাচসেরার পুরষ্কার জিতেছেন চেতেশ্বর পুজারা।

Tag :
জনপ্রিয় সংবাদ

নবীনগরে ভয়াবহ নদী ভাঙ্গনে চোখের পলকে বাস্তুহারা ৩০ পরিবার, ইউএনওর সহায়তা-

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ভারতের ঐতিহাসিক টেস্ট জয়

আপডেট টাইম ১০:৫৩:৪৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮

স্পোর্টস ডেস্ক :   অ্যাডিলেড টেস্টে ঐতিহাসিক জয় পেল ভারত। সোমবার ম্যাচের পঞ্চম দিনে অস্ট্রেলিয়াকে ৩১ রানে হারায় বিরাট কোহলিরা। এর আগে ২০০৩ সালে শেষবার অ্যাডিলেডে জিতেছিল সৌরভ গাঙ্গুলির নেতৃত্বাধীন ভারত। ১৫ বছর পর সেই রেকর্ড ছুঁলেন অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

চার ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টে জিতে ভারত এগিয়ে গেল ১-০ ব্যবধানে। এখন কোহলির সামনে অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে রইল প্রথম সিরিজ জয়ের স্বপ্ন।

ভারতের পক্ষে বল হাতে ৩টি করে উইকেট নেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন, জাসপ্রিত বুমরাহ ও মোহাম্মদ শামী। অন্য উইকেট যায় ইশান্ত শর্মার পকেটে। তবে ব্যাট হাতে প্রথম ইনিংসে ১২৩ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৭১ রান করে ম্যাচসেরার পুরষ্কার জিতেছেন চেতেশ্বর পুজারা।

পঞ্চম দিনে অস্ট্রেলিয়ার জয়ের জন্য করতে হতো ২১৯ রান, ভারতের প্রয়োজন ছিলো ৬টি উইকেট। স্বীকৃত ব্যাটসম্যানদের ২০০ রানের আগেই সাজঘরে ফিরিয়ে জয়ের সম্ভাবনা তৈরি করে ফেলে সফরকারীরা। কিন্তু শেষ তিন উইকেটে ছোট ছোট জুটি গড়ে তিনশর কাছাকাছি পৌঁছে যায় অস্ট্রেলিয়া।

আগের দিন ৩১ রানে অপরাজিত থাকা শন মার্শ এদিন ফেরেন ৬০ রান করে, দলীয় ১৫৬ রানের মাথায়। আশার প্রতীক হয়ে টিকে থাকা অধিনায়ক টিম পেইন সপ্তম ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হন দলের ১৮৭ রানের মাথায়। তার ব্যাট থেকে আসে ৪১ রান। তখনো জিততে বাকি ১৩৬ রান, উইকেট বাকি কেবল ৩টি।

প্রথমে মিচেল স্টার্ক ও প্যাট কামিনস, পরে প্যাট কামিনস ও নাথান লিয়ন এবং শেষে নাথান লিয়ন ও জশ হ্যাজেলউড মিলে ব্যাট হাতে জাগিয়ে তুলেছিলেন স্বাগতিকদের জয়ের আশা। অষ্টম উইকেট স্টার্ক-কামিনস ৪১, নবম উইকেটে কামিনস-লিয়ন ৩১ ও শেষ উইকেটে লিয়ন-হ্যাজলউড যোগ করেন ৩২ রান।

শেষের চারজনের ব্যাট থেকেই আসে সর্বমোট ১০৭ রান। এদের মধ্যে সর্বোচ্চ ৩৮ রান করে অপরাজিত থাকেন ম্যাচে মোট ৮ উইকেটে (২+৬) নেয়া লিয়ন। এছাড়া কামিনস ও স্টার্ক- উভয়েই করেন ২৮ রান। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে আউট হওয়ার আগে হ্যাজলউড খেলেন ১৩ রানের ইনিংস।

ভারতের পক্ষে বল হাতে ৩টি করে উইকেট নেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন, জাসপ্রিত বুমরাহ ও মোহাম্মদ শামী। অন্য উইকেট যায় ইশান্ত শর্মার পকেটে। তবে ব্যাট হাতে প্রথম ইনিংসে ১২৩ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৭১ রান করে ম্যাচসেরার পুরষ্কার জিতেছেন চেতেশ্বর পুজারা।