সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৬:৪৯ পূর্বাহ্ন

অবৈধ দখলমুক্ত করতে নদী তীরের উচ্ছেদ কার্যক্রম চলমান থাকবে : এনামুল হক শামীম

সিনিয়র রিপোর্টার (মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম), ঢাকা:  পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম বলেছেন,প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ও নির্দেশনায় বর্তমান সরকার বাংলাদেশের নদ-নদীগুলো দখলমুক্ত করতে বদ্ধপরিকর। সেলক্ষ্যে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় ও নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়সহ সরকারের সংশ্লিষ্ট অন্যান্য মন্ত্রণালয় ও দপ্তর সমন্বিতভাবে বুড়িগঙ্গা ও কর্ণফুলী নদীর তীরবর্তী দখলদারদের বিরুদ্ধে উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করছে। বাংলাদেশকে বাঁচাতে হলে আমাদের নদ-নদীগুলো বাঁচাতে হবে। তাই নদী তীরের এই উচ্ছেদ কার্যক্রম চলমান থাকবে।

দেশের নদ-নদী বাঁচাতে সরকারের দৃঢ় মনোভাব জানিয়ে বাংলাদেশ নদী বাঁচাও আন্দোলন কর্তৃক আয়োজিত আজ বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নাগরিক সমাবেশে পানি সম্পদ উপ-মন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীম একথা বলেন। উপ-মন্ত্রী শামীম দেশের জলাবদ্ধতা দূরীকরণে পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রম উল্লেখ করে বলেন- ইতোমধ্যে আমি ও আমরা মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ সরেজমিনে দেশের জলাবদ্ধ ও ভাঙ্গন কবলিত এলাকা সরেজমিনে পরিদর্শন শুরু করেছি। আমরা এই বর্ষা মৌসুমে দেশবাসীকে জলাবদ্ধতা হতে মুক্ত করতে কাজ করছি। পাশাপাশি ভাঙ্গন কবলিত এলাকাগুলোও চিহ্নিত করে ভাঙ্গন প্রতিরোধে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে আমরা নিরলসভাবে কাজ করছি। আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম এসময় বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাংলার দামাল ছেলেরা যেভাবে ‘তোমার আমার ঠিকানা, পদ্ম-মেঘনা-যমুনা’ স্লোগানকে বুকে ধারণ করে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ছিনিয়ে এনেছিল,ঠিক সেভাবেই আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বেও নদীমাতৃক এই বাংলাদেশের পদ্মা, মেঘনা, যমুনাসহ দেশের সকল নদ-নদীকে দূষণ ও দখলদারমুক্ত করতে সকল প্রচেষ্ঠা অব্যাহত রাখব। বাংলাদেশ নদী বাঁচাও আন্দোলনের এই উদ্যোগের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে উপমন্ত্রী শামীম নদী রক্ষায় জনসচেতনতার ওপর গুরাত্বারোপ করেন এবং তিনি সমাজের সকল শ্রেণি-পেশার মানুষকে সম্মিলিতভাবে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার আহবান জানান। এসময় তিনি নদী রক্ষায় সরকারি কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি জনগণকে সচেতন নাগরিক হিসেবে নিজ নিজ দায়িত্ব পালনেরও আহবান জানান। আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম দখলদারকে স্থানীয়ভাবে প্রতিরোধ করার পাশাপাশি নদী তীরের উচ্ছেদ কার্যক্রমেও সরকারকে সহযোগিতার আহবান জানান। সারাদেশের নদ-নদী রক্ষায় সাংবাদিকদের ভূমিকার প্রশংসা করে তিনি সাংবাদিকদের এই প্রচেষ্ঠা আগামীদিনেও অব্যাহত রাখার আহবান জানিয়ে বলেন,আপনাদের প্রকাশিত ও প্রচারিত সংবাদের ভিত্তিতে আমরা সহজেই এসব দখলদার ও দূষণকারীদের চিহ্নিত করতে পারি এবং পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় এসব সংবাদের ভিত্তিতে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নিচ্ছে। জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বাংলাদেশ নদী বাঁচাও আন্দোলন আয়োজিত এই নাগরিক সমাবেশে সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি অধ্যাপক আনোয়ার সাদাত, সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মোঃ বাচ্চু মিয়া, সাধারণ সম্পাদক এড. মোঃ আনোয়ার হোসেন, যুগ্ম আন্তর্জাতিক সম্পাদক মনির মুন্সি, জনকণ্ঠ গ্রুপের নির্বাহী পরিচালক মোঃ নজরুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

নিউজটি শেয়ার করুন





সর্বস্বত্ব © ২০১৯ মাতৃভূমির খবর কর্তৃক সংরক্ষিত

Design & Developed BY ThemesBazar